ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

১৫ কোটি কিলোমিটার ট্রিপ দিয়েছে উবার 

প্রকাশিত: ১৯:১০, ২৭ ডিসেম্বর ২০২২

১৫ কোটি কিলোমিটার ট্রিপ দিয়েছে উবার 

উবার

২০২২ সালে ১৫ কোটি কিলোমিটার ট্রিপ সম্পন্ন করেছে উবার। মঙ্গলবার এক বার্ষিক প্রতিবেদন এ তথ্য প্রকাশ করেছে উবার। রাইডশেয়ারিং খাতে শীর্ষস্থানীয় সেফটি স্ট্যান্ডার্ড স্থাপন করা, বাংলাদেশের আটটি বিভাগের প্রতিটিতে সার্ভিস চালু করা এবং বাংলাদেশের মহামারি সংকট মোকাবেলায় উবারের সহায়তা - এসব বিষয়গুলো এই প্রতিবেদনে গুরুত্ব পেয়েছে।

প্রতিটি রাইডকে নিরাপদ করে তুলতে উবার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ, তাই অর্থপূর্ণ উপায়ে উবার অ্যাপ ব্যবহার করার মাধ্যমে সমাজকে সাহায্য করছে কোম্পানিটি। এছাড়া, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সড়ক নিরাপত্তা বৃদ্ধিতে সাহায্য করা ও চালকদের অর্থ উপার্জনের সুযোগ সৃষ্টি করা নিয়েও কাজ করছে এই প্রতিষ্ঠানটি। অন্তর্দৃষ্টি ও তথ্যের ভিত্তিতে প্রস্তুতকৃত এই প্রতিবেদনে এসব বিষয় গুরুত্বের সাথে তুলে ধরা হয়েছে। 

এতে বলা হয়েছে, ২০২২ সালে বাংলাদেশে ১৫ কোটি কিলোমিটার ট্রিপ সম্পন্ন করেছে উবার, যা পৃথিবী থেকে সূর্যের দূরত্বের সমান। শব্দ এই সমান দূরত্ব অতিক্রম করতে সময় নেয় ১৩ বছর ১০ মাস যেখানে উবারের প্রয়োজন হয়েছে মাত্র ১ বছর। এ বছরে উবারের সার্ভিস বিস্তৃত হয়ে বাংলাদেশের ৮টি বিভাগের ২০টি শহরে পৌঁছে গেছে। বিগত বছরগুলোতে নিরাপদ, ঝামেলামুক্ত ও সাশ্রয়ী যাতায়াতের সুবিধা প্রদান করে যাত্রীদের পছন্দের একটি মাল্টিমোডাল রাইডশেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম হিসেবে সফলভাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছে উবার। ২০২২ সালে দেশের ব্যস্ততম শহর ছিল ঢাকা। উবারের সুবিধাজনক ও নিরাপদ যাতায়াত সুবিধার কারণে এ শহরে এবার সর্বোচ্চ সংখ্যক লেট-নাইট ট্রিপ (রাত ১০টা-সকাল ৬টা) এবং অফিস আওয়ার ট্রিপ (সকাল ৭টা-১১টা এবং বিকাল ৪টা-রাত ৮টা) হয়েছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, বাংলাদেশের যাত্রীরা দুপুর ২টা ও সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ট্রিপ বুক করেছেন। এক দিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক ট্রিপ বুক করা হয়েছে ৯ সেপ্টেম্বর। দিনটি ছিল শুক্রবার। এ থেকে বোঝা যায় যে, বাংলাদেশিরা নামাজ আদায় ও প্রিয়জনদের সাথে দেখা করার জন্য এ দিনটি বেছে নিয়েছিলেন। একইভাবে, ২০২২ সালে ট্রিপ বুক করার জন্য সপ্তাহের সবচেয়ে জনপ্রিয় দিনটি ছিল শুক্রবার। ট্রিপ বুকের ক্ষেত্রে এ বছরের সবচেয়ে জনপ্রিয় মাস ছিল অক্টোবর। এই মাসে গ্রাহকরা দুর্গা পূজা ও ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী একসাথে উদযাপন করেন।

বাংলাদেশ পুলিশের সাথে যৌথ উদ্যোগে চালকদের জন্য একটি প্রশিক্ষণ আয়োজন করেছে উবার। এই প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্য হলো চালকদের মধ্যে ট্র্যাফিক আইন বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি করা। প্রশিক্ষণের প্রথম ধাপ পরিচালনা করেছেন বাংলাদেশ পুলিশের দু’জন এবং উবারের একজন প্রতিনিধি। এখানে সড়ক নিরাপত্তা, ট্র্যাফিক আইনকানুন, অফলাইন ট্রিপ, ট্রিপ ক্যান্সেলেশন ও নগদ টাকা ছাড়া ট্রিপ নিতে রাজি না হওয়া ইত্যাদি বিষয়ে চালকদের সচেতন করে তোলা হয়।  

বিগত বছরগুলো জুড়ে, যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য উবার অ্যাপে জাতীয় ইমার্জেন্সি নম্বর ৯৯৯, ট্রিপ ও লোকেশন শেয়ার করার জন্য একটি বিশেষ ফিচার এবং একটি সার্বক্ষণিক সেফটি হটলাইন চালু করা হয়েছে।   

 

রহিম শেখ

×