ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯

নাটোরে ২ মাসের শিশু চুরি,৮ দিন পর উদ্ধার ॥ গ্রেফতার ১

প্রকাশিত: ১৩:৩৭, ৩১ ডিসেম্বর ২০২০

নাটোরে ২ মাসের শিশু চুরি,৮ দিন পর উদ্ধার ॥ গ্রেফতার ১

নিজস্ব সংবাদদাতা, নাটোর ॥ নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তাইয়িব্যা নামে ২ মাসের শিশুকন্যা চুরির ৮দিন পর ওই শিশুকন্যাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এই ঘটনার সাথে জড়িত শাকিলা খাতুন নামে এক গৃহবধূকে গ্রেফতার করা হয়। আজ বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৪টার দিকে নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার কালিকাপুর এলাকা থেকে ওই শিশু কন্যাকে উদ্ধার করে পুলিশ। এক এনজিও কর্মীর নিকট নিজের সন্তানকে দত্তক দেওয়ার পরে স্বামী সন্তান ফেরত চাইলে শিশু কন্যা তাইয়িব্যাকে চুরির পরিকল্পনা করে অভিযুক্ত শাকিলা। বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে নাটোরের গুরুদাসপুর থানা চত্ত্বরে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য তুলে ধরেন পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা। পরে উদ্ধার হওয়া শিশু কন্যাটিকে তার মা বড়াইগ্রামের মশিন্দা মাঝপাড়া গ্রামের তফিজ মোল্লার স্ত্রী সীমা খাতুনের কাছে তুলে দেওয়া হয়। শাকিলা বড়াইগ্রাম উপজেলার তিরাইল গ্রামের ট্রাক ড্রাইভার সাইদুলের স্ত্রী। এসময় পুলিশ সুপার আরো জানান, গত ২৩ ডিসেম্বর নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে আসা মা সীমা খাতুনকে সহায়তা করার সুযোগ নিয়ে শিশু কন্যা তাইয়িব্যাকে চুরি করে পালিয়ে যায় শাকিলা। পরে পুলিশ চারটি স্পেশাল টিম গঠন করে হাসপাতালের সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করা সহ বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে ঘটনার ৮ দিন পর বড়াইগ্রামের কালিকাপুর থেকে ওই শিশুকে উদ্ধার ও অভিযুক্ত শাকিলাকে গ্রেফতার করে।পুলিশ সুপার আরো জানান, এর আগে শাকিলা ও তার দ্বিতীয় স্বামী বড়াইগ্রাম উপজেলার তিরাইল গ্রামের ট্রাক ড্রাইভার সাইদুলের ঘরে একটি কন্যা সন্তান জন্ম নেয়। কিন্তু সেই সন্তানকে শাকিলা এক এনজিও কর্মীকে দত্তক দেন। পরে স্বামী সাইদুল সন্তান ফেরত চাইলে উপান্তর না দেখে শিশুকন্যা চুরির পরিকল্পনা করে শাকিলা। উদ্ধার হওয়া শিশুর মা সীমা খাতুন জানান, পুলিশের ঔকান্তিক প্রচেষ্টায় আমি আমার বুকের মানিককে ফিরে পেয়েছি। এই জন্য পুলিশকে ধন্যবাদ জানাই এবং অভিযুক্ত শাকিলার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। আমার মত কেউ যেন আর সন্তানহারা না হয়। উল্লেখ্য, গত ২৩ ডিসেম্বর নাটোরের গুরুদাসপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে দুই মাসের শিশুকন্যা তাইয়িব্যাকে চুরি করে নিয়ে যায় শাকিলা নামের এক গৃহবধূ।