ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯

ঘরে বসেই বিভিন্ন মেয়াদ ও অংকের সেভিংস স্কিম গ্রহণ করতে পারবেন বিকাশ গ্রাহকরা

বিকাশ অ্যাপ দিয়ে ঢাকা ব্যাংক ও এমটিবিতে সঞ্চয়

প্রকাশিত: ১৭:২৫, ৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

বিকাশ অ্যাপ দিয়ে ঢাকা ব্যাংক ও এমটিবিতে সঞ্চয়

বিকাশ অ্যাপ

এবার দেশের যেকোনো স্থান থেকে যেকোনো সময় বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে ঢাকা ব্যাংক ও মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক (এমটিবি) এর ডিজিটাল সেভিংস সেবা গ্রহণ করতে পারবেন গ্রাহকরা। ঘরে বসেই কাগজপত্র বা ফর্ম পূরণের ঝামেলা ছাড়াই মাত্র কয়েক মিনিটে ব্যাংক দু’টির বিভিন্ন মেয়াদ ও অংকের সেভিংস স্কিম গ্রহণ করতে পারবেন বিকাশ গ্রাহকরা। ছোট অংকের মাসিক সঞ্চয়ের এই সেবায় ব্যাংকে গিয়ে নতুন অ্যাকাউন্ট খোলার ঝামেলা না থাকায় আর্থিক অন্তর্ভুক্তির বাইরে থাকা মানুষও সহজেই সঞ্চয়ী হিসাব খুলতে সক্ষম হবেন। 

সার্বিকভাবে মানুষের সঞ্চয় প্রবণতা আরো বাড়াতে এবং ভবিষ্যত আর্থিক নিরাপত্তা নিশ্চিতে সহায়তা করবে এই সেবা।

এর আগে দেশে প্রথমবারের মতো এমএফএস এর মাধ্যমে ডিজিটাল সেভিংস সেবা চালু হয় আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইডিএলসি ফাইন্যান্স ও বিকাশের যৌথ উদ্যোগে। সেই সাফল্যের ধারাবাহিকতায় বিকাশের ডিজিটাল সেভিংস প্ল্যাটফর্মটি এবার আরো সমৃদ্ধ হলো শীর্ষস্থানীয় এই ব্যাংক দু’টি যুক্ত হওয়ায়।

সঞ্চয় সেবা চালু করার জন্য বিকাশ অ্যাপের ‘ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে সঞ্চয়’ বা সেভিংস অপশনে ক্লিক করতে হবে। বর্তমানে মাসিক ৫০০, ১ হাজার, ২ হাজার এবং ৩ হাজার টাকা কিস্তিতে সর্বনিম্ন দুই বছর থেকে সর্বোচ্চ চার বছর মেয়াদে সঞ্চয় স্কিম থেকে নিজের পছন্দমত সঞ্চয় করতে পারছেন গ্রাহক। সঞ্চয়ের মেয়াদ পূরণ হওয়ার পর গ্রাহকরা মুনাফাসহ পুরো টাকা বিকাশ অ্যাকাউন্ট থেকে ক্যাশ আউট করতে পারবেন কোন খরচ ছাড়াই।

বিকাশ অ্যাকাউন্ট থেকে সঞ্চয়ের কিস্তি স্বয়ংক্রিয়ভাবে নির্ধারিত তারিখে ঢাকা ব্যাংক বা এমটিবি-র অ্যাকাউন্টে জমা হয়ে যাবে। আর বিকাশের মাধ্যমে নির্ধারিত তারিখের আগেই প্রয়োজনীয় টাকা বিকাশ অ্যাকাউন্টে রাখার জন্য গ্রাহক বার্তা পেয়ে যাবেন। জমার পরিমাণ, সঞ্চয়ের সময়কাল, মুনাফার পরিমাণ গ্রাহক বিকাশ অ্যাপ থেকেই সরাসরি দেখতে পারবেন যেকোনো সময়।

অ্যাপ ব্যবহার করে বিকাশের যেকোনো গ্রাহক সঞ্চয় সেবাটি নিতে পারেন। উল্লেখ্য, সেভিংস অ্যাকাউন্ট খুলতে গ্রাহকের ডিজিটাল নিবন্ধনের মাধ্যমে তথ্য হালনাগাদ করা থাকতে হবে। বিকাশ অ্যাপ থেকেই তথ্য হালনাগাদের সুযোগ রয়েছে।

ঢাকা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এমরানুল হক বলেন, “ঢাকা ব্যাংক আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকে অর্থবহ করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় বিকাশকে সাথে নিয়ে একটি ক্ষুদ্র সঞ্চয় স্কিম চালু করতে যাচ্ছে। এর ফলে আর্থিক অন্তর্ভুক্তির বাইরে থাকা প্রান্তিক জনগোষ্ঠী ব্যাংকে না এসেও প্রযুক্তির সাহায্যে সম্পূর্ণ ঝামেলাহীন এবং নিরাপদ উপায়ে নিজেদের কষ্টার্জিত উপার্জন থেকে অর্থ জমা করতে পারবেন।”

মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, “অল্প অল্প করে জমানো সঞ্চয়, ভবিষ্যতের প্রয়োজনে কাজে লাগানো যায়। এই দৃষ্টিভঙ্গিকে উৎসাহিত করার প্রয়াসে এমটিবি ও বিকাশ আধুনিকতম ও নিরাপদ প্রযুক্তি ব্যবহার করে সঞ্চয় করাকে আরো সহজ, স্বাচ্ছন্দ্যময় ও নিরাপদ করেছে। আমরা মনে করি, ব্যাংকিং সেবার আওতায় ও আওতার বাইরে থাকা সবাইকেই ডিজিটাল সেভিংস স্কিম গ্রহণের সুযোগ করে দিয়ে এই সেবাটি আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকে আরো কার্যকর ও অর্থবহ করছে যা মানুষের সামাজিক নিরাপত্তায় সহযোগিতা করবে।”

এই সেবা সম্পর্কে বিকাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কামাল কাদীর বলেন, “ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সাথে মিলে বিকাশ গ্রাহকের জন্য সঞ্চয় করাকে সবচেয়ে সহজ করেছে আধুনিকতম প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে। ব্যাংকিং সেবার বাইরে থেকে শুরু করে সীমিত সেবার মধ্যে থাকা সকল গ্রাহককে ডিজিটাল সেভিংস স্কিম গ্রহণের সুযোগ করে দিয়ে এই সেবা ডিজিটাল লেনদেনের ইকোসিস্টেমটিকে আরো শক্তিশালী করবে।”