শুক্রবার ৭ মাঘ ১৪২৮, ২১ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

করোনা মোকাবেলায় ১১ দফা বিধিনিষেধ কাল থেকে শুরু

  • বাস ও ট্রেনে অর্ধেক যাত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ করোনা মোকাবেলায় আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে সরকারের ১১ দফা বিধিনিষেধ মেনে বাস ও ট্রেনে অর্ধেক যাত্রী পরিবহন করা হবে। এতে আবারও যাত্রী সাধারণের দুর্ভোগ ও সঙ্কট দেখা দেবে। একদিকে আসনের সঙ্কট অন্যদিকে বাড়তি ভাড়া আদায়ের ঝামেলা যাত্রীদেরকেই মোকাবেলা করতে হবে। এমন আশঙ্কা প্রকাশ করে যাত্রী কল্যাণ সমিতিসহ অন্যান্য সামাজিক সংগঠনগুলো ভাড়া না বাড়ানোর দাবি জানিয়েছে। এদিকে মঙ্গলবার থেকেই বন্ধ করে দেয়া হয়েছে ট্রেনের অনলাইন টিকেট বিক্রি। যদিও কর্তৃপক্ষ বলছে, আগামী ১৩ জানুয়ারি থেকে ট্রেনে ৫০ শতাংশ যাত্রী পরিবহনের নির্দেশনা বাস্তবায়নের জন্য টিকেটিং সফটওয়্যার আপডেট করার কাজ চলছে। সেজন্য কিছু সময় বন্ধ করে রাখা হয়েছে। এ ্িব্ষয়ে রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, কবে থেকে ট্রেনে ৫০ শতাংশ যাত্রী পরিবহন শুরু করা হবে তা এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি। আমরা বিষয়টি নিয়ে বৈঠক করে শিগগিরই সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেব। এর আগেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে রেল চলাচল করেছে এবং তা সফলতার সঙ্গে করেছে। নিজ নিজ সংস্থা সবকিছু ম্যানেজ করে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করবে। কারণ ট্রেনের কত দিনের অগ্রিম টিকেট বিক্রি হয়েছে, এসব বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। উল্লেখ্য, এর আগে গত বছরের বিধিনিষেধের সময় সঙ্কটকালে বাসে ভাড়া বাড়ানোর অজুহাতে লেগুনা, টেম্পু, অটোরিক্সা ও রিক্সায়ও ভাড়া বহুগুণ বাড়তি আদায় করা হয়েছিল। যা আয় কমে যাওয়া সাধারণ মানুষের সঙ্কটককে আরও ঘনীভূত করে। তাছাড়া রাজধানীসহ সারাদেশে গণপরিবহনের সঙ্কট রয়েছে। স্বাভাবিক সময়ে যাত্রীরা বাদুড়ঝোলা হয়ে গাদাগাদি করে যাতায়াত করেন। জীবন-জীবিকা সবকিছু স্বাভাবিক রাখার এ চিত্র সামনে রেখে গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী বহনের সিদ্ধান্ত কখনও বাস্তবায়ন করা হয়নি। এবারও আশঙ্কা করা হচ্ছে, পরিবহন মালিকরা অর্ধেক আসন ফাঁকা রাখার অজুহাতে ভাড়া বাড়ানোর পাঁয়তারা চালাবে। এ বিষয়ে মঙ্গলবার ঢাকা সড়কের একটি সূত্র জানায়- বৃহস্পতিবার থেকেই যদি আসন খালি রাখতে হয় তাহলে ভাড়াও বাড়ানোর সিদ্বান্ত নেবে। আজ বুধবার এ বিষয়ে সরকারের সঙ্গে দেনদরবার করতে পারে মালিক সমিতি। এদিকে মঙ্গলবারই যাত্রী কল্যাণ সমিতি ও সামাজিক আন্দোলন দাবি জানিয়েছে, ভাড়া না বাড়িয়ে সংক্রমণ প্রতিরোধে গণপরিবহনে যাত্রী, চালক-সহকারী সবাইকে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণে বাধ্য করা, যাত্রী উঠা-নামার সময় হ্যান্ড সেনিটাইজার ব্যবহার, একজন যাত্রী নামার পর তার আসনে জীবাণুনাশক ব্যবহার এবং যানবাহন চালুর আগে জীবাণুনাশক ব্যবহার করতে হবে। এছাড়াও অসুস্থ, করোনা আক্রান্ত, সংক্রমণ সন্দেহে চিকিৎসা অথবা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে যাতায়াতে গণপরিবহন ব্যবহার এড়িয়ে ব্যক্তিগত পরিবহন অথবা প্রাইভেট পরিবহন ব্যবহার করতে হবে। এই বিধিনিষেধ চলাকালীন গণপরিবহনে ভাড়া না বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছে সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন। এক বিজ্ঞপ্তিতে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদ বলেন, প্রজ্ঞাপনে গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী পরিবহন করার নির্দেশনার কথা বলা হয়েছে। আমরা মনে করি- সবকিছু খোলা রেখে গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের ঘোষণা নতুন জটিলতা সৃষ্টি করবে। বিগত সময় অর্ধেক যাত্রী বহন করার কথা বলা হলেও তা কোথাও পালন করা হয়নি। বরং যাত্রীদের ওপর অতিরিক্ত ভাড়া চাপিয়ে দেয়া হয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে এমনিতেই মানুষের জীবন-জীবিকার অনিশ্চয়তা ও কর্মহারা মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাছাড়া সম্প্রতি বাস ভাড়াও একবার বৃদ্ধি করা হয়েছে। তাই পরিবহন ক্ষেত্রে যত সিট তত যাত্রী বহন নিশ্চিত করতে হবে। একই সঙ্গে স্বাস্থ্যবিধি, মাস্ক পরাসহ সকল বিষয়ে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। কোন অবস্থায়ই নতুন করে পরিবহন ভাড়া বৃদ্ধি করে মানুষের জীবনে আরও একটি ভোগান্তি চাপিয়ে দেয়া যাবে না। এদিকে মঙ্গলবার থেকেই ট্রেনের অনলাইনে টিকেট বিক্রি বন্ধ করে রাখা হয়েছে। সকালে কমলাপুর রেল স্টেশনে গেলে টিকেট প্রত্যাশীরা অভিযোগ করেন-অনলাইনে ১৫ জানুয়ারির টিকেট দেয়া হচ্ছে না। কাউন্টারে কথা বলে জানা যায়, ১৫ জানুয়ারির অগ্রিম টিকেট বিক্রি সাময়িক বন্ধ রাখা হয়েছে। বাংলাদেশ রেলওয়ের ঢাকা বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা শওকত জামিল মহসীন দুপুরে বলেন, সফটওয়্যার আপডেট হলে বিকেলের পর থেকে অনলাইনে ট্রেনের টিকেট বিক্রি শুরু হতে পারে। সাধারণত পাঁচদিন আগে থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকেট বিক্রি করা হয়। এর আগের বিধিনিষেধের সময় ৫০ শতাংশ টিকেটের অর্ধেক অনলাইনে এবং বাকি টিকেট কাউন্টারে বিক্রি করেছিল রেলওয়ে। তবে ভাড়া বাড়ানো হয়নি। দেশে করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকায় আগামী ১৩ জানুয়ারি থেকে ১১ দফা নির্দেশনা মেনে চলতে বলেছে সরকার। যার মধ্যে গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের নির্দেশনা রয়েছে। বিধিনিষেধকে পুঁজি করে এবারও বাস ভাড়া বাড়ানো হতে পারে এমন আশঙ্কা প্রকাশ করে গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী নেয়ার সরকারী নির্দেশনার অজুহাতে কোনভাবেই যেন পরিবহন মালিকরা নতুন করে ভাড়া না বাড়ায়- সেজন্য বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি এ দাবি জানিয়েছে। একই সঙ্গে ভাড়া বাড়ানোর যে কোন ধরনের পাঁয়তারা বন্ধের দাবিও জানানো হয়েছে। সংগঠনটি বলছে, করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধির মধ্যে স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালত, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সব প্রতিষ্ঠানই খোলা। এখন গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী বহনের সিদ্ধান্ত কাগুজে সিদ্ধান্তে পরিণত হবে। এ অজুহাতে আবারও ভাড়া বাড়ানো হলে সাধারণ মানুষের জীবন বিষিয়ে উঠবে। তাই ‘যত সিট তত যাত্রী’ পদ্ধতিতে গণপরিবহনে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি। সংগঠনের মহাসচিব মোঃ মোজাম্মেল হক চৌধুরী এ দাবি জানান।

শীর্ষ সংবাদ:
তিন পণ্য দ্রুত আমদানির পরামর্শ         শতবর্ষী কালুরঘাট সেতুর আরও বেহাল দশা         ঐক্য সুদৃঢ় আওয়ামী লীগের বিএনপি হতাশ         ইসি নিয়োগ আইন চলতি অধিবেশনেই পাসের চেষ্টা থাকবে         শান্তিরক্ষা মিশনে র‌্যাবকে বাদ দিতে ১২ সংগঠনের চিঠি         মাদকসেবীর সঙ্গে মাদকের বাজারও বাড়ছে         দেশে করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১১ হাজার ছুঁই ছুঁই         বঙ্গবন্ধু জাতীয় আবৃত্তি উৎসব শুরু ২৭ জানুয়ারি         এবার কুমিল্লা ভার্সিটিতে রেজিস্ট্রার হটাও আন্দোলন         শাবিতে অনশনরতরা অসুস্থ হয়ে পড়ছেন, ৪ জন হাসপাতালে         ওয়ারীতে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে যাত্রী হত্যা         বিএনপি কখনও লবিস্ট নিয়োগের প্রয়োজন বোধ করেনি         অবশেষে চট্টগ্রামে হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ, জাদুঘর         ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৪, শনাক্ত ১০৮৮৮         দুর্নীতি রোধে ডিসিদের সহযোগিতা চাইলো দুদক         সন্ত্রাসীরা অস্ত্র তুললেই ফায়ারিং-এনকাউন্টারের ঘটনা ঘটে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         সামাজিক অনুষ্ঠান বন্ধে ডিসিদের নির্দেশ         ব্যাংকারদের বেতন বেধে দিলো বাংলাদেশ ব্যাংক         মগবাজারে দুই বাসের প্রতিযোগিতায় প্রাণ গেল কিশোরের         জমির ক্ষেত্রে পাওয়ার অব অ্যাটর্নি বন্ধ হচ্ছে