ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০

বাসা ভাড়া বাঁচাতে উড়োজাহাজে চড়ে ক্লাসে যান শিক্ষার্থী

প্রকাশিত: ১৪:১১, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

বাসা ভাড়া বাঁচাতে উড়োজাহাজে চড়ে ক্লাসে যান শিক্ষার্থী

টিম চেন নামের ওই শিক্ষার্থী ক্যালগেরির বাসিন্দা।

অনেকেই ভালো স্কুল-কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে বাড়ি ছাড়েন। তাঁদের বাসা ভাড়া নিয়ে বা হোস্টেলে থেকে পড়াশোনা করতে হয়। আবার অনেকে দূরত্ব বেশি না হলে গণপরিবহনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যাতায়াত করেন। তাই বলে কেউ উড়োজাহাজে করে বিশ্ববিদ্যালয়ে আসা–যাওয়া করেন, এমন ঘটনা বিরল। 

এমনই কাণ্ড ঘটিয়ে খবরের শিরোনাম হয়েছেন ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার (ইউবিসি) এক শিক্ষার্থী। তিনি বাসা ভাড়া বাঁচাতে সপ্তাহে দুই দিন উড়োজাহাজে চেপে ক্লাস করতে বিশ্ববিদ্যালয়ে যান।

আরও পড়ুন : সুখবর এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের

টিম চেন নামের ওই শিক্ষার্থী ক্যালগেরির বাসিন্দা। ভ্যানকুভারে এক কক্ষের বাসা ভাড়া নিয়ে থাকার চেয়ে উড়োজাহাজে করে আসা–যাওয়ায় তাঁর খরচ কম হয়। তিনি প্রতি সপ্তাহে মাত্র দুটি ক্লাস করেন।

প্রতিবার ওই শিক্ষার্থীর আসা–যাওয়ার ভাড়া পড়ে ১৫০ মার্কিন ডলার। মাসে ১ হাজার ২০০ ডলারের (১ লাখ ৪২ হাজার টাকা প্রায়) মতো। কিন্তু ভ্যানকুভারে এক কক্ষবিশিষ্ট অ্যাপার্টমেন্টের মাসিক ভাড়া ২ হাজার ১০০ ডলার (প্রায় ২ লাখ ৩০ হাজার টাকা)।

রেডিটে চেন নিজের অভিজ্ঞতা লিখে শেয়ার করেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘আমি অনেক দূর থেকে ইউবিসির নিয়মিত যাত্রী এবং আমি ক্যালগেরিতে থাকি। মঙ্গল ও বৃহস্পতিবার আমার ক্লাস থাকে, তাই বিশ্ববিদ্যালয়ে যেতে হয়। আমি সকালে ভ্যানকুভারে উড়ে যাই এবং রাতে ক্যালগেরিতে ফিরে আসি। আমি এয়ার কানাডায় ফ্লাইটে যাতায়াত করি।’

চেন লিখেছেন, ‘জানুয়ারিতে আমি এ রকম সাতবার আসা–যাওয়া করেছি। দেখলাম, এতে আমার ডলার অনেক বেঁচে যায়, কারণ আমাকে ক্যালগেরিতে ভাড়া দিতে হবে না (আমার মা–বাবার সঙ্গে বাড়িতে থাকার কারণে)। ভ্যানকুভারে এক শয্যাবিশিষ্ট কক্ষের দুই হাজার ডলার ভাড়ার চেয়ে এটি সস্তা।’

রেডিট ব্যবহারকারী অনেকেই চেনের এই সিদ্ধান্তের প্রশংসা করেছেন। আবার অনেকে বলেছেন, এমন বিমান ভ্রমণের জন্য অস্থির সময় কাটাতে হয়, সঙ্গে অনেক সময়ও লেগে যায়।

একজন লিখেছেন, ‘এক ঘণ্টার যাত্রা খারাপ নয়। কিন্তু নিয়মিত বিমানবন্দরে যাতায়াতের ফলে জীবনীশক্তি ক্ষয়ে যায়। আবার আপনার ফ্লাইট স্বস্তিকর নয়। আমি নিশ্চিত, ফ্লাইট মিস করার চিন্তাও আপনার বড় মাথাব্যথা।’

আরেকজন লিখেছেন, ‘আধুনিক সমস্যার আধুনিক সমাধান।’

গত বৃহস্পতিবার ইউবিসির স্টুডেন্ট হাউজিং ও কমিউনিটি সার্ভিসেসের সহযোগী ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড্রু পার বলেন, তিনি শিক্ষার্থীদের আবাসন সংকটের বিষয়টি অনুভব করেন। তিনি ডেইলি হাইভকে বলেন, ‘আমরা স্বীকার করছি যে ভ্যানকুভার এবং কেলৌনায় সাশ্রয়ী মূল্যে বাসা ভাড়া পাওয়া কিছু কিছু ছাত্রের জন্য বেশ চ্যালেঞ্জের।’

এনডিটিভি

তাসমিম

সম্পর্কিত বিষয়:

×