ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ২৭ জানুয়ারি ২০২৩, ১৩ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

টি২০তে সাকিবের অনন্য রেকর্ড

প্রকাশিত: ০৬:২৭, ২৬ এপ্রিল ২০১৮

টি২০তে সাকিবের অনন্য রেকর্ড

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ক্লাব টি২০তে অনন্য এক রেকর্ড গড়লেন সাকিব আল হাসান। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে (আইপিএল) মঙ্গলবার সানরাইজার্স হায়দরাদের হয়ে বল হাতে প্রতিপক্ষ মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক রোহিত শর্মাকে সাজ ঘরে ফিরিয়ে ৩০০ উইকেট পূর্ণ করেন বাংলাদেশী তারকা অলরাউন্ডার। ৪০০০ রান আগেই হয়ে গিয়েছিল। তার সঙ্গে যোগ হলো বল হাতে ৩০০ উইকেট। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ডোয়াইন ব্রাভোর পর ইতিহাসের মাত্র দ্বিতীয় অলরাউন্ডার হিসেবে এমন অনন্য ‘ডাবল’-এর কৃতিত্ব দেখালেন সাকিব। ব্রাভো পেস বোলিং-অলরাউন্ডার, সুতরাং স্পিন বোলিং-অলরাউন্ডার হিসেবে সাকিবই প্রথম এই রেকর্ড গড়লেন। দারুণ এই অর্জনের দিনে মাত্র ১১৮ রানের পুঁজি নিয়েও মুম্বাইকে ৮৭ রানে গুঁড়িয়ে দিয়ে ৩১ রানের জয় পায় তার দল হায়দরাবাদ। ৬ষ্ঠ ওভারে ডাক পড়ে সাকিবের। নিজের দ্বিতীয় বলেই নেন উইকেট। তার বলে স্লিপে শিখর ধাওয়ানকে ক্যাচ দেন ২ রান করা রোহিত। দুনিয়াজুড়ে ফ্রেঞ্চাইজি লীগ খেলে বেড়ানো ক্যারিবিয়ান তারকা ডোয়াইন ব্রাভো ক্লাব টি২০তে এ পর্যন্ত রান করেছেন ৫৬০৭, উইকেট নিয়েছেন ৪১৭টি। সাকিবের ৩০০ উইকেটের পাশে রান ৪০৬৯। ব্রাভো ম্যাচ খেলেছেন ৩৮০টি, সাকিব অনন্য ‘ডাবল’ স্পর্শ করলেন ২৬০ ম্যাচে। ২৯২তম ম্যাচে এই ডাবল পূরণ করেছিলেন ব্রাভো। টি২০তে ৩০০ উইকেট ও ৩০০০ রানও আছে আর একজনেরই। ২৭৪ ম্যাচে ৩০০ উইকেট আর ৩ হাজার ৮৯৩ রান করেছেন সাবেক পাকিস্তান অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি। সবমিলিয়ে ৩০০ উইকেট শিকারি বোলারই মাত্র ৫ জন। ৩৪৮ উইকেট লঙ্কান পেসার লাসিথ মালিঙ্গার, ৩২১ উইকেট নিয়ে তাকে ধাওয়া করছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ স্পিনার সুনীল নারাইন। অবশ্য রেকর্ড গড়ার ম্যাচ ব্যাট হাতে ব্যর্থ সাকিব মাত্র ২ রান করে রান আউট হন। সাকিবের এমন কৃতিত্বে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ওইদিনই প্রতিপক্ষ মুম্বাইয়ের হয়ে খেলা তার জাতীয় দল সতীর্থ মুস্তাফিজুর রহমান, ‘মাঠে আমাদের আরেকটি কঠিন দিন গেল। কিন্তু ভাল লাগছে টি২০তে বাঁ-হাতি স্পিনার হিসেবে প্রথম সাকিব ভাই ৩০০ উইকেটের দেখা পেলেন এবং দ্বিতীয় অলরাউন্ডার হিসেবে ৪০০০ রানের পাশাপাশি ৩০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করলেন।’ টুইটারে লিখেছেন দ্য ফিজ। ম্যাচেও হয়েছে আরও রেকর্ড। দুই দল মিলে রান করেছে মাত্র ২০৫। আইপিএলের একই ম্যাচে দুই দলের অলআউট হওয়ার মাত্র তৃতীয় ঘটনা এটি। এর আগে ২০১০ সালে ডেকান চার্জার্সের বিপক্ষে ১৯.৫ ওভারে ১৫৯ রানে অলআউট হয় রাজস্থান রয়্যালস। জবাবে ১৯.৪ ওভারে ১৫৭ রানে গুটিয়ে যায় ডেকান। এছাড়া গত আসরে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর বিপক্ষে ১৯.৩ ওভার ব্যাট করে ১৩১ রানে থামে কলকাতা নাইট রাইডার্সের ইনিংস। জবাবে মাত্র ৯.৪ ওভারে আইপিএল ইতিহাসের সর্বনিম্ন ৪৯ রানে গুটিয়ে যায় বিরাট কোহলি, ক্রিস গেইল, এবি ডি ভিলিয়ার্সদের বেঙ্গালুরু। আর তৃতীয় ঘটনা হিসেবে নাম লেখালো সানরাইজার্স-মুম্বাই ম্যাচটি। এছাড়াও আইপিএল ইতিহাসে ১১৮ রানের কম ডিফেন্ড করে জেতার রেকর্ড আছে মাত্র একটি। ২০০৯ সালে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে মাত্র ১১৬ রান করে ২৪ রানের ব্যবধানে ম্যাচ জিতেছিল চেন্নাই সুপার কিংস। আর মঙ্গলবার ১১৮ রান করে ম্যাচ জিতে এই তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে নাম উঠিয়েছে হায়দরাবাদ।
monarchmart
monarchmart