ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০

মুখ খুললেন সংগীতশিল্পী ও ইউটিউবার জেফার

প্রকাশিত: ১৬:২২, ১৪ নভেম্বর ২০২৩

মুখ খুললেন সংগীতশিল্পী ও ইউটিউবার জেফার

সংগীতশিল্পী ও ইউটিউবার জেফার 

চিকিৎসক সানিয়া এশার সঙ্গে দাম্পত্য জীবনের ইতি টেনেছেন জনপ্রিয় অনলাইন উপস্থাপক রাফসান সাবাব। খবরটি ফেসবুকে জানিয়েছেন তিনি নিজেই। ২০২০ সালের অক্টোবরে চিকিৎসক সানিয়া এশাকে বিয়ে করেন রাফসান সাবাব। তিন বছর সংসারের পর চলতি মাসে এসে সেই সম্পর্কের ইতি হলো।

রাফসান তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লেখেন, ‘ভারাক্রান্ত হৃদয়ে আমাকে বলতে হচ্ছে যে, এশার সঙ্গে আমার সম্পর্কের ইতি। বিবাহ বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেওয়াটা খুব সহজ ছিল না কিন্তু অনেক চিন্তাভাবনার পরে দুজনের আলাদা হয়ে যাওয়াটাই আমার কাছে সেরা উপায় বলে মনে হয়েছে। আমাদের একসঙ্গে তিন বছরের পথ চলা এবং আমি চাই শেষটা সম্মানজনকভাবেই হোক। আপনারা যদি এই বিষয়ে আমাদের গোপনীয়তাকে সম্মান করেন এবং আপনাদের শুভকামনায় রাখেন তাহলে কৃতজ্ঞ থাকব।’

ফেসবুকে দেওয়া এই পোস্টে বিচ্ছেদের কারণ উল্লেখ না করলেও এই বিচ্ছেদের মাঝে অনেকেই ভিন্ন কিছু খুঁজে পাচ্ছেন বলে জানিয়েছে নেটিজেনরা। বিবাহবিচ্ছেদ ঘোষণার পর রীতিমতো তোপের মুখে পড়েছেন রাফসান। নেটমাধ্যমে তাকে নিয়ে চলছে তুমুল নেতিবাচক চর্চা।

এদিকে অনলাইনে ভেসে বেড়াচ্ছে, গায়িকা জেফার রহমানের সঙ্গে বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক হয়েছে রাফসানের। এর জেরেই নাকি স্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্কের ইতি টেনেছেন তিনি।
যদিও কয়েক দিন আগে গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জেফার জানিয়েছিলেন, তিনি কারও সঙ্গে প্রেম করছেন না। কারণ এখনও মনের মতো মানুষ পাননি। সেই ভিডিও ক্লিপটি এখন নেটদুনিয়ায় ভাইরাল হয়ে গেছে। এই গুঞ্জন নিয়ে এখনও কোনো প্রতিক্রিয়া জানাননি রাফসান। 

তিনি জানান, সোশ্যাল মিডিয়ার এসব আলোচনা নিয়ে একদমই ভাবছেন না। এসবে বিব্রতও নন তিনি।

জেফার বলেন, ‘আমাদের বন্ধুত্বের সম্পর্ক। কে কী বলছে সে বিষয় নিয়ে আমি বিব্রত নই। আমার মনে হয় যেকোনো কিছু নিয়ে কমেন্টস করার আগে অবশ্যই আমাদের সত্যিটা জানা উচিত। না জেনে কথা বলা বা সংবাদ প্রকাশ করা কখনোই ঠিক নয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘দিন দিন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া যেন এথিকস হারাচ্ছে। যার যা ইচ্ছে বলছে। অন্যের ওপর নিজের মত চাপিয়ে দিচ্ছে। একটা বন্ধুত্বপূর্ণ সামাজিক সম্পর্ককে নেতিবাচক করে দিচ্ছে মুহূর্তের মধ্যে। দুজন মানুষ একসঙ্গে চললে, কথা বললেই প্রেম হয়ে যায় না। এটুকুও যেন বোঝার সময় বা ভাবনা কারোর নেই।’

তরুণ প্রজন্মের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী ও ইউটিউবার জেফার। তিনিই বাংলাদেশের প্রথম ইউটিউবভিত্তিক মিউজিশিয়ান। ২০১০ সাল থেকে বিখ্যাত সব ইংরেজি গান কাভার করে শোরগোল ফেলে দেওয়া জেফার ধীরে ধীরে পৌঁছে যান জনপ্রিয়তার শিখরে। সম্প্রতি তিনি অভিনয়ে নাম লিখিয়েছেন। মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর পরিচালনায় চঞ্চল চৌধুরীর বিপরীতে ‘মনোগামি’ সিনেমায় দেখা যাবে তাকে।

 

এস

সম্পর্কিত বিষয়:

×