ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯

কীটনাশকও হতে পারে অটিজমের কারণ!

প্রকাশিত: ১২:২৮, ১৩ মার্চ ২০২০

কীটনাশকও হতে পারে অটিজমের কারণ!

সম্প্রতি এক গবেষণায় কীটনাশক ও অটিজমের মধ্যে যোগসূত্র পাওয়া গেছে। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এক জার্নালে বলা হয়, যে এলাকায় জমিতে কীটনাশক ব্যবহৃত হয়, সে এলাকার গর্ভবতী নারীদের গর্ভস্থ শিশুটির অটিস্টিক হওয়ার ঝুঁকি থাকে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যে থেকে প্রকাশিত এনভায়রনমেন্টাল হেল্থ পার্সপেক্টিভ জার্নালে সোমবার বলা হয় ‘পরীক্ষায় দেখা গেছে যে, যেসব এলাকায় খামার রয়েছে এবং বাণিজ্যিকভাবে ফসল উৎপাদনের জন্য যেখানে কীটনাশক ব্যবহার হয়, সেসব এলাকার আশপাশে যদি কোন গর্ভবতী নারী থাকেন, তবে তার গর্ভস্থ সন্তানের অটিজম হওয়ার ঝুঁকি দুই-তৃতীয়াংশ।’ এ কথা বলা হলেও জার্নালে এর কার্যকারণ ব্যাখ্যা করা হয়নি। অটিজম শব্দটি এসেছে গ্রিক শব্দ ‘আউটোস’ থেকে, যার অর্থ আত্ম বা নিজ। আসলে বিশেষ ধরনের স্নায়ুবিক (ডিসঅর্ডার অফ নিউরাল ডেভেলপমেন্ট) সমস্যাই হলোÑ অটিজম। সাধারণত, অটিস্টরা নিজস্ব একটা মনোজগতে বসবাস করেন। চারপাশ থেকে আলাদা একটা জগত। তাই তাদের আচরণও স্বাভাবিক হয় না। এ অসুখটির কয়েকটি ধরন রয়েছে। এর মধ্যে ক্লাসিক অটিস্টিক ডিসঅর্ডার বা ক্যানার সিনড্রোমটাই বেশি লক্ষ্য করা যায়। এছাড়া অটিজমের আর একটি ধরন এ্যাসপারজার্স সিনড্রোম। ১৯১১ সালে সুইস মনোবিজ্ঞানী অয়গেন ব্রয়লার প্রথম অটিজমকে এক ধরনের মনোরোগ হিসেবে চিহ্নিত করেন। কয়েক দশক পরে রোগটি নিয়ে গবেষণা বিস্তৃত হয় পশ্চিমের বহু দেশে। ব্যাপক হারে বেড়েছে রোগটি। স্বাস্থ্য গবেষকরা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে ৬৮ জনের মধ্যে একজন অটিস্টিক। সাম্প্রতিক এ গবেষণাটি করা হয়েছে ক্যালিফোর্নিয়ার একটি বাণিজ্যিক খামার এলাকায়। এক হাজার পরিবারের ওপর গবেষণাটি করা হয়। ক্যালিফোর্নিয়ার জনস্বাস্থ্য বিজ্ঞান বিভাগের উপ-প্রধান ইরভা হার্টজ-পিচতো বলেন, ‘অংশগ্রহণকারীদের গর্ভধারণ থেকে শুরু করে সন্তান জন্ম দেয়ার সময় পর্যন্ত পর্যবেক্ষণ করা হয়। সেই সঙ্গে কী ধরনের কীটনাশক, কোথায়-কখন-কী পরিমাণ ব্যবহার হয়েছে সেটাও দেখা হয়েছে। অটিজমের সুস্পষ্ট কারণ এখনও পর্যন্ত না জানা গেলেও জিনগত ত্রুটির কারণে অটিজম হয়Ñ এমনটাই ভাবা হচ্ছিল এতদিন তবে এবার, কীটনাশক ও অটিজমের মধ্যে যে যোগসূত্র পাওয়া গেল তা হয়ত অটিজম নিয়ে গবেষণাকে একটি অন্য মাত্র দেবে। গবেষণায় অংশগ্রহণকারী এক-তৃতীয়াংশ নারী খামারের ১.২৫ থেকে ১.৭৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছিলেন। গবেষকরা বলছেন, গর্ভাবস্থায় শিশুর যখন মস্তিষ্ক গঠন হয় কীটনাশকের প্রভাব তখনই হয় সবচেয়ে বেশি। সূত্র : ডয়েচ ভেলে