শুক্রবার ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৭ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আগামী তিন দিনে দাবদাহ কিছুটা কমবে, পরে আবার বাড়বে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সারাদেশের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া দাবদাহ থেকে মুক্তি পাওয়া যাচ্ছে না। খেটে খাওয়া ও শ্রমজীবী মানুষের কষ্ট চরমে উঠেছে। প্রচ- রোদ আর গরমে বাইরে বের হওয়া মুশকিল হয়ে পড়েছে। এক ফোঁটা বৃষ্টির জন্য তীর্থের কাকের মতো আকাশের দিকে চেয়ে আছে মানুষ। তাদের প্রশ্ন এই অবস্থা থেকে মুক্তি মিলবে কবে। প্রচন্ড দাবদাহে পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে গেছে যে ঘরে বাইরে কোথাও শান্তি পাওয়া যাচ্ছে না। দুপুরের পর থেকে রাজধানীতে যান চলাচলও কমে আসছে। বাতাসে যেন আগুনের হল্কা। রাতে শান্তিতে ঘুমানও কঠিন হয়ে পড়ছে। ফলে দেখা দিচ্ছে না ধরনের রোগ ব্যাধি।

এই অবস্থায় আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে ইতোমধ্যে দেশের বিভিন্ন স্থানের তাপমাত্রা স্তিমিত হয়ে এসেছে। আগামী দুদিন এটির আরও কমে আসতে পারে। আকাশে কালবৈশাখী মেঘ দেখা যাচ্ছে। এই অবস্থায় যে কোন সময় রাজধানী ঢাকা ও তার আশপাশে এলাকায় বৃষ্টি হতে পারে। বৃষ্টি হলেও গরমের অনুভূতি থাকবে। তারা জানায় আগামী তিনদিন দেশের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া তাপপ্রবাহ কিছুটা স্তিমিত হতে পারে। তবে তিনদিন পর দাবদাহ আবার বেড়ে যেতে পারে।

তারা জানায় দেশের বিভিন্ন এলাকায় ইতোমধ্যে বিচ্ছিন্ন বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে। ফলে ওইসব এলাকা থেকে তাপপ্রবাহ কিছুটা কমেছে। আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তারা বলেন, ভারতের পশ্চিম বঙ্গে এবং দেশের উত্তরাঞ্চলে ইতোমধ্যে কালবৈশাখী মেঘের আনাগোনা দেখা যাচ্ছে। এটি দেশের অন্য এলাকায় দিকেও ধাবিত হচ্ছে। এই অবস্থায় তিনদিন রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টিপাত হতে পারে। বৃষ্টিপাত হলে তাপমাত্রাটাও কিছু কমবে। তবে তারা উল্লেখ করেন গরমের অনুভূতি খুব বেশি কমবে না। তিনদিন পরে আবারও তাপমাত্রা বেড়ে যেতে পারে। তখন গরম আরও বাড়বে। এছাড়া মাসের শেষে দিকে আবারও দাবদাহ শুরু হতে পারে।

এদিকে একটানা দাবদাহে ঢাকাসহ সারাদেশের মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে রোজায় শ্রমজীবী মানুষের পক্ষে এই গরম সহ্য করা আরও কঠিন হয়ে পড়ছে। তারা এক ফোঁটা বৃষ্টি আশায় আকাশের দিকে তীর্থের কাকের মতো চেয়ে আছে। কখন বৃষ্টিপাত হবে। কবে কাটবে আওয়ার এই বিরূপ অবস্থা। রাজধানীর বাইরে খেটে খাওয়া মানুষের অবস্থা আরও সঙ্গীন হয়ে পড়ছে। তারা কাজের সন্ধ্যানে ঘরে বাইরে বের হতে পারছেন না।

এদিকে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে রাজশাহী পাবনা, মাইজদীকোট এবং রাঙ্গামাটি খুলনা অঞ্চলের ওপর দিয়ে এখন মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। তবে আজ কিছু কিছু জায়গায় এই তাপপ্রবাহ স্তিমিত হতে পারে। সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা হ্রাস পেতে পারে। এছাড়াও রাতের তাপমাত্রা কমে আসতে পারে। সোমবার রাঙ্গামাটিতে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৭.২ ডিগ্রী সেলসিয়স রেকর্ড করা হয়েছে। যা আগের দিনের চেয়েও কম। এছাড়া এদিন রাজধানী ঢাকায় তাপমাত্রা কমে দাঁড়ায় ৩৫.৫ ডিগ্রী সেলসিয়াসে। তারা আরও জানায় সোমবার দেশের ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, সিলেট, শ্রীমঙ্গল, রংপুর তেঁতুলিয়ায় বৃষ্টিপাত হয়েছে। তেঁতুলিয়ায় সর্বোচ্চ ৫৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

এদিকে আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তারা বলছেন এবার বর্ষাকাল এগিয়ে আসতে পারে। বিশেষ করে এ ধরনের পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে মৌসুমি বায়ু আগেই দেশে প্রবেশ করতে পারে। বিশেষ করে জুনের ১ তারিখ থেকে মিয়ানমার হয়ে মৌসুমি বায়ু দেশে প্রবেশ করতে পারে। তখন এর প্রভাবে বৃষ্টিপাত হবে প্রচুর।

শীর্ষ সংবাদ:
ঢাকা টেস্টে লড়াই করছে সাকিব আর লিটন         সীমান্তে মাদক ও মানবপাচার রোধে কাজ করছে বিজিবি ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         বরিশালে পৃথক দুর্ঘটনায় তিনজন নিহত         সন্ত্রাসীদের হামলায় বুরকিনা ফাসোয় নিহত ৫০         বাজারে ডিমসহ বেড়েছে আটা, সবজি ও মুরগির দাম         অভিনেত্রী মঞ্জুষা নিয়োগীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার         মিয়ানমারে বেসামরিক নাগরিকদের সুরক্ষা একটি গুরুতর চ্যালেঞ্জ ॥ রাবাব ফাতিমা         প্রেস ক্লাবের সামনে বিএনপির নেতাকর্মীরা ॥ সতর্ক অবস্থানে পুলিশ         নীলফামারীতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস খাদে, আহত ৩২         পাক সরকারের রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার আসামির নাম মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নেই         ইমরান খানসহ তেহরিক নেতাদের বিরুদ্ধে দুটি মামলা         বালিয়াতলীর ফেরি পারাপার নয় বছর ধরে বন্ধ         মুশফিকের আউটের পর সাকিব নেমেই আক্রমনাত্মক         আজ থেকে ৪৪তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা শুরু হয়েছে         পেরুতে ৭ দশমিক ২ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প অনুভূত         গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় মারা গেছেন এক হাজার ৪১৩ জন         অবৈধ ক্লিনিকের দৌরাত্ম্য ॥ ভুল চিকিৎসায় প্রতিনিয়ত মৃত্যু         ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য উন্নত জীবন নিশ্চিত করতে চাই         জঙ্গী নেতা আবদুল হাই যেভাবে ১৭ বছর আত্মগোপনে ছিলেন         জামিনে মুক্ত দুর্ধর্ষ অপরাধীদের ওপর চলবে নজরদারি