রবিবার ২ কার্তিক ১৪২৮, ১৭ অক্টোবর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আমদানি ব্যয় কমিয়ে বাড়ানো হবে রফতানি

  • ২১ সালের মধ্যে ৬০ বিলিয়ন ডলারের রফতানি

এম শাহজাহান ॥ ব্যবসা-বাণিজ্যের গতি বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। আমদানি ব্যয় কমিয়ে বাড়ানো হবে রফতানি। রূপকল্প-২১ সালের মধ্যে ৬০ বিলিয়ন ডলারের রফতানির স্বপ্ন পূরণ করা হবে। এ লক্ষ্যে রফতানি বাড়াতে বিনিয়োগ বৃদ্ধি, গ্যাস-বিদ্যুতের নিশ্চয়তাসহ অবকাঠামো উন্নয়নে সবচেয়ে বেশি নজর দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে ব্যবসায়ীরা বলছে, সরকারের এই স্বপ্ন পূরণ করতে হলে ভ্যাট-ট্যাক্স আদায়ের নামে হয়রানি বন্ধ করতে হবে সবার আগে। এছাড়া ব্যাংক সুদের হার ঘোষণা অনুযায়ী সিঙ্গেল ডিজিট কার্যকর করা জরুরী হয়ে পড়ছে। বিনিয়োগ সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টি করা গেলে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী স্বাধীনতার সুুবর্ণজয়ন্তীর ওই সময় ২০২১ সালে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশের কাতারে পৌঁছবে। ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত রাষ্ট্রের স্বপ্ন পূরণ করাও অসম্ভব নয়।

জানা গেছে, ব্যবসা-বাণিজ্যের গতি বাড়াতে নানামুখী কর্মতৎপরতা শুরু করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশী দায়িত্ব নেয়ার পর প্রথমবারের মতো আজ বুধবার তার নেতৃত্বে বাণিজ্য সহায়ক পরামর্শক কমিটির ষষ্ঠ সভা হতে যাচ্ছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এই সভা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের অংশগ্রহণের কথা রয়েছে। এছাড়া এফবিসিসিআইসহ বিভিন্ন এ্যাসোসিয়েশন ও চেম্বারের উচ্চ পর্যায়ের ২৫ জন ব্যবসায়ী নেতা বাণিজ্য বাড়ানোর ওপর নিজস্ব মতামত ও পরামর্শ তুলে ধরবেন। এর আগে বাণিজ্যমন্ত্রী দ্রব্যমূল্য নিয়ে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। কোরবানির গরুর ট্রাকে চাঁদাবাজি বন্ধে কঠোর হচ্ছে সরকার। এছাড়া মসলা জাতীয় পণ্যের দাম কমিয়ে আনার নির্দেশনা দিবেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

জানা গেছে, চলতি বাজেটে নতুন ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন করা হয়েছে। এই আইনটি নিয়ে ব্যবসায়ীদের শুরু থেকেই আপত্তি ছিল। তবে এবারের বাজেট পাসের আগে দফায় দফায় ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠক করে আইনটি বাস্তবায়নের জন্য ঐকমত্যে পৌঁছে ব্যবসায়ীগোষ্ঠী। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালও এ বিষয়ে ব্যবসায়ীদের সহযোগিতার আশ্বাস দেন। সম্প্রতি এ সংক্রান্ত একটি বৈঠকে অর্থমন্ত্রী বলেন, ব্যবসায়ীদের স্বার্থরক্ষা করেই আইনটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। আইন অনুযায়ী ভ্যাট ও ট্যাক্স দিলে ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। তবে ওই অনুষ্ঠানেই ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি মোঃ সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, সবচেয়ে বড় সমস্যা ব্যবসায়ীদের হয়রানি। বাণিজ্যে গতি বাড়বে কিভাবে যদি প্রতিনিয়ত ব্যবসায়ীদের হয়রানি করা হয়? এনবিআরের কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি জানান, এখনও তাদের মাইন্ডসেট পরিবর্তন হয়নি। আগে তারা পরিবর্তন হোক, দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়বে। ওই অনুষ্ঠানে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে একই সুরে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশী বলেন, দাওয়াত দিয়ে কাটা চামচ দিয়ে স্যুপ খেতে দেয়া যায় না। কিন্তু বর্তমান প্রেক্ষাপটে মনে হচ্ছে, ব্যবসায়ীরা কাটা চামচ দিয়ে স্যুপ খাচ্ছেন।

জানা গেছে, আজকের বৈঠকে ব্যবসায়ীরা ভ্যাট, ট্যাক্স, বিদ্যুত, গ্যাস, অবকাঠামোসহ বিভিন্ন ইস্যুতে কথা বলবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী এখনও দেশের অধিকাংশ ব্যাংক সিঙ্গেল ডিজিট সুদের হার কার্যকর করতে পারেনি। এ বিষয়টির ওপর সর্বোচ্চ জোর দেয়া হবে। এছাড়া বাণিজ্যমন্ত্রী দ্রব্যমূল্য স্বাভাবিক রাখতে ব্যবসায়ীদের পরামর্শ দিবেন। ইতোমধ্যে কোরবানি সামনে রেখে মসলা জাতীয় পণ্যের দাম বেড়ে গেছে। প্রতিকেজি রসুন বিক্রি হচ্ছে ১৮০-২০০ টাকা। এছাড়া ৫০ টাকার নিচে দেশী পেঁয়াজ পাওয়া যাচ্ছে না। দারুচিনি ও লবঙ্গের মতো মসলার দাম বেড়ে গেছে। কোরবানি সামনে রেখে জিনিসপত্রের দাম বাড়ার ফলে কষ্ট বাড়বে সাধারণ মানুষের। এ বিষয়টিও পরামর্শক কমিটির বৈঠকে আলোচনা হবে বলে জানা গেছে। যদি পরামর্শক কমিটির বৈঠকের আগে বাণিজ্যমন্ত্রী দ্রব্যমূল্য নিয়ে পৃথক বৈঠক করবেন। কোরবানির গরুর ট্রাকে চাঁদাবাজি করা যাবে না। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

জানা গেছে, বাণিজ্যের গতি বাড়াতে ব্যবসায়ীরা কিছু সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব দিতে যাচ্ছেন। এর মধ্যে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুত সরবরাহ নিশ্চিত করা, গ্যাস-বিদ্যুতের দাম না বাড়ানো, ভ্যাট আদায়ের নামে হয়রানি বন্ধ, কর্পোরেট ট্যাক্স কমানোসহ ব্যবসায় প্রতিবন্ধকতা দূর করে বিনিয়োগের পরিবেশ সহজ করার দাবি জানানো হবে।

এদিকে, বিদেশী বিনিয়োগ বাড়লেও দেশী বিনিয়োগ না বাড়ার কারণগুলো খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে। বেসরকারী গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগ (সিপিডি) এক জরিপে অবকাঠামোর অপর্যাপ্ততা, দুর্নীতি ও অদক্ষ আমলাতন্ত্রকে ব্যবসার ক্ষেত্রে প্রধান তিনটি সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করেছে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা। এবার তাই ব্যবসায়ীদের মতামত নিয়েই ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি এবং আস্থার সঙ্কট দূরীকরণে উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক উর্ধতন কর্মকর্তা জনকণ্ঠকে বলেন, বর্তমান সরকার ব্যবসাবান্ধব সরকার। দেশের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বর্তমান সরকারের সম্পর্ক খুব ভাল। বরং বর্তমান সময়ে ব্যবসায়ীদের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা হচ্ছে। আর এ কারণেই দেশের রফতানি বাড়ছে ও নতুন বাজার সম্প্রসারণ হচ্ছে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার দায়িত্ব নেয়ার পর বাণিজ্য সহায়ক পরামর্শক কমিটি গঠন করেছে। যেখানে দেশের শীর্ষ স্থানীয় ব্যবসায়ীরা রয়েছেন।

দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য উন্নয়ন ও সম্প্রসারণে কমিটির মতামত এবং পরামর্শ গুরুত্ব সহকারে সরকার গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। একই সঙ্গে, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় শিল্পের উৎপাদন ক্ষমতা বৃদ্ধি, বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে স্বল্প সুদে ঋণ, অবকাঠামো ও ইউটিলিটি সার্ভিস উন্নয়নসহ আগামী ৫ বছর মেয়াদী ক্রাশ প্রোগ্রাম গ্রহণ করেছে সরকার। এ প্রোগ্রাম বাস্তবায়নে বাণিজ্য সম্প্রসারণ নীতি কৌশল প্রণয়ন করা হচ্ছে।

এই কমিটির কাজ হলো দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য এবং বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে সরকারকে সুপরামর্শ ও দিকনির্দেশনা দেয়া। সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, এই কমিটি করার ফলে ব্যবসায়ীরা আরও সহজে তাদের যে কোন সমস্যা নিয়ে সরকারের কাছে আসতে পারবে। সমস্যাগুলো দ্রুত সমাধানের পথ তৈরি করবে বাণিজ্য সহায়ক পরামর্শক কমিটি।

শীর্ষ সংবাদ:
বিশ্বব্যাপী পুরুষরা বেশি আত্মহত্যাপ্রবণ         গুচ্ছভুক্ত ২০ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়েছে আজ         ‘করোনা মহামারী প্রেক্ষাপটে উন্নত স্যানিটেশনের গুরুত্ব বেড়েছে’         ‘বাঙালীর মুক্তিযুদ্ধের গৌরবময় ইতিহাস বিশ্ববাসীকে জানাতে হবে’         পর্যটক প্রিয় হয়ে উঠেছে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান         ‘দেশের ৯৯ শতাংশ মানুষ স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশনের আওতায়’         মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডে জড়িত আত্মগোপনে থাকা রোহিঙ্গা ক্যাডার গ্রেফতার         নাসার মাহকাশযান সৌরজগৎ তৈরির রহস্য উম্মোচনে পরীক্ষা চালাচ্ছে         রাঙ্গামাটিতে আওয়ামী লীগ নেতা ও চেয়ারম্যান প্রার্থীকে গুলি করে হত্যা         গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় মারা গেছেন ৫ হাজার ৩২৩ জন         দেশ বিক্রি করে ক্ষমতায় আসব না ॥ বিশ্ব খাদ্য দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী         নিরাপদে দেশে ঢুকছে ভয়ঙ্কর আইস         দিগঙ্গনার অঙ্গন আজ পূর্ণ তোমার দানে ॥ এসেছে হেমন্তলক্ষ্মী         করোনাপরবর্তী স্বাভাবিক জীবনে ছন্দপতন         ‘আগের রাতেই মণ্ডপে কেউ কোরান শরীফ রেখে যায়’         ২৩ অক্টোবর সারাদেশে ছয় ঘণ্টার গণঅনশন         উন্নয়নে পিছিয়ে নেই শেরপুর         পাকিস্তানী যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের উদ্যোগ নিতে হবে         সরকারের সঙ্গে আলেম ওলামাদের কোন বিরোধ নেই         ত্রিশালে সড়ক দুর্ঘটনায় এক পরিবারের ৫ জনসহ নিহত ৭