মঙ্গলবার ৪ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ অক্টোবর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

বগুড়া কৃষি অঞ্চলে ধান মাড়াই কাটাই কম্বাইন্ড হারভেস্টারে

  • দ্রুততম সময়ে বোরো ফসল ঘরে তোলা

সমুদ্র হক ॥ করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর বগুড়া অঞ্চলের চার জেলার বোরোর মাড়াই কাটাই হচ্ছে কম্বাইন্ড হারভেস্টার মেশিনে। এতে কম শ্রমিকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে খুবই দ্রুত অধিক জমির ধান মাড়াই কাটাই করে বস্তায় ভরে কৃষকের আঙ্গিনায় পৌঁছে দেয়া যাচ্ছে। কৃষি অঞ্চল বগুড়া জয়পুরহাট পাবনা ও সিরাজগঞ্জ জেলার মাড়াই কাটাই কেবল শুরু হয়েছে। গৃহস্থ ও কৃষক কম্বাইন্ড হারভেস্টারে ধান কাটতে ভাড়ার চুক্তি করছেন।

এবার উত্তরাঞ্চলে বোরোর আবাদ ভাল। ঝড় বাদল ও শিলাপাতের ভয়ই এখন বেশি। শুকনো আবহাওয়া থাকলে উল্লেখিত চার জেলার ধান মাড়াই কাটাই দ্রুত শেষ করা যাবে। কৃষি কর্মকর্তাগণ এমনটিই বলছেন। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর বগুড়া আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ পরিচালক কৃষিবিদ মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন তালুকদার জানিয়েছেন, উল্লেখিত চার জেলায় ১১৩টি কম্বাইন্ড হারভেস্টার আছে। চলতি মৌসুমে বোরো ধান দ্রুত কাটতে সরকারী ভর্তুকিতে আরও ৬১টি কম্বাইন্ড হারভেস্টার দেয়া হয়েছে।

বগুড়ায় বোরো আবাদের টার্গেট দেয়া হয় ১ লাখ ৮৮ হাজার ৬শ’হেক্টর জমিতে। জয়পুরহাটে ৬৯ হাজার ৪শ’২৫ হেক্টর, পাবনায় ৪১ হাজার ৩শ’ হেক্টর ও সিরাজগঞ্জে ১ লাখ ৪১ হাজার ৪০ হেক্টর। প্রতি হেক্টর জমিতে ৪ দশমিক ৫ মেট্রিক টন করে চাল ও ৬ দশমিক ৫ মে.টন করে ধান উৎপাদন হয়। চলতি মৌসুমে টার্গেটের চেয়েও অধিক জমিতে আবাদ হয়েছে। কৃষি বিভাগ আশা করছে, কম্বাইন্ড হারভেস্টারে দ্রুততম সময়ে ধান মাড়াই করে ঘরে তোলা যাবে। কম্বাইন্ড হারভেস্টারে মেকানিক্সসহ জনা তিনেক মানুষ হলেই চলে। যন্ত্রই কাটাই মাড়াই ঝাড়াইয়ের পর ধান বস্তায় ভরে খড় আলাদা করে দেয়। বগুড়া অঞ্চলে যে কম্বাইন্ড হারভেস্টার এসেছে তা ভারত, দক্ষিণ কোরিয়া, চীনের তৈরি। বড় কম্বাইন্ড হারভেস্টারের দাম ২০/২৫ লাখ টাকা। মাঝারির দাম ১৮ থেকে ২০ লাখ টাকা। বগুড়ার শিবগঞ্জের জানগ্রামের আল আমিন (৩০) কৃষি বিভাগের মাধ্যমে সরকারী ভর্তুকির কম্বাইন্ড হারভেস্টার কিনেছেন। ১৮ লাখ টাকা দামের কম্বাইন্ড হারভেস্টারে সরকার ভর্তুকি দিয়েছে ৫ লাখ টাকা। বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে প্রতি বিঘায় ৬শ’ থেকে ৮শ’ টাকায় জমির ধান কেটে মাড়াই করে বস্তায় ভরে রেডি করে দিচ্ছেন। গৃহস্থ চাইলে হারভেস্টারের ট্রলিতে বস্তা বোঝাই ধান আঙ্গিনায় পৌঁছে দিচ্ছেন। প্রতি ঘণ্টায় এক একর জমির ধান কাটাই মাড়াই বাছাই ঝাড়াই ও বস্তায় ভরানো যায়।

চালকল মালিক মোস্তাফিজার রহমান বললেন, এখন ২/৩ দিনের মধ্যে চাতালে মাঠ থেকে ধান আসে। হারভেস্টার ব্যবসায়ী জিল্লুর রহমান শামীম জানান, কম্বাইন্ড হারভেস্টারে আছে ৫টি অংশ। শস্য কর্তন বা আহরণ, থ্রেসিং বা মাড়াই, ঝাড়াই বা পরিষ্কার করা, দানাদার শস্য আনলোড করে বস্তায় ভরানো ও খড় নির্গত করা। হুইল ক্রোলার রিপিং ধরনের হারভেস্টারে ২ থেকে ৬ সারি পর্যন্ত সেট করা যায়। শুকনো ও উঁচু ভূমিতে ব্যবহারের জন্য হুইল টাইপ এবং জমে থাকা পানি কর্দমাক্ত জমিতে ব্যবহারের জন্য ক্রোলার টাইপ ব্যবহার হয়। প্রতি ঘণ্টায় ৭ লিটার ডিজেলের প্রয়োজন।

শীর্ষ সংবাদ:
পদত্যাগ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ আফগানিস্তান দূত খলিলজাদ         ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মেয়র আতিকের বিরুদ্ধে মামলা         অস্ট্রেলিয়া-নিউ জিল্যান্ডের দারুণ লড়াই         তাসনিম ও সামিসহ ৪ জনের সম্পত্তি ক্রোকের আদেশ         নাটোরে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই জন নিহত         বৃষ্টি থাকবে আরও দুই দিন         সেন্টমার্টিনে আটকে থাকা পর্যটকরা টেকনাফে ফিরছেন         মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৪৭         উত্তর কোরিয়া আবারও ব্যালিস্টিক মিসাইল নিক্ষেপ করেছে         সাম্প্রদায়িক হামলা ॥ সারাদেশে ৭১ মামলা, গ্রেফতার ৪৫০         নাইজেরিয়ার বন্দুকধারীদের গুলিতে ৪৩ জন নিহত         গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় মারা গেছেন ৪ হাজার ৬৬৮ জন         আর হত্যা ক্যু নয় ॥ দেশবাসীকে ষড়যন্ত্র সম্পর্কে সতর্ক থাকার আহ্বান         বাংলাদেশের টিকে থাকার চ্যালেঞ্জ         কুমিল্লা ও রংপুরের ঘটনা একই সূত্রে গাঁথা         সাম্প্রদায়িক হামলা ॥ উস্কানিদাতাদের খুঁজছে পুলিশ         সাম্প্রদায়িক হামলার বিচার দাবিতে আল্টিমেটাম         পিছিয়ে পড়া চুয়াডাঙ্গা এখন উন্নয়নের মহাসড়কে         ইভ্যালি পরিচালনা ও নিয়ন্ত্রণে পাঁচ সদস্যের বোর্ড গঠন         শেখ রাসেল একটি আদর্শ ও ভালবাসার নাম