ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৫ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

চলে গেলেন শিল্পী নভোচারী বিন

প্রকাশিত: ০৬:৩৭, ২৯ মে ২০১৮

চলে গেলেন শিল্পী নভোচারী বিন

চাঁদের বুকে হাঁটা চতুর্থ মানব এ্যালান বিন ৮৬ বছর বয়সে মারা গেছেন। তিনি নাসার এ্যাপোলো কর্মসূচীর সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। নভোচারীর জীবন থেকে অবসর নেয়ার পর তিনি ছবি আঁকায় মনোযোগ দেন। শনিবার হিউস্টন মেথোডিস্ট হসপিটালে তিনি মারা যান। পারিবারিক সূত্রে নাসা তার মৃত্যুর খবরটি দেয়। নিউইয়র্ক টাইমস। ১৯৬৯ সালের নবেম্বরে এ্যাপোলো ১২ মিশনে বিন চাঁদের পিঠে হাঁটেন। তার আগে চাঁদে হাঁটেন পিট কনরাড। নেইল আর্মস্ট্রং ও বাজ অলড্রিন চাঁদে অবতরণের চার মাস পরের ঘটনা এটি। এ্যাপোলো ১১ এর সাফল্যে অনুপ্রাণিত হয়ে একই বছর এ্যাপোলো ১২ মিশন পাঠানো হয়। তবে পরের মিশনে চাঁদের অনেকটা বড় অংশ সম্পর্কে তথ্য উদঘাটিত হয়েছিল। এ্যাপোলোর মিশনগুলোতে মোট ১২ নভোচারী চাঁদে হাঁটেন। ১৯৭৩ সালে বিন আবারও মহাকাশ মিশনে অংশ নেন। তার এবারের মিশন ছিল স্কাইল্যাব। স্কাইল্যাব গবেষণাগারটি ছিল আন্তর্জাতিক মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রের (আইএসএস) প্রথম নমুনা। ওই মিশনে নভোচারীরা ৫৯ দিন মহাকাশে কাটান। নেভির সাবেক টেস্ট পাইলট বিন ১৯৮১ সালে নাসা থেকে অবসরগ্রহণের পর পূর্ণকালীন শিল্প চর্চায় মন দেন। কল্পনাকে বাস্তবে রূপ দিতে তিনি হাতে তুলি নেন। বিনের অনেক সহনভোচারী অবসর জীবনে সময় কাটাতে ছবি আঁকাকে বেছে নিয়েছিলেন। ১৯৯৮ সালে প্রকাশিত এ্যাপোলো বইটিতে বিন স্মরণ করেন যে তার সহকর্মীদের প্রায় ৬০ শতাংশই মধ্য বয়সের সমস্যা মোকাবেলা করেছেন। এ্যান্ড্রু চাইকিনকে সঙ্গে নিয়ে বিন ওই বইটি লেখেন। ১৯৯৪ সালে এক সাক্ষাতকারে বিন বলেছিলেন, ‘প্রত্যেক নভোচারীর কল্পনায় একটি পৃথিবী থাকে।
monarchmart
monarchmart