মঙ্গলবার ৫ মাঘ ১৪২৮, ১৮ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আগামী প্রজন্ম গড়ার মহতী উদ্যোগ

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আগামী প্রজন্ম গড়ার মহতী উদ্যোগ
  • মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল স্কুল এ্যান্ড কলেজ

হারেজুজ্জামান হারেজ ॥ মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে পরাধীনতা থেকে মুক্ত করার মাধ্যমে স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ এনে দিয়েছে লাখো মুক্তিযোদ্ধা। সেই মুক্তিযোদ্ধাদের ‘অতন্দ্র প্রহরী’ হিসেবে অভিহিত করা এবং ভাতা প্রদান ছাড়া জীবিত অবস্থায় সারাদেশে তাদের দ্বারা পরিচালিত করার দৃশ্যমান কোন প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা হয়নি। সার মাধ্যমে গড়ে উঠতে পারে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আগামী প্রজন্ম। অথচ মৃত্যুজনিত কারণে প্রতিদিন কমছে মুক্তিযোদ্ধাদের সংখ্যা। এমন ভাবনা থেকেই মুক্তিযোদ্ধা দ্বারা পরিচালিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করার যুগান্তকারী পরিকল্পনা করেন একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। ‘বহুভাষী সাঁটলিপি একাডেমি’ (নট্রামস) প্রতিষ্ঠার কারিগর বগুড়ার বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর আব্দুল মান্নানের উদ্যোক্তা। বিগত ২০১৪ সালের দিকে এই পরিকল্পনা উপস্থাপনা করেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মহোদয়ের কাছে। পরিকল্পনার কারণ হিসেবে বলা হয়, সারাদেশে সেনা, বিজিবি, পুলিশ ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এমনকি স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াত-শিবির দ্বারা পরিচালিত স্কুল-কলেজ নানা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সে কারণে মুক্তিযোদ্ধা দ্বারা পরিচালিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গড়া প্রয়োজন। অনেক চুলচেরা যাচাই-বাছাইয়ের পর ‘মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল স্কুল এ্যান্ড কলেজ’ প্রতিষ্ঠা বা স্থাপনের অনুমোদন মেলে ২০১৭ সালে। প্রথমে বগুড়া জেলার ১২ উপজেলাকে নিয়ে পাইলট প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। বগুড়া জেলার ১২ উপজেলায় ‘মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল স্কুল এ্যান্ড কলেজ’ নামে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপন করা হয়। বর্তমানে স্কুল পর্যায়ে শিক্ষাদান কার্যক্রম চলছে। অচিরেই কলেজ পর্যায়ের কার্যক্রম শুরু করার তৎপরতা চলছে বলে জানিয়েছেন বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল স্কুল এ্যান্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মুক্তিযোদ্ধা নাজমুল হক খন্দকার ও পরিচালনা কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবির উদ্দিন খান। তারা বলেন, আমরা যা ধারণা করেছিলাম তার চেয়ে অনেক ভাল অবস্থা শুরুতেই। অনেকটা নামেই বাজিমাতের মতো। মুক্তিযোদ্ধা নাম এবং অভিজ্ঞ তরুণ শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগের কথা জানতে পেরে অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের আমাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি করানোর ব্যাপক আগ্রহী। যা নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে সাধারণত হয় না। জানা গেছে, বগুড়ার ১২ উপজেলায় গ্রহণ করা পাইলট প্রকল্প সফল হবার কারণে এবার খোদ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মহোদয়ের জেলা গাজীপুরসহ বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল স্কুল এ্যান্ড কলেজ। আগামীতে সারাদেশের সব উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা দ্বারা পরিচালিত এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপন হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্টরা। এর ফলে যুগান্তকারী এই পরিকল্পনাটি বাস্তবায়িত হয়ে লাভ করবে মুক্তিযুদ্ধের মতো আরেক অমরত্বগাঁথা। পাশাপাশি কর্মসংস্থান হবে শিক্ষিত লাখো বেকারের। শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানদের অগ্রাধিকার দেয়ার নীতিমালা মেনে চলা হচ্ছে। এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষা গ্রহণের মাধ্যমে তৈরি হবে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক চেতনাধারী আগামী প্রজন্ম। আদমদীঘিসহ বগুড়ার ১২ উপজেলায় প্রতিষ্ঠিত এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৩ বছর ধরে সফলভাবে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত বেতন-ভাতাদির কোন কূল-কিনারা না হওয়ায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন শত শত শিক্ষক-কর্মচারী। তারা আশায় বুক বেঁধেছেন যে, মুজিববর্ষের মধ্যেই মানবতার মা বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব শিক্ষক-কর্মচারীর বেতন-ভাতাদি প্রদানের সুব্যবস্থা করবেন।

শীর্ষ সংবাদ:
বুধবার থেকে ভার্চুয়ালি চলবে সুপ্রিম কোর্ট         তৃণমূলের প্রকল্প বাস্তবায়নে আরও মনোযোগী হোন ॥ ডিসিদের প্রধানমন্ত্রী         বিএনপির লবিস্ট নিয়োগের কপি যাচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী         পারিবারিক কলহের জেরে চিত্রনায়িকা শিমুকে হত্যা         মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা ১ এপ্রিল         হাফ ভাড়া দেওয়ায় ঘড়ি-মানিব্যাগ রেখে তিতুমীরের দুই ছাত্রকে মারধর         শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আশ্বাস         নাইকো দুর্নীতি মামলা ॥ খালেদার বিরুদ্ধে চার্জ শুনানি ৮ মার্চ         উখিয়ার ক্যাম্পে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে সন্ত্রাসী রোহিঙ্গারা         আফগানিস্তান শক্তিশালী ভূমিকম্পের আঘাতে নিহত ২৬         সোনারগাঁয়ে ২ এসআই নিহত : গাড়ি চালাচ্ছিলেন মামলার আসামি         হত্যা মামলায় বিজিবির বরখাস্ত সদস্যের মৃত্যুদন্ড         বাড়তে পারে শৈত্যপ্রবাহ         হাতিয়ার সংরক্ষিত বনের গাছ কেটে পাচার, চক্রের এক সদস্য আটক         মরক্কো উপকূলে নৌকাডুবিতে ৪৩ অভিবাসীর মৃত্যু         মেসি-সালাহকে হারিয়ে ফিফা বর্ষসেরা জিতলেন লেভানদোভস্কি         বিচারকাজ ফের ভার্চ্যুয়ালি পরিচালনা করতে হবে ॥ প্রধান বিচারপতি