ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯

চার সমুদ্র বন্দরকে ৩ নম্বর সতর্কতা

সাগরে ৭ ট্রলারডুবি ৫১ জেলে উদ্ধার নিখোঁজ ২১

জনকণ্ঠ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৩:৫৫, ১০ আগস্ট ২০২২; আপডেট: ১৩:৫৭, ১১ আগস্ট ২০২২

সাগরে ৭ ট্রলারডুবি ৫১ জেলে উদ্ধার নিখোঁজ ২১

মেঘনা নদীতে ঢেউয়ের কবলে মাছধরা জেলে

বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের প্রভাবে উত্তাল ঢেউয়ের কবলে পড়ে ভোলার চরফ্যাশন ও দৌলতখান, পটুয়াখালীর গলাচিপা ও বরগুনার পাথরঘাটায় পৃথক ৭টি ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটেছেএসব ট্রলারে থাকা ৫১ জেলেকে উদ্ধার করা হলেও এখন নিখোঁজ রয়েছেন ২১ জেলেবুধবার পর্যন্ত নিখোঁজ জেলেদের খোঁজ পাওয়া যায়নিবৈরী আবহাওয়ার কারণে উদ্ধার অভিযান ব্যাহত হচ্ছেএদিকে, পূর্ণিমার আগমন ও ভারতের ওড়িশা উপকূল অতিক্রম করা নিম্নচাপ লঘুচাপে রূপ নেয়ায় পানি বাড়ছেএতে দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছেখবর স্টাফ রিপোর্টার, নিজস্ব সংবাদদাতা ও সংবাদদাতাদের

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার ঢালচরের ২১ জেলেসহ দুটি মাছধরা ট্রলার বঙ্গোপসাগরে ডুবে গেছেএ সময় অন্য ট্রলারের মাধ্যমে ১৩ জেলেকে উদ্ধার করা হলেও ট্রলারডুবির একদিন পর বুধবার দুপুর পর্যন্ত নিখোঁজ ৮ জেলের কোন সন্ধান পাওয়া যায়নিএদিকে, ডুবে যাওয়া ইউসুফ মাঝির ট্রলার উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চরফ্যাশন উপজেলার ঢালচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুস সালামকোস্ট গার্ড নিখোঁজদের উদ্ধারে চেষ্টা চালাচ্ছেকিন্তু বৈরী আবহাওয়ার কারণে উদ্ধার অভিযান ব্যাহত হচ্ছে

স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার বিকেলে পটুয়াখালী জেলার পায়রা বন্দরসংলগ্ন বঙ্গোপসাগরের ২৫/৩০ কিলোমিটার দক্ষিণে ও ঢালচরসংলগ্ন বঙ্গপসাগরে ২১ জেলে নিয়ে চরফ্যাশন উপজেলার ঢালচর ইউনিয়নের কালাম মাঝি ও ইউসুফ মাঝির ট্রলার দুটি ডুবে যায়এ সময় ইউসুফ মাঝিসহ ৫ জেলেকে উদ্ধার করা হলেও ৮ জন নিখোঁজ রয়েছেননিখোঁজ জেলেদের মধ্যে মোঃ রাসেল (৩৫), মোঃ মন্নান (৩৬), নজরুল (৪০), আব্দুর রহমান (৩৭), তসলিম (৩০), মোঃ ইসমাইল (৪০), জুয়েলের (৩২) নাম জানা গেছেওই ট্রলারে থাকা জেলেরা প্রত্যেকেই চরফ্যাশন উপজেলার বাসিন্দা

অপরদিকে, ঢালচরের জেলে আবুল হোসেন জানান, মঙ্গলবার সকালে ঢালচরসংলগ্ন বঙ্গপসাগরে ৮ জেলে নিয়ে ঢালচরের কালাম মাঝির মাছ ধরার ট্রলার ডুবে যায়এ সময় ৮ জেলেকেই অন্যান্য ট্রলারের মাধ্যমে জীবিত করা উদ্ধার হয়ভোলা কোস্ট গার্ড দক্ষিণ জোনের মিডিয়া কর্মকর্তা কে এম শফিউল কিঞ্জল জানিয়েছেন, নিখোঁজদের উদ্ধারে কোস্ট গার্ডেও ৬টিম ও সমুদ্রগামী তাদের দুটি জাহাজও উদ্ধার অভিযান শুরু করেছেতবে বৈরী আবহাওয়ার কারণে উদ্ধার অভিযান ব্যাহত হচ্ছে

অন্যদিকে, দৌলতখানের একটি মাছ ধরার ট্রলারডুবির ঘটনায় ট্রলারে থাকা সাত জেলেকে জীবিত উদ্ধার করা হলেও নিখোঁজ রয়েছেন এক জেলেনিখোঁজ জেলে মিজান (২৭) দৌলতখান উপজেলার সৈয়দপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের আবদুল মালেকে মালের ছেলেতিনদিনেও তার সন্ধান মেলেনিবুধবার সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য মোসলেউদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেনএদিকে, মেঘনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে ইলিশা ফেরিঘাট তলিয়ে গেছেএতে দুদিন ধরে ভোলা-লক্ষ্মীপুর নৌরুটে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে

পটুয়াখালী

৩৩ মাঝি নিয়ে রাঙ্গাবালীর তিনটি জেলে ট্রলার ডুবে যাওয়ার ঘটনায় এর মধ্যে ৩১ জেলেকে জীবিত উদ্ধার করা হলেও বুধবার সকাল পর্যন্ত বাকি দুই জেলে নিখোঁজ রয়েছেনউদ্ধার হওয়া জেলেরা জানিয়েছেন, নিখোঁজ দুই জেলের মধ্যে রাঙ্গাবালীর মৌডুবী ইউনিয়নের মাঝিকান্দা গ্রামের মনতাজ মুন্সির ছেলে সিরাজুল ইসলাম (৬০) ও গলাচিপা উপজেলার গজালিয়া গ্রামের আফসার মোল্লার ছেলে সিদ্দিক মোল্লা (৫০) রয়েছেন

কোস্ট গার্ড ও স্থানীয় জেলেরা নিখোঁজ জেলেদের উদ্ধারে চেষ্টা করছেনএদিকে, পূর্ণিমার প্রভাবে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের কারণে কলাপাড়ায় পায়রা বন্দরসহ গোটা উপকূলজুড়ে বইছে অস্বাভাবিক জোয়ারসেই সঙ্গে মঙ্গলবার রাত থেকে বইছে দমকা-ঝড়োহাওয়ারাতদিন বিরামহীন বৃষ্টিও হচ্ছেবেড়িবাঁধ ভাঙ্গা থাকায় রাবনাবাদ পাড়ের তিন ইউনিয়নের অন্তত ১৭টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে

বরগুনা পাথরঘাটা থেকে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরের ফেয়ারওয়ে বয়া এলাকায় নোয়াখালী হাতিয়া উপজেলার সন্দ্বীপের এফবি নিশান ফিস নামের একটি ট্রলারডুবির ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১০ জেলে নিখোঁজ রয়েছেনবুধবার বিকেল ৪টার দিকে বরগুনা জেলা মস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী এফবি মায়ের দোয়া ট্রলারের মাঝি আবুল কালামের বরাত দিয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন

তিনি আরও জানান, কয়েক দিন আগে রসদসামগ্রী নিয়ে এফবি নিশান ফিস ট্রলারটি গভীর সমুদ্রে মাছ শিকারের জন্য যায়নিম্নচাপের কারণে সাগর উত্তাল থাকায় বুধবার সকাল ৮টার দিকে ট্রলারটি ডুবে যায়

বাগেরহাট বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘু চাপের প্রভাবে বাগেরহাটসহ উপকূলে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া বিরাজ করছেএখানে গত দুদিন ধরে ঝড়োহাওয়ার সঙ্গে হালকা ও মাঝারি বৃষ্টিপাত হচ্ছেসকল নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছেসুন্দরবনসংলগ্ন বঙ্গোপসাগর উত্তাল হয়ে ওঠায় সাগরে টিকতে না পেরে অধিকাংশ ফিশিং ট্রলার সুন্দরবনের দুবলার চর, মেহের আলীর চর, ভেদাখালীর অফিস খাল, কচিখালী, রাজেশ্বর, পূর্ব খোন্তাকাটা, রাজৈর, কুমারখালী, শরণখোলা, রায়েন্দা, রামপাল, মোংলা ও বাগেরহাটের বিভিন্ন খালে আশ্রয় নিয়েছেগভীর সাগর থেকে ফেরার সময় কুয়াকাটাসংলগ্ন বন বিভাগ, স্যজীবী সংগঠন ও জেলেদের একাধিক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে

বরিশাল জোয়ারের পানিতে কীর্তনখোলা, সুগন্ধা, সন্ধ্যাসহ দক্ষিণাঞ্চলের নদী তীরবর্তী এলাকাসহ নিম্নাঞ্চল তলিয়ে গেছেএকই সঙ্গে বেশির ভাগ নদীও উত্তাল রয়েছেকীর্তনখোলা নদীর জেলে ট্রলারের মাঝি মোঃ সালাউদ্দিন জানান, অতিজোয়ারের পানিতে তলিয়ে গেছে কীর্তনখোলা তীরবর্তী চরবাড়িয়া, লামচড়ি, শায়েস্তাবাদের নিম্নাঞ্চলগুলোসেই  সঙ্গে বরিশাল শহরের মধ্য দিয়ে বয়ে চলা খালগুলোর পানি নিচু এলাকার রাস্তাঘাট তলিয়ে দিয়েছে