ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৯ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

নজর কাড়ছে নিগার সালমারা

নাজনীন বেগম

প্রকাশিত: ০১:৩৮, ৭ অক্টোবর ২০২২

নজর কাড়ছে নিগার সালমারা

নারী ফুটবলারদের অনবদ্য সফলতায় লাল সুবজের পতাকা

নারী ফুটবলারদের অনবদ্য সফলতায় লাল সুবজের পতাকা হিমালয়ের চূড়ায় ওঠাই শুধু নয় সারাদেশকে মাতিয়ে দেয়ার অভাবনীয় কর্মপ্রেরণা তো বটেই। আর অধিনায়কের ভূমিকায় সাবিনা খাতুন তার সতীর্থদের নিয়ে বিদেশের মাটিতে যে অপরাজেয় টুর্নামেন্টটি খেলে এলেন সে আনন্দে দেশ এখনো আত্মহারা। অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করে সর্বোচ্চ গোলদাতাও সাবিনা। যা এক অসম সাহসই শুধু নয় অনন্য পারদর্শিতায় সেরা খেলাটা উপহার দেওয়াও বিরাট প্রাপ্তি।

এবার আমাদের নারী ক্রিকেটারও বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে অসাধারণ খেলা উপহার দিয়ে দেশকে বিজয় গাথায় অভিযোজিত করলেন। অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি। দেশের নারীদের খেলার জগতে এক জননন্দিত নাম। নামেই যিনি সারাদেশের নারী শক্তির প্রতিনিধি। কিছুদিন আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সফল ইয়ুথ ক্যাডারে ১১ জন বিশিষ্ট উদীয়মান প্রজন্মকে পুরস্কৃত করেছেন। তাঁদের মধ্যে স্বর্ণাক্ষরে নিজের নামটা লিখিয়ে নিলেন নারী ক্রিকেট দলের অধিনায়ক নিগার সুলতানা।

প্রধানমন্ত্রীর পুরস্কার দেওয়ার সময় তিনি তখন বিদেশের মাটিতে সতীর্থদের নিয়ে সেরা খেলা উপহার দিতে মহাব্যস্ত। সুতরাং পুরস্কারটি নিজ হাতে নিতেও পারেননি। নিগারের পক্ষে পিতাই অনন্য সফলতার ক্রেস্টটি গ্রহণ করেছেন। সেই নিগারও দেশে ফিরলেন অপরাজেয় নারী ক্রিকেটার হিসেবে। ফিরে এসে জানালেন খেলা একটি দলীয় স্পিরিট। সুতরাং সবাই ভাল খেললেই জেতাটা হাতের মুঠোই এসে যায়।
তবে নিগার সুলতানা নিজের ব্যাটে রানের ঝুড়িটাও পূর্ণ করেছেন। বিজয়ের কঠিন সিঁড়িটি পাড়ি দিয়ে এবার খেলছেন এশিয়া কাপে। এখানেও জয়ের অপার সম্ভাবনায় নিগার প্রত্যাশার মালা গাঁথছেন। দলের দুঃসাহিক মনোবল এবং অনবদ্য পারদর্শিতার বিকল্প অন্য কিছু নয়। নিজেকে যেমন সেরা খেলাটা উপহার দিতে হবে একই সঙ্গে সতীর্থদেরও সমানভাবে এগিয়ে যেতে হবে। নিখুঁত খেলা এবং উপস্থিত পরিবেশ-পরিস্থিতিই সব কিছু নির্ধারণ করে।

সেদিকেই সবার তীক্ষè দৃষ্টি এবং অনমনীয় শক্তি আর মনোবল জিইয়ে রাখতে হবে। যে কোন খেলায় যেদিন খেলা হয় সেটা শুধু সেদিনেরই। আগ-পিছের কোন কিছু মাথায় থাকেও না আর উচিতও নয়। নিগার দৃঢ়তার সঙ্গে আশা করছেন দেশের অগণিত ভক্ত-অনুরাগীর আকাক্সক্ষা কোনভাবেই চাপ তৈরি করবে না। বরং দ্বিগুণ উৎসাহ উদ্দীপনায় সেরা খেলাটা দিয়ে যেতে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবেন।

সিলেটের আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে শুরু হয়েছে এশিয়া কাপের সাত দলের টুর্নামেন্ট। আর সূচনা ম্যাচেই নিগারদের ৯ উইকেটে প্রতিপক্ষকে ধরাশায়ী। এশিয়া কাপের ৭ দলের টুর্নামেন্টে থাইল্যান্ডের বিরুদ্ধে জয়ের মুকুট পরা বাংলাদেশ নারী ক্রিকেটারদের অবিস্মরণীয় পারদর্শিতা। নিজেদের অফুরান প্রাণ শক্তিতে উজ্জীবিত নিগার ও তার সতীর্থরা যে উদ্দীপ্ত মনোবলে বিপরীত পক্ষকে উড়িয়ে দিলেন তা যেন নব উদ্যমে নারীর শক্তিমত্তার অনন্য স্ফুরণ। থাইল্যান্ডের বিরুদ্ধে এমন জয়টা প্রত্যাশিত ছিল বলে দৃঢ়তার সঙ্গে অভিমত ব্যক্ত করেন নারী ক্রিকেট দলের অধিনায়ক নিগার সুলতানা।

গত নয় মাসের এই বছরে দুর্দান্ত ৯টি জয়ের মালা গাঁথা নিগার সুলতানাদের মহিমান্বিত কৃতিত্বের চমৎকার নিদর্শন। টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী খেলায় এমন জয়মাল্য দেশের জন্য নারী খেলোয়াড়দের বরণ ডালা সাজানোর অভাবনীয় উপহার তো বটেই। পরের খেলাগুলোতেও দুর্দান্ত পারদর্শিতায় আমাদের নারী ক্রিকেটরা আরও কত চমক দেবেন সেটাই দেখার প্রত্যাশায়। অভিনন্দন এবং শুভেচ্ছা লড়াকু নিগার ও তার অকৃত্রিম সতীর্থদের।

monarchmart
monarchmart