ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

গৃহকর্মীকে পিটিয়ে আলোচনায় গায়ক ফাতেহ আলী খান

প্রকাশিত: ১৬:৫০, ২৮ জানুয়ারি ২০২৪

গৃহকর্মীকে পিটিয়ে আলোচনায় গায়ক ফাতেহ আলী খান

পাকিস্তানের জনপ্রিয় গায়ক রাহাত ফাতেহ আলী খান

 https://twitter.com/ghulamabbasshah/status/1751266851450179696
প্রচ্ছদ :    ক্যাটাগরি : বিনোদন

এস

হেড :  গৃহকর্মীকে পিটিয়ে আলোচনায় গায়ক ফাতেহ আলী খান

ক্যাপ :  পাকিস্তানের জনপ্রিয় গায়ক রাহাত ফাতেহ আলী খান

অনলাইন ডেস্ক

 গৃহকর্মীকে বেধড়ক পিটিয়েছেন পাকিস্তানের জনপ্রিয় গায়ক রাহাত ফাতেহ আলী খান। তাও আবার একটা বোতলের জন্য। সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে সেই ভিডিও। কিন্তু কেন এটা করলেন তিনি?

গুলাম আব্বাস শাহ নামে এক গণমাধ্যমকর্মী রাহাত ফাতেহ আলী খানের নৃশংসতার ভিডিওটি এক্স হ্য়ান্ডেলে পোস্ট করেছেন। তাতে দেখা যায়, গৃহকর্মীকে মারতে মারতে রাহাত বলছেন, ‘আমার বোতল কোথায়?’ আর এরপরই ক্রমাগত ওই ব্যক্তিকে মারতে শুরু করেন। 

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে সেখানে আরও অনেকে উপস্থিত রয়েছেন। তবে কেউই গায়ককে আটকাতে পারেননি। এদিকে যিনি মার খাচ্ছিলেন, ওই কর্মীকে বারবার গায়কের কাছে ক্ষমা চাইতে দেখা যায়। ওই গৃহকর্মী বারবার বলতে শোনা যায়, ‘আমার কাছে কোনও বোতল নেই স্যার’। 

তবে জনপ্রিয় গায়ক কোনোভাবেই তা মানতে চাননি। ক্রমাগত মেরেই চলেন তাকে। আর ‘আমার ওই বোতল কোথায়? বোতল কোথায়?’ বলে চিৎকার করতে থাকেন।

এদিকে জনপ্রিয় এমন গায়কের ভিডিও দেখে নেট দুনিয়ায় ‌‘ছিঃ ছিঃ’ করছেন নেটনাগরিকদের অনেকেই। বহু নেটিজেন গায়কের এমন ব্যবহারে হতবাক, তীব্র নিন্দা করেছেন।

আর এই ভিডিও ভাইরাল হতেই ফের সাফাই দিয়ে একটি ভিডিও পোস্ট করেন পাক গায়ক রাহাত ফাতেহ আলী খান। সেখানে যে গৃহকর্মীকে তিনি মারধর করেছিলেন, তাকে নিয়েই হাজির হয়েছিলেন গায়ক। রাহাত দাবি করেন, এটা তাদের ব্যক্তিগত বিষয়। তিনি যেমন কর্মীদের ভালোবাসেন, তেমনই তারা দোষ করলে শাসনও করেন। 

অন্যদিকে মার খাওয়া সেই গৃহকর্মী বলেন, ওই বোতলে আসলে কিছু পবিত্র পানি ছিল, আর সেটা আমি কোথায় রেখেছিলাম ভুলে গিয়েছিলাম। তাই উনি মেরেছেন। এ ধরনের ভিডিও ছড়িয়ে লোকজন ঠিক করেনি। এরপর গায়ক ফের বলেন, ঘটনার পরই আমি ওর কাছে ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছি।

তবে পাক গায়ক যতই সাফাই গাক না কেন, সেই ভিডিওর নিচে নেটনাগরিকদের মন্তব্যতেই স্পষ্ট এই সাফাইয়ে চিঁড়ে ভেজেনি। অনেকেই প্রশ্ন তুলে লিখেছেন, ‘এটা ভালোবাসার নমুনা!’ কেউ আবার লিখেছেন, ‘এটা কী ধরনের শাস্তি ভাই! ছিঃ ছিঃ’। এমনই নানান মন্তব্য উঠে এসেছে।

 

এস

সম্পর্কিত বিষয়:

×