ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৫ জুলাই ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

জাতীয়

সাগরিকায় আজ সারাদিন ব্যাট করার লক্ষ্য

তামিমের সেঞ্চুরি- বাংলাদেশের দাপট

প্রকাশিত: ২৩:১২, ১৮ মে ২০২২

তামিমের সেঞ্চুরি- বাংলাদেশের দাপট

মোঃ মামুন রশীদ, চট্টগ্রাম থেকে ॥ সাগরিকায় সিরিজের প্রথম টেস্ট ৩ দিন পেরিয়ে গেছে। এখনও ম্যাচের ভাগ্য সফরকারী শ্রীলঙ্কা নাকি স্বাগতিক বাংলাদেশের দিকে ঝুলে আছে তা পরিষ্কার হয়নি। মঙ্গলবার বাংলাদেশ দল মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে আরও ২৪২ রান যোগ করেছে। তবে সবমিলিয়ে ৩ উইকেটে ৩১৮ রান তুলেও ৭৯ রানে পিছিয়ে আছে শ্রীলঙ্কার চেয়ে। কিন্তু হাতে থাকা ৭ উইকেট অনেক বড় স্বপ্ন দেখাচ্ছে বাংলাদেশকে। ব্যাটিং কোচ জেমি সিডন্স জানিয়েছেন আজ ম্যাচের চতুর্থ দিনের পুরোটাই ব্যাটিং করার লক্ষ্য। তার আশা এতে যে লিড আসবে সেটি নিয়ে পঞ্চম দিনে লঙ্কানদের গুটিয়ে চট্টগ্রাম টেস্ট জেতা সম্ভব হবে বাংলাদেশের। স্বাগতিকদের এই স্বপ্ন দেখাচ্ছে ৩ বছর পর সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ১৩৩ রানে অপরাজিত থাকা বাঁহাতি ওপেনার তামিম ইকবাল। যদিও চা বিরতির পর ব্যাটিং করেননি তিনি হাতে টান লাগায়। তবে এরপর মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস জোড়া অর্ধশতক হাঁকিয়ে চাপে ফেলেছেন লঙ্কানদের। দ্বিতীয় দিনটা বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রণে ছিল। দারুণ বোলিংয়ের পর তামিম ও মাহমুদুল হাসান জয় দুর্দান্ত ব্যাট করে কোন বিপদ ঘটতে দেননি। বিনা উইকেটে ৭৬ রান থেকে তারা তৃতীয় দিন লাঞ্চ পর্যন্ত বাংলাদেশকে নিয়ে যান ১৫৭ রান পর্যন্ত। তখনও ২৪০ রানে পিছিয়ে ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু তামিমের অপরাজিত ৮৯ ও জয়ের ৫৮ রান বড় কিছুর দিকেই নিয়ে যাচ্ছিল। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় অর্ধশতক পাওয়ার পরই অবশ্য আসিথা ফার্নান্দোর বলে ডিপ ফাইন লেগে ক্যাচ দেন জয়, কিন্তু লাসিথ এম্বুলদেনিয়া তা ফেলে দেন। সেই আক্ষেপ লাঞ্চের পরই কেটেছে লঙ্কানদের। আসিথার বলেই কট বিহাইন্ড হয়েছেন জয় ১৪২ বলে ৯ চারে ৫৮ রান করে। এরপর আগের দিন মাথায় আঘাত পাওয়া বিশ^ ফার্নান্দোর ‘কনকাসন সাব’ হিসেবে ইনিংসের ৫৫তম ওভারে বোলিংয়ে এসেই নাজমুল হোসেন শান্তকে (১) ও ৩ ওভার পরে মুমিনুল হককে (২) সাজঘরে ফেরান কাসুন রাজিথা। বিশ^ শুরুতে ৪ ওভার বোলিং করলেও অস্বস্তিতে পড়েন। তাই রাজিথা দেড় বছর পর আবার সুযোগ পান টেস্ট খেলার। সেই সুযোগে দুটি উইকেট শিকার করেন তিনি। ১৬২ রানের উদ্বোধনী জুটি ভেঙ্গে যায়। ২০১৭ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই সর্বশেষবার বাংলাদেশের উদ্বোধনী জুটি শতরানের হয়েছে। গল টেস্টে তামিম ও সৌম্য সরকার ১১৮ রানের জুটি গড়েন। এরপর গত ৫ বছরে ৩০ টেস্ট, ৬০ ইনিংসে মাত্র ১০টি অর্ধশতাধিক রানের উদ্বোধনী জুটি হয়েছে। বাকি ৫০ ইনিংসে সেটিও হয়নি। অবশেষে শতরানের ওপেনিং জুটি দেখে বাংলাদেশ। ওপেনারদের নিয়ে দীর্ঘদিনের হতাশা কেটে যায়। তামিম ব্যক্তিগত ১১৪ রানে ক্যাচ দিয়েছিলেন, কিন্তু ধনঞ্জয়া স্লিপে তা ধরতে পারেননি। সেই একটাই সুযোগ দেয়া তামিম পরে সাগরিকায় ক্যারিয়ারের দ্বিতীয়, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম, টেস্টে নিজের দশম এবং ঘরের মাটিতে ষষ্ঠ সেঞ্চুরি পান। টেস্টে ৩ বছর পর, ঘরের মাটিতে ৬ বছর পর এবং সাগরিকায় ৮ বছর পর সেঞ্চুরি পেলেন এ বাঁহাতি। এর মাধ্যমে সাগরিকায় মুশফিক-মুমিনুলের পর তৃতীয় ব্যাটার হিসেবে ১ হাজার রান পেরিয়ে গেছেন। পরে ৩ ফরমেট মিলিয়ে প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দেশের মাটিতে ৭ হাজার রানের মাইলফলকও পেরিয়েছেন। রমেশ মেন্ডিসের করা ইনিংসের ৫৮তম ওভারে হাতে খিঁচুনির কারণে দীর্ঘ সময় বিরতি নিতে হয়েছে তাকে। এরপর ব্যাটিং করলেও চা বিরতির পর আর নামেননি। ২১৭ বলে ১৫ চারে ১৩৩ রানে অপরাজিত থেকেছেন। আর ১৯ রান করতে পারলেই প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে টেস্টে ৫ হাজার রান হয়ে যেত। তবে এখন সেই অর্জনে প্রথম হওয়ার সুযোগ মুশফিকের। তিনি ক্যারিয়ারের ২৬তম ফিফটি হাঁকিয়ে ১৩৪ বলে ২ চারে ৫৩ ও লিটন ১২তম ফিফটি হাঁকিয়ে ১১৩ বলে ৮ চারে ৫৪ রানে অপরাজিত। দুজন মিলে ইতোমধ্যেই ৯৮ রানের জুটি গড়েছেন। তবে শ্রীলঙ্কা আছে এখনও ৭৯ রানে এগিয়ে। তাই আজ তৃতীয় দিন বাংলাদেশের লক্ষ্য অনেক বড় কিছুর। বিশেষ করে সারাদিন ব্যাট করতে না পারলে সাগরিকা টেস্টে ফল বের করা কঠিন হয়ে যাবে। এ বিষয়ে বাংলাদেশের ব্যাটিং কোচ সিডন্স বলেন, ‘লিটন বেশ দ্রুত রান করেছে। আমরা জানি সাকিবও সেটা পারে। তামিম আবারও আসবে। আশা করি তার সমস্যা কিছু বিশ্রাম ও খাওয়া-দাওয়াতেই সেরে যাবে। আমাদের এখনও কিছু খেলোয়াড় আছে যারা শ্রীলঙ্কাকে আগামীকাল চাপের মধ্যে ফেলতে পারে। তারা (লঙ্কানরা) ক্লান্ত থাকবে। আমরা আজকের মতোই আগামীকালও (আজ) করব। আমরা এখনও ৭০ রানের বেশি পিছিয়ে।’ আর সেজন্য আজ সারাদিন ব্যাট করে লঙ্কানদের পেছনে ফেলতে চায় বাংলাদেশ। আর মাত্র ২ দিন বাকি থাকায় এখন প্রথম ইনিংসের বড় লিড ব্যতীত সাগরিকা টেস্টে ফল বের করতে পারবে না স্বাগতিকরা। তাই সিডন্স বলেন, ‘আমার মনে হয় আগামীকাল (আজ) যদি আমরা পুরোদিন ব্যাট করতে পারি এবং তারপর একদিনে তাদের গুটিয়ে দিতে পারি সেটা দারুণ একটা ব্যাপার হবে।’ ৩ দিন পেরিয়ে গেলেও খুব বেশি রান হয়নি সাগরিকায়। তীব্র গরমে স্পিনারদের দারুণ লাইন-লেংন্থে বল ফেলার কারণে সতর্ক হয়েই ব্যাট চালিয়েছেন ব্যাটাররা। অফস্পিনার রমেশ ৩১ ওভারে মাত্র ৮৩, বাঁহাতি স্পিনার এম্বুলদেনিয়া ২৭ ওভারে মাত্র ৬২ রান দিয়েছেন। আর কনকাসন সাব হয়ে বাংলাদেশকে সমস্যায় ফেলেছেন অভিজ্ঞ পেসার রাজিথা। ১১ ওভারে মাত্র ১৭ রান দিয়ে ২ উইকেট তুলে নিয়েছেন। লঙ্কানদেরও চাপে রেখেছিল বাংলাদেশ, তারা ওভারপ্রতি ২.৫৯ করে ১৫৩ ওভারে ৩৯৭ রান করে প্রথম ইনিংসে। আর বাংলাদেশ দল এখন পর্যন্ত ১০৭ ওভার ব্যাট করে ২.৯৭ রেটে করেছে ৩১৮। ৩ দিনে খেলা হয়েছে ১০ ওভার কম। আগামী ২ দিনে তা পুষিয়ে নেয়ার চেষ্টায় থাকবে দুদলই। তবে ব্যাটারদের ব্যাটিংয়ে সন্তুষ্টিই জানিয়েছেন সিডন্স, ‘আমার মনে হয় এটা খুবই ভাল ব্যাটিং উইকেট। আমি চিন্তিত ছিলাম যে আমরা কেমন ব্যাট করব। আমরা খুব সুশৃঙ্খল ব্যাটিং করেছি যা আমাদের প্রতিটি টেস্টেই করা জরুরী। ব্যাটিং ইউনিট হিসেবে এখন পর্যন্ত এই ম্যাচে যা চেয়েছি সেভাবেই হয়েছে। যারা পারেনি আশা করছি তারা এখানে দ্বিতীয় ইনিংসে এবং দ্বিতীয় টেস্টে সুযোগ কাজে লাগিয়ে আমাদের জন্য ভাল কিছু করবে।’ আপাতত এই টেস্টে বেশ ভাল অবস্থানেই আছে বাংলাদেশ দল পিছিয়ে থেকেও। কারণ হাতে আছে ৭ উইকেট। তামিম, মুশফিক, লিটন অপরাজিত আছেনই। টানা ২ দিন বিশ্রাম পেয়ে এরপর ব্যাটিংয়ে নামবেন সাকিব আল হাসান। তাই বড় কিছুর স্বপ্নই দেখছে বাংলাদেশ।