শুক্রবার ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৭ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

হাটহাজারীর পাহাড়ে ঝুঁকিপূর্ণ বসতি বাড়ছে

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফটিকছড়ি, ৩০ মার্চ ॥ হাটহাজারী উপজেলাধীন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ১নং দক্ষিণ পাহাড়তলী ওয়ার্ডের আকবর শাহ কলোনির একটি পাহাড়ের ঢালে গড়ে উঠছে ঝুঁকিপূর্ণ বসতঘর। প্রশাসনিক নজরদারি না থাকায় স্থানীয় ফরিদ ও বেলাল সিন্ডিকেটের নেতৃত্বে সরকারী এ পাহাড়ের মাটি কেটে ঝুঁকিপূর্ণ বসতঘর তৈরি অব্যাহত রেখেছে। এ কলোনি ছাড়াও এই উপজেলার হাটহাজারী রেঞ্জ ও মন্দাকিনী বিটের আওতাধীন পাহাড়ী এলাকাগুলোতে কয়েক বছর ধরে অন্তত পাঁচ সহস্রাধিক পরিবার পাহাড়ের ঝুঁকিপূর্ণ ঢালে বসতঘর নির্মাণ করে বসবাস করে আসছে। প্রবল বর্ষণ ও প্রাকৃতিক দুর্যোগে পাহাড় ধসে প্রাণহাণির আশঙ্কা করছে স্থানীয়রা।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে ফরিদ ও বেলাল সিন্ডিকেট ঠাণ্ডাছড়ি পিকনিক রিসোর্টের আধা কিমি. পশ্চিমে সুউচ্চ পাহাড়ের মাটি কেটে বসতঘর নির্মাণ ও মাটি বিক্রি অব্যাহত রেখেছে। প্রতি ৪ শতক জায়গা ১ থেকে ২ লাখ টাকায় তারা দেশের নদী ভাঙ্গা হতদরিদ্র মানুষের কাছে বিক্রি করছে। পাহাড়ের ঢালের মাটি কেটে সমান করে টিন দিয়ে তৈরি করছে বসতঘর। ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করতে দেখা গেছে শত শত পরিবারকে। প্রশাসনিক তদারকি না থাকায় অবৈধভাবে পাহাড়ের ওপর ও ঢালে বসতি স্থাপন অব্যাহত রয়েছে। তথ্য নিয়ে জানা গেছে, গেল এক দশকে হাটহাজারীর পশ্চিমাঞ্চলীয় পাহাড়গুলোতে ভারি বর্ষণের কারণে পাহাড় ধসে বিভিন্ন সময়ে এ পর্যন্ত তিন শতাধিক লোকের প্রাণহানি ঘটে।

শীর্ষ সংবাদ:
অভিনেত্রী মঞ্জুষা নিয়োগীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার         মিয়ানমারে বেসামরিক নাগরিকদের সুরক্ষা একটি গুরুতর চ্যালেঞ্জ ॥ রাবাব ফাতিমা         প্রেস ক্লাবের সামনে বিএনপির নেতাকর্মীরা ॥ সতর্ক অবস্থানে পুলিশ         নীলফামারীতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস খাদে, আহত ৩২         পাক সরকারের রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার আসামির নাম মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নেই         ইমরান খানসহ তেহরিক নেতাদের বিরুদ্ধে দুটি মামলা         বালিয়াতলীর ফেরি পারাপার নয় বছর ধরে বন্ধ         মুশফিকের আউটের পর সাকিব নেমেই আক্রমনাত্মক         আজ থেকে ৪৪তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা শুরু হয়েছে         পেরুতে ৭ দশমিক ২ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প অনুভূত         গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় মারা গেছেন এক হাজার ৪১৩ জন         অবৈধ ক্লিনিকের দৌরাত্ম্য ॥ ভুল চিকিৎসায় প্রতিনিয়ত মৃত্যু         ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য উন্নত জীবন নিশ্চিত করতে চাই         জঙ্গী নেতা আবদুল হাই যেভাবে ১৭ বছর আত্মগোপনে ছিলেন         জামিনে মুক্ত দুর্ধর্ষ অপরাধীদের ওপর চলবে নজরদারি         পাচার করা অর্থ ফিরিয়ে আনলে সাধারণ ক্ষমা ॥ অর্থমন্ত্রী         সিরাজগঞ্জে ট্রাক-লেগুনা সংঘর্ষ ॥ নাটোরের ৫ কৃষি শ্রমিক নিহত         হজের খরচ বাড়ল ৫৯ হাজার টাকা         হার ঠেকানোর চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশের         বিনিয়োগ বাড়াতে নিরবচ্ছিন্ন সেবা দিচ্ছে বিডা