ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

বাংলাদেশ

সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত

প্রকাশিত: ১৬:২৯, ১৯ মে ২০২২

সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত

নিজস্ব সংবাদদাতা, সুনামগঞ্জ ॥ গত ২৪ ঘন্টায় ভারী বৃষ্টিপাত না হলেও অপরিবর্তিত রয়েছে সুনামগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি। ভারতের মেঘালয়ে মাঝারি ধরনের বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় পাহাড়ি ঢলে জেলার দোয়ারাবাজার, ছাতক, বিশ্বম্ভরপুর ও সদর উপজেলার বন্যা পরিস্থিতির বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় সুনামগঞ্জে ৫৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে এবং সুরমা নদীর পানি ষোলঘর পয়েন্টে ১৯ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এদিকে ছাতক উপজেলার ১৩ ইউনিয়নের কয়েক হাজার মানুষ পানি বন্দি অবস্থায় দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। ছাতকের ৬টি পয়েন্ট দিয়ে পানি ঢুকে উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। গ্রামীন সড়ক, বসত বাড়ি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ শত শত একর ফসলের খেত তলিয়ে গেছে। ঢলের পানিতে বেশ কিছু টিউবওয়েল পানির নীচে থাকায় বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দিয়েছে। এতে বিভিন্ন পানি বাহিত রোগের প্রকোপ দেখা দেয়ার আশঙ্কা করছেন অনেকেই। এই উপজেলাসহ জেলার অনেক মৎস্য খামারি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। জেলা প্রশাসক জাহাঙ্গীর হেসেন জানান দুর্গতদের পাশে থাকতে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনকে সতর্ক অবস্থায় থাকতে বলা হয়েছে। এদিকে জেলার পাঁচ উপজেলার ২১৬ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পানি প্রবেশ করার ফলে সাময়িক বন্ধ রাখা হয়েছে এবং ২৮ টিতে আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। পানি কমার সাথে সাথেই যথারীতি বিদ্যালয় খুলবে জানিয়েছেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুর রহমান। সুনামগঞ্জ জেলা সদরের সাথে তাহিরপুর ও বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার সাব-মার্চেবল সড়কটি তলিয়ে থাকায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে ওই দুই উপজেলার লোকজন। জেলা কৃষিসম্প্রসারণ অধিদফতরের মতে জেলায় ৫শ হেক্টর বোরো ধান (নন হাওর এলাকায়) ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সেই সাথে সদর, বিশ্বম্ভরপুর, তাহিরপুর ও দোয়ারাবাজার উপজেলার ৫০ হেক্টর জমির বাদাম ক্ষেত ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানান জেলা কৃষিসম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ পরিচালক বিমল চন্দ্র সোম।