সোমবার ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা

ঝলক

খোলা চিঠি

যুক্তরাষ্ট্রের হাউস স্পীকার ন্যান্সি পেলোসি ও সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা চার্লস সুুমারকে খোলা চিঠি লিখেছেন ব্রিটিশ রাজবধূ ডাচেস অফ সাসেক্স মেগান মেরকেল। চিঠিতে সন্তানের জন্মের পর বেতনসহ পারিবারিক ছুটি জাতীয় অধিকার করা উচিত বলে জানান মেগান। একজন সাধারণ নাগরিক এবং একজন মা হিসেবে তিনি এই চিঠি লিখছেন। বুধবার মার্কিন কংগ্রেসের উদ্দেশে লেখা ওই চিঠিতে মেগান জানান, ‘আমি নির্বাচিত কর্মকর্তা নই। রাজনীতিবিদও নই। আমি অন্যদের মতোই একজন নাগরিক এবং সন্তানের মা। চিঠিতে মেগান আরও লেখেন, সন্তানের জন্মের পর অন্য সব মা-বাবার মতোই তাঁরা আনন্দিত ছিলেন। সন্তানের জন্মের পর তাঁদের কাজে ফিরতে হয়নি। কিন্তু খুব কম মা-বাবা এই সুযোগ পান। যাঁরা পান না, তাঁদের কঠিন পরিস্থিতিতে পড়তে হয়। ২০ সপ্তাহ আগে প্রিন্স হ্যারি ও মেগানের দ্বিতীয় কন্যা লিলিবেটের জন্ম হয়। এছাড়া আর্চি নামের তাঁর দুই বছর বয়সী আরেকটি সন্তান রয়েছে। চিঠিতে একজন মা হিসেবে সন্তান জন্মের পর বেতনসহ ছুটির পক্ষে কথা বলেছেন মেগান। এই ইস্যুতে মার্কিন কংগ্রেসে বিতর্ক চলছে।-সিএনএন অবলম্বনে।

ক্যান্সারের ঝুঁকি

অতিরিক্ত বিস্কুট খেলে কোন ব্যক্তি ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে পারেন। হংকংয়ের একটি নজরদারি সংস্থার গবেষণায় সম্প্রতি এমন তথ্য সামনে এসেছে। সংস্থাটি বিভিন্ন ধরনের ৬০টি বিস্কুট পরীক্ষা করে গবেষণায় এই তথ্য প্রকাশ করেছে। হংকংয়ে হওয়া নতুন ওই গবেষণায় বলা হয়েছে, চায়ের সঙ্গে বা টিফিনে বা ক্ষুধা পেলে অনেকে বিস্কুট খেতে উপভোগ করলেও মুখরোচক এই খাবারটি বেশি পরিমাণে খেলে বেড়ে যায় ক্যান্সারের সম্ভাবনা। ৬০টি ভিন্ন ধরনের বিস্কুটের ওপর গবেষণা করার পর হংকংয়ের কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়। যে বিস্কুটগুলোর ওপর এই গবেষণা করা হয়েছে সেগুলো আগে থেকেই প্যাক করা ছিল। গ্লাইসিডল এবং এ্যাক্রিলামাইড নামক ক্যান্সার সৃষ্টিকারী উপাদান খুঁজে পাওয়া গেছে ওইসব প্যাকেটজাত বিস্কুটের মধ্যে। এই দুটি রাসায়নিক উপাদানই কার্সিনোজেন ও ক্যান্সারকে প্ররোচিত করে। অবশ্য বিস্কুট উৎপাদনকারীদের এই দুটি রাসায়নিক যৌগ ব্যবহার করার অনুমতি রয়েছে। তবে অবশ্যই এই রাসায়নিক যৌগ ব্যবহারের একটি সীমা রয়েছে। ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ব্রেঞ্চমার্কের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বিস্কুট তৈরির জন্য এ্যাক্রিলামাইডের পরিমাণ ৩৫০ গ্রামের মধ্যে হওয়া উচিত। অর্থাৎ এক কেজি বিস্কুট তৈরি করার ক্ষেত্রে ৩৫০ গ্রাম পর্যন্ত এ্যাক্রিলামাইড ব্যবহারের অনুমতি রয়েছে। গবেষণায় উঠে এসেছে অন্য আরও তথ্য। হংকংয়ের বিস্কুট উৎপাদনকারী ৪টি সংস্থা অতিক্রম করে গেছে এই এ্যাক্রিলামাইডের মাত্রা। অর্থাৎ ওই চারটি সংস্থা এক কেজি বিস্কুট তৈরি করতে ৩৫০ গ্রামের বেশি এ্যাক্রিলামাইড ব্যবহার করেছে, যা শরীরে বাড়িয়ে তুলছে ক্যান্সারের ঝুঁকি।-হংকং টাইমস অবলম্বনে।

শীর্ষ সংবাদ: