রবিবার ১৬ কার্তিক ১৪২৭, ০১ নভেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আটক ১২ হংকং অধিকারকর্মীকে 'বিচ্ছিন্নতাবাদী' ঘোষণা করেছে চীন

আটক ১২ হংকং অধিকারকর্মীকে 'বিচ্ছিন্নতাবাদী' ঘোষণা করেছে চীন

অনলাইন ডেস্ক ॥ তাইওয়ানে পালিয়ে যাওয়ার সময় চীনা কর্তৃপক্ষের হাতে আটক ১২ জন হংকং আধিকার কর্মীকে 'বিচ্ছিন্নতাবাদী' হিসেবে ঘোষণা করেছে বেইজিং। যুক্তরাষ্ট্র এসব হংকংবাসীকে গ্রেপ্তারের তীব্র নিন্দা জানিয়ে তাঁদের আইনজীবী নিয়োগের সুযোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। তবে হংকং সরকার আটকদের বিষয়ে ‘কোনো হস্তক্ষেপ করবে না’ বলে জানিয়েছে।

গত ১৩ সেপ্টেম্বর এক বিবৃতিতে চীনের বিশেষ প্রশাসনিক অঞ্চল হংকংয়ের সরকার জানায়, ওই ১২ জনের পরিবারের পক্ষ থেকে প্রশাসনের কাছে সাহায্য চাওয়া হয়েছে। তবে ওই ১২ জনের অপরাধ চীনের মূল ভূখণ্ডে বিচারব্যবস্থার আওতায় পড়ে এবং হংকং প্রশাসন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাজে হস্তক্ষেপ করবে না।

বিবৃতিতে বলা হয়, ওই দলটি হংকংয়ে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত হিসেবে সন্দেহভাজন। তাদের পরিবারকে আইনের সাহায্য নিতে বলা হয়েছে।

চীনের আরোপ করা বিতর্কিত ‘জাতীয় নিরাপত্তা আইন’ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন-বিক্ষোভে তোলপাড় হংকং। এর মধ্যে যেসব হংকংবাসী অঞ্চলটি থেকে পালাতে চাচ্ছিলেন, তাদের জন্য দরজা খুলে দিয়েছে তাইওয়ান, তবে তাদের বৈধভাবে দেশটিতে যেতে হবে বলে জানানো হয়েছে। এ ছাড়া জাপানও তাদের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে নিশ্চিত করেছে যে, চীন থেকে পালাতে চেষ্টা করা ওই দলটিতে ১১ জন পুরুষ এবং একজন নারী রয়েছেন, যাদের বয়স ১৬ থেকে ৩৩ বছরের মধ্যে। তারা সমুদ্রপথে তাইওয়ান যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। গত বছরের সরকারবিরোধী বিক্ষোভে দলটি জড়িত ছিল এবং তাঁরা চীন থেকে হংকংকে বিচ্ছিন্ন করার চেষ্টায় লিপ্ত।

হংকংয়ের সংবাদমাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী, গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের মধ্যে হংকংয়ের গণতন্ত্রপন্থী অ্যাক্টিভিস্ট অ্যান্ডি লি-ও রয়েছেন। বিতর্কিত জাতীয় নিরাপত্তা আইনকে কেন্দ্র করে গত ১০ আগস্ট অ্যাগনেস চো এবং জিমি লাই নামে আরো দুজন গণতন্ত্রপন্থী অ্যাক্টিভিস্ট গ্রেপ্তার হন। আইনটি চালু হওয়ার পর থেকে গণতন্ত্রপন্থী অ্যাক্টিভিস্টদের অনেকেই হংকং ছেড়ে নিরাপদ দেশে পাড়ি জমাতে শুরু করেছেন।

গত ৩০ জুন হংকংয়ের জন্য নতুন জাতীয় নিরাপত্তা আইন কার্যকর করে চীনের আইন প্রণেতারা। নতুন আইনে বিচ্ছিন্নতাবাদ, কেন্দ্রীয় সরকারবিরোধী কার্যক্রম, সন্ত্রাসবাদ এবং জাতীয় নিরাপত্তা বিপন্ন করে এমন যেকোনো কাজ শাস্তিমূলক অপরাধ। হংকংয়ের স্বাধিকার আন্দোলন দমনের লক্ষ্যেই আধা-স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলটির জন্য আইনটি তৈরি করে বেইজিং। নতুন আইনে উল্লিখিত অপরাধের সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। সূত্র : জি নিউজ।

শীর্ষ সংবাদ:
দারিদ্র্য থাকবে না ॥ সবাই মিলে চেষ্টা করলে দেশে         মৌলবাদীরা গুজব রটিয়ে নিরীহ মুসল্লিকে হত্যা করেছে         চুরির পর বদলে যাচ্ছে গাড়ির রং ও ব্র্যান্ড         শেয়ারবাজারের দায়িত্ব শুধু সরকারের নয়, স্টক এক্সচেঞ্জেরও         অর্থমন্ত্রীর আহ্বানে আইএফসির ইতিবাচক সাড়া         শেষ মুহূর্তের প্রচার যুদ্ধে ট্রাম্প ও বাইডেন         টাঙ্গাইলে সালিশে বীর মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যা         তিন বছরে নতুন ১২ লাখ অভিবাসী নেবে কানাডা         ৫ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হবে শেখ রাসেল কম্পিউটার ল্যাব         রায়হানকে ছিনতাইকারী সাজানোর হোতাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন         স্বামীকে হত্যার ভয় দেখিয়ে ৪ বছর ধরে ধর্ষণ         ব্যাংক থেকে বের হওয়ার সময় ডিবি পরিচয়ে হামলা         পায়রা বিদ্যুত কেন্দ্র পরিবেশ দূষণের ধারে কাছেও নেই         করোনায় দেশে আরও ১৮ জনের মৃত্যু         বাংলাদেশের ইতিহাসে যুবদের অবদান চিরঅম্লান : রাষ্ট্রপতি         মুজিব বর্ষেই গ্রিড এলাকায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন করা হবে : প্রতিমন্ত্রী         ব্যারিস্টার রফিক-উল হকের জন্য দোয়া         সংঘবদ্ধ দুর্নীতিবাজ চক্রকে ধ্বংস করতে সুশাসনের সংগ্রাম জাতীয় কর্তব্য॥ ইনু         স্টক একচেঞ্জকেই প্রথমে কারসাজি ধরতে হবে ॥ সালমান এফ রহমান         বাংলাদেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে নৌপথ ॥ নৌ প্রতিমন্ত্রী