ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯

বিষমুক্ত নিরাপদ সবজি চাষে সফলতা

প্রকাশিত: ০০:৪৭, ১৩ আগস্ট ২০২২

বিষমুক্ত নিরাপদ  সবজি চাষে  সফলতা

বাগেরহাটে বিষমুক্ত নিরাপদ সবজি চাষে সফল জিহাদ

বাগেরহাটে বিষমুক্ত নিরাপদ সবজি চাষ করে সাড়া জাগিয়েছেন শেখ জিহাদ হোসেন (৫০) নামের এক কৃষককোন প্রকার রাসায়নিক ব্যবহার ছাড়া উপাদিত সবজি কিনতে ভিড় জমাচ্ছেন স্থানীয়রাস্থানীয়দের অর্গানিক পদ্ধতিতে চাষকৃত সবজি দিতে পেরে খুশি বাগেরহাট সদর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়নের চাপাতলা গ্রামের কৃষক শেখ জিহাদ হোসেনতিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আমি সবজি চাষ করিসবজি চাষই আমার আয়ের একমাত্র উকিন্তু সবজি চাষ করতে আমাদের প্রচুর পরিমাণ রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ব্যবহার করতে হতোশুধু আমি নয়, স্থানীয় সবাই একই পদ্ধতিতে সবজি চাষাবাদ করতকিন্তু সব সময় একটি বিষয় চিন্তা করতাম কিভাবে রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ছাড়া সবজি চাষ করা যায়ভাবতে ভাবতে কৃষি বিভাগের কর্মকর্তাসহ কৃষি বিষয়ে অভিজ্ঞ লোকজনদের সঙ্গে কথা বলে জানলাম সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা পদ্বতিতে নিরাপদ সবজি চাষ করা যায়বিষয়টি নিয়ে অনেক চিন্তাভাবনা ও জেনে শুনে গেল বছর কোন রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ব্যবহার ছাড়াই সবজি চাষের পরিকল্পনা করিদেড় বিঘা (৭৮ শতক) জমিতে সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা পদ্বতিতে হাইব্রিড সুপার সুমি জাতের ঢেঁড়স চাষ করিএবার ফলনও ভাল হয়েছেদেড় বিঘা জমিতে ১৫ মেট্রিকটন ঢেঁড়স উপাদনের আশা তারপ্রতিদিন ১২০ থেকে ১৩০ কেজি ঢেঁড়স বিক্রি করছেন তিনি৫৫ হাজার টাকা ব্যয়ের এই জমি থেকে দুই লাখ টাকার ঢেড়স বিক্রির আশা করছেন তিনি

এর বাইরে গতানুগতিক পদ্ধতিতে কিছু জমিতে বেগুন, কাকরোল, ডাটাশাক, লালশাকসহ নানা সবজি উপাদন করেছিআশা করি আগামী বছর সব জমিতে সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা পদ্বতিতে নিরাপদ সবজি চাষ করতে পারবসমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি সম্পর্কে জিহাদ বলেন, এই পদ্ধতিতে পোকা-মাকড় তাড়ানোর জন্য কোন বিষ ব্যবহার করা হয় নাএর জন্য আলোর ফাঁদ, ডালপোতা ফাঁদ, হলুদ পেপার, সাদা পেপার ফাঁদ পাতা হয় সবজি ক্ষেতেএছাড়া নিমপাতা, বেলপাতা ও মেগনির নির্জাস দিয়ে সবজি খেতকে পোকামাকড় মুক্ত করা হয়

জিহাদের ক্ষেতে কাজ করা শ্রমিক সাবেরা খাতুন বলেন, আমাদের ক্ষেতে কখনও কীটনাশক ব্যবহার করি নাএ জন্য একটু যতœ বেশি করতে হয়, এই আরকিতারপরও মানুষ বিষমুক্ত সবজি ক্ষেতে পারছেসবজি ক্রেতা রুহুল আমিন খান বলেন, এ বছর অনেকদিন ধরে জিহাদের ক্ষেত থেকে ঢেঁঢ়স কিনছিএকদিন দুই দিন পর পর এসে ঢেঁড়স কিনে নিয়ে যাই আমিএই ঢেঁড়স বাজারের স্বাভাবিক ঢেঁড়সের থেকে বেশি সুস্বাদু ও নিরাপদশুধু রুহুল আমিন নয়, ওই অঞ্চলের অনেকেই এখন ঢেঁড়স ক্রয় করেন জিহাদের কাছ থেকেকৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর, বাগেরহাটের প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা মোতাহার হোসেন বলেন, আমরা বিভিন্ন সময় বিষমুক্ত সবজি চাষে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করিজিহাদ বিষমুক্ত ঢেঁড়স চাষের আগ্রহ পোষণ করলে, আমরা তাকে সার্বিক সহযোগিতা করেছিতার বিষমুক্ত ঢেঁড়স সরাসরি ভোক্তা পর্যায়ে পৌঁছে দেওয়ার জন্যও আমরা উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের নির্দেশনা নিয়েছিঅন্যান্য এলাকার কৃষকরাও যাতে বিষমুক্ত সবজি চাষে উদ্বুদ্ধ হন এজন্য আমরা কাজ করছি২০০৬ সালে পোশাক কারখানা থেকে চাকরি ছেড়ে বাড়ির পাশে অন্যের জমি লিজ নিয়ে সবজি ও ফল চাষ শুরু করেন শেখ জিহাদ হোসেনসফলতাও পেয়েছেন তিনি২০০৮ সালে শেখ জিহাদ হোসেন সবজি চাষে অবদান রাখায় সফল চাষী হিসেবে জেলা প্রশাসন থেকে পুরস্কার পান তিনি