বুধবার ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

প্রথম সেশনের ব্যাটিং গুরুত্বপূর্ণ ॥ মাকুনুরা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ব্যাটিংয়ে নামার পর বাংলাদেশ দল মাত্র ২৬ রানেই ৩ উইকেট হারিয়েছিল। ম্যাচের প্রথম সেশন ছিল সেটি। কিন্তু এরপরও প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেটে ৫২২ রানে ইনিংস ঘোষণা করেছে। এর পেছনে বড় দুটি জুটি মূল ভূমিকা রেখেছে এবং জিম্বাবুইয়ের বোলাররাও ভাল করতে পারেনি। এমনটাই মনে করছেন জিম্বাবুইয়ের ফিল্ডিং কোচ শেফার্ড মাকুনুরা। এখনও ম্যাচ দু’দলের জন্য সাম্যাবস্থানেই আছে দাবি করে মাকুনুরা জানান, আজ প্রথম সেশনটায় জিম্বাবুইয়ের ব্যাটিং পারফর্মেন্স অনেক জরুরী। চলমান মিরপুর টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রথম ইনিংসে বড় সংগ্রহ পেয়েছে বাংলাদেশ দল। চতুর্থ ও অষ্টম উইকেটে নতুন জুটির রেকর্ডও গড়েছে তারা। তাই ২৬ রানে ৩ উইকেট হারালেও বড় সংগ্রহ হয়েছে। এ বিষয়ে মাকুনুরা বলেন, ‘এটা ক্রিকেটের অংশ। এমন ধরনের ব্যাপারগুলো অহরহই ঘটে। ক্রিকেটে শুরুর দিকে কিছু উইকেট আপনি নিতেই পারেন, কিন্তু টেস্ট ক্রিকেটে পথটা পাড়ি দিতে জুটি গড়া অবধারিত।’ এর পেছনে দলের বোলিং পারফর্মেন্স খারাপ হওয়াটাকেও কারণ হিসেবে দেখছেন তিনি। মাকুনুরা বলেন, ‘আমার মনে হয় না আমরা তেমন ভাল বোলিং করেছি, কিন্তু আমি সেটাকে আত্মতুষ্টির গ-িতে ফেলতে চাই না। কেউ সে অবস্থায় ছিল না। কিন্তু যেমনটা উচিত ছিল আমরা তেমন বোলিং করতে পারিনি, তবে আমাদের অবশ্যই বাংলাদেশী ব্যাটসম্যানদের কৃতিত্ব দিতে হবে।’

এরপরও ম্যাচে সমান অবস্থানেই আছে দু’দল এমন দাবি করলেন মাকুনুরা। কিন্তু নিজেদের অবস্থান দৃঢ় করতে নিজেদের কার্যক্রম নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় খেলাটি এখন পর্যন্ত সাম্যাবস্থানেই আছে। সবকিছুই নির্ভর করছে আমরা আগামীকাল (আজ) কিভাবে ব্যাট করব তার ওপর, বিশেষ করে প্রথম সেশনে। আমরা যদি প্রথম সেশনে নিয়ন্ত্রণ করতে পারি, সেক্ষেত্রে আমরা নিজেদের অবস্থানই কিছুটা সহজ করতে পারব। আমাদের অনেক বেশি ব্যাটিং করতে হবে। আমাদের ব্যাটসম্যানরা তার (মুশফিক) কাছ থেকে দুয়েকটি বিষয় শিখতে পারে যে কিভাবে তার মতোই আমরা এই পিচে খেলার জন্য নিজেদের প্রয়োগ করব।’

শীর্ষ সংবাদ:
ফোর্বসের প্রভাবশালী নারীর তালিকায় ৪৩তম শেখ হাসিনা         খুব শীঘ্রই খালেদার বিদেশে চিকিৎসার বিষয়ে সিদ্ধান্ত : আইনমন্ত্রী         ভারতের প্রতিরক্ষাপ্রধানকে নিয়ে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩         করোনা : একদিনে ৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৭৭         স্কুলে ভর্তির আবেদনের সময় বাড়ালো মাউশি         বিশ্বের কোনও গণতন্ত্রই নিখুঁত নয় : শিক্ষামন্ত্রী         আবরার হত্যা ॥ রায় দ্রুত কার্যকরের দাবি         আবরার হত্যা ॥ যাদের ফাঁসি ও যাবজ্জীবনের রায় হলো         ‘জাওয়াদের প্রভাবে বাড়তে পারে ডেঙ্গু’         ভারতের সাথে সড়ক পথে যাতায়াত চালু করা হবে : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী         রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরে গড়ে তোলা হবে কেন্দ্রীয় বাণিজ্যিক অঞ্চল : মেয়র তাপস         জঙ্গি সংগঠন বাংলা টিমের পলাতক আসামি গ্রেফতার         কর্মক্ষেত্রে যৌন হয়রানি বন্ধে ছয় দফা দাবি         চাঁপাইনবাবগঞ্জ-সোনামসজিদ পর্যন্ত রেলপথ সম্প্রসারণ নির্মাণ কাজ চূড়ান্ত ॥ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী         মহিলা হোস্টেলসহ ৮ স্থাপনা উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী         ছাত্রদল থেকেই এসব শিখে এসেছে মুরাদ ॥ হানিফ         পিপিপিতে হবে ঢাকার ইস্ট-ওয়েস্ট এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে         রায় কার্যকর হলে আরও খুশি হব ॥ আবরারের বাবা         বিএসএফ নির্যাতনে মৃত ভারতীয় যুবকের লাশ ধরলা নদীতে ভেসে উঠল         ডেঙ্গু : একদিনে হাসপাতালে আরও ৬০ রোগী হাসপাতালে