বুধবার ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৫ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

রাস্তা দখল করে স্থাপনা ॥ বন্দী দেড় শ’ পরিবার

নিজস্ব সংবাদদাতা, পাবনা, ২২ ফেব্রুয়ারি ॥ বেড়া উপজেলার পুরান ভারেঙ্গা ইউনিয়নের হরিরাথপুর গ্রামের পুকুরচালা হিন্দু পাড়ায় চলাচলের রাস্তা না রেখে দোকানপাট ও অফিস নির্মাণ করায় বসবাসরত দেড় শতাধিক হিন্দু পরিবারের প্রায় ৫০০ সদস্য প্রতিদিন নানা দুর্ভোগের শিকার হয়ে বাড়িতে যাতয়াতে বাধ্য হচ্ছে। সরকারী জায়গা দখল করে এ সব স্থাপনা নির্মাণ করায় এসব পরিবার দেড় ফুট রাস্তা দিয়ে বাড়িতে ঢুকতে হচ্ছে। একজন ঢুকতে গেলে অন্যজনকে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন মহলে ধর্ণা দিলেও কোন সুরাহা হচ্ছে না।

জানা যায়, বেড়া উপজেলার আমিনপুর থানার পুরান ভারেঙ্গা ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড হরিরাথপুর গ্রামের পুকুরচালা পাড়ায় একটি প্রভাবশালী মহল এলকাবাসীর যাতায়াতের রাস্তা না রেখে দোকানঘর, গুদামঘর ও অফিসঘর নির্মাণ করেছে। ওই এলাকার দেড় শতাধিক হিন্দু পরিবারের পাঁচ শতাধিক মানুষের বসবাস। এলাকাবাসীর অভিযোগ, প্রভাবশালীরা সরকারী জায়গা দখল করে দোকান, গুদামঘর ও অফিস নির্মাণ করায় তারা বাড়িতে স্বাভাবিকভাবে যাতায়াত করতে পারছে না। ভ্যান চলাচলের রাস্তা না থাকায় তারা নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রি করতে হাট-বাজারেও যেতে পারে না। দেড় ফুট রাস্তা দিয়ে একজন কোন রকমে বের হতে পারলেও কোন আসবাবপত্র অথবা একসঙ্গে একাধিক ব্যক্তি চলাচল করতে পারে না। কোন মানুষ অসুস্থ বা মারা গেলে তাকে তিন জন মিলে মাথার উপরে করে এলাকা থেকে বের করতে হয়। এলাকাবাসীর অভিযোগ সবাই বিষয়টি জানালেও দখলকারীরা প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া যাচ্ছে না।

ওই পাড়ার প্রবীণ বাসিন্দা তারাপদ দাস জানান, বাপ-দাদার আমল থেকে দেখেছি এখানে ১০ ফিটের একটি মূল রাস্তা ছিল কিন্তু পর্যায়ক্রমে প্রভাবশালীরা সেই রাস্তা দখলে নিয়ে কয়েকটি আধা পাকা ও পাকা ইমারত নির্মাণ করেন। একশত ফিট লম্বা রাস্তা বর্তমানে দখল করায় চওড়ায় দেড় ফিটে দাঁড়িয়েছে। ওদের (প্রভাবশালীদের) জায়গা তো দুই শতাংশ করে কিন্তু দখলে নিয়ে আছে ছয়-সাত শতাংশ । আর এক স্থাপনা নির্মাণকারী আবদুুল আউয়াল জানান, এই রাস্তার বিষয়ে ওরা সবাই সাবেক এমপির কাছে বলেছিল তাই আমি তার কথামতোই আধাফিট জায়গা রেখেই ঘর তুলেছি। পাশের জায়গার মালিক যদি জায়গা না রাখে তাহলে আমার কিছু করার নেই। পুরান ভারেঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কে এম রফিকুল্লাহ বলেন, পুকুরচালা এলাকায় বসবাসরত হিন্দু সম্পদ্রায়ের মানুষগুলোর জন্য সত্যিই চলাচলের জন্য কোন রাস্তা নেই। যা আছে তা দেড় ফিটের বেশি হবে না। কমপক্ষে চার ফিট চওড়া রাস্তা হলে ভাল হয়। যাদের ঘর আছে তাদের ভাঙ্গার জন্য সময় দিতে হবে। অচিরেই এ সমস্যা সমাধানের জন্য কাজ শুরু করা হবে।

শীর্ষ সংবাদ:
মাঙ্গিপক্স ভাইরাসের বিস্তার ঠেকানো সম্ভব ॥ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা         ধামরাইয়ে অগ্নিকাণ্ডে ১২টি ঘর পুড়ে ছাই         পদ্মা সেতু হওয়ায় বিএনপির বুকে বড় জ্বালা ॥ কাদের         সাড়ে তিন কোটি টাকা আত্মসাত করেন চক্রটি         শাহরাস্তিতে ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে হোটেলে, নিহত ১         নিত্যপণ্যের দাম বাড়ছে কিন্তু আমার আয় বাড়েনি         সংযুক্ত আরব আমিরাতেও প্রথম মাঙ্কিপক্স আক্রান্ত রোগী শনাক্ত         জো বাইডেন এশিয়া ছাড়তেই তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে উত্তর কোরিয়া         বাগেরহাটে ট্রলির ধাক্কায় নারীসহ নিহত ৩         প্রচন্ড বৃষ্টিতে মিরপুর টেস্টের দ্বিতীয় সেশনের খেলা শুরু হতে পারেনি         যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের স্কুলে বন্দুকধারীদের গুলিতে ১৯ শিশুসহ ২১ জন নিহত         ঢাকায় সার্বিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী         মানবতা-সাম্য-দ্রোহের কবি নজরুল ॥ প্রধানমন্ত্রী         কাজী নজরুলের সমাধিতে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের শ্রদ্ধা         হালদায় আবারো মৃত ডলফিন         ইভিএম বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে বৈঠকে ইসি