ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

শ্রুতির উদ্যোগে নববর্ষ উদ্যাপন

সংস্কৃতি প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২১:৩৪, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

শ্রুতির উদ্যোগে নববর্ষ উদ্যাপন

পহেলা বৈশাখ বাঙালির সার্বজনীন উৎসব

পহেলা বৈশাখ বাঙালির সার্বজনীন উৎসব। সর্বস্তরের মানুষ হৃদয়ের টানে, বাঙালিয়ানার টানে মিলিত হয় এ উৎসবে। এদিন আনন্দঘন পরিবেশে বরণ করে নেওয়া হয় নতুন বছরকে। ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক সংগঠন শ্রুতি প্রতিবারের মতো বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নেয়। তপ্ত রোদের মধ্যেও রবিবার ব্লু বার্ড স্কুল অ্যান্ড কলেজ প্রাঙ্গণে সূর্যোদয়ের পর পরই শুরু হয় নতুন বছরকে আহ্বান। ‘নিশিদিন ভরসা রাখিস ওরে মন হবেই হবে’ উদাত্ত আহ্বান ধ্বনিত হয়।

শতাধিক শিশু, কিশোর শিল্পী শতকণ্ঠে বাংলা নববর্ষকে স্বাগত জানায় গানে গানে। দিনব্যাপী আয়োজনে সমবেত সংগীত, নৃত্য,আবৃত্তি পরিবেশন করে অনুষ্ঠান আয়োজক শ্রুতি সিলেট, জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদ সিলেট, গীতবিতান বাংলাদেশ, দ্বৈতস্বর, নৃত্যশৈলী, ললিত মঞ্জরী, নৃত্যসুধা, সুরসপ্তক, সুরের ভুবন, নৃত্যাঞ্জলি, ছন্দনৃত্যালয়, সংগীত নিকেতন, মুক্তাক্ষর, নগরনাট, নৃত্যরথ, সংগীত মুকুল, দীপশিখা, অনির্বাণ শিল্পী সংগঠন, নাট্যম একক পরিবেশনায় অংশগ্রহণ করেন ঢাকা হতে আগত অতিথি শিল্পী অরুন্ধতী অনুপ্রভা, বাউল সূর্যলাল দাশ, শামীম আহমেদ, গৌতম চক্রবর্তী, প্রদীপ মল্লিক, বিপ্রেস দাশ, খোকন ফকির, ইকবাল শাই, লিংকন দাশ, পল্লবী দাশ মৌ, আশরাফুল ইসলাম অনি প্রমুখ।

সিলেট আর্টস কলেজের সহযোগিতায় দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হয় রং তুলিতে বর্ষবরণ। এতে চিত্রশিল্পীরা নতুন বছরকে বরণ করে নেন তাদের অংকন ভাবনায়। দিনব্যাপী আয়োজনে জাতিধর্মবর্ণ নির্বিশেষে সবাই নতুন বছরকে বরণ করে নেয়। বৈশাখের তীব্র তাপ্রবাহের মধ্যেও সবার স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ দেখতে পাওয়া যায়। জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে দিনব্যাপী শ্রুতি বর্ষবরণ উৎসবের বিংশতম আয়োজন সমাপ্ত হয়।

×