ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

লিভারপুলকে রুখে দিল এভারটন

প্রকাশিত: ০৬:৪৬, ৮ এপ্রিল ২০১৮

লিভারপুলকে রুখে দিল এভারটন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে লিভারপুলকে রুখে দিয়েছে এভারটন। শনিবার নিজেদের মাঠে মার্সিসাইড ডার্বিতে গোলশূন্য ড্র করেছে দুই দল। এর ফলে প্রিমিয়ার লীগের মার্সিসাইড ডার্বিতে টানা ১৫ ম্যাচে জয়বঞ্চিত থাকল এভারটন। অন্যদিকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে টপকে সাময়িকভাবে হলেও লীগ টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে উঠার সুযোগ হারাল জার্গেন ক্লপের দল। গত সপ্তাহে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে ম্যানচেস্টার সিটিকে আতিথ্য দিয়েছিলেন লিভারপুল। গুরুত্বপূর্ণ সেই ম্যাচে রীতিমতো উড়িয়েই দিয়েছিল প্রতিপক্ষকে। মৌসুমের শুরু থেকেই উড়তে থাকা ম্যানচেস্টার সিটিকে এদিন ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করে জার্গেন ক্লপের দল। শনিবার ম্যানচেস্টার ডার্বিতে জয় পেলে পেপ গার্ডিওলার শিষ্যরা ইতোমধ্যেই লীগ শিরোপা জয়ের উৎসব করে ফেলার কথা। তাই লিভারপুল এবার ভিন্ন পথে হেঁটেছে। লীগ থেকে চোখ সরিয়ে দৃষ্টি দিয়েছে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে। মার্সিসাইড ডার্বির দিকে তাকালেই তার প্রমাণটা সুস্পষ্ট হয়ে ওঠে। কেননা এভারটনের মাঠে শনিবার পাঁচ পরিবর্তন করে খেলতে নামেন জার্গেন ক্লপ। ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের সর্বোচ্চ ৩৮ গোলদাতা মোহাম্মদ সালাহকে ছাড়াই এদিন খেলতে নামে অলরেডরা। শুধু তাই নয়, রবার্তো ফিরমিনোকেও সাইড বেঞ্চে বসিয়ে রাখেন সাবেক বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের অভিজ্ঞ কোচ। দলের সেরা দুই তারকা মোহাম্মদ সালাহ এবং রবার্তো ফিরমিনোকে ছাড়াও প্রথমার্ধে বেশ ভালভাবেই লড়াই করেছে সফরকারীরা। তবে পারফর্মেন্সের সেই ধারাবাহিকতা আর ধরে রাখতে পারেনি দ্বিতীয়ার্ধে। এর ফলে বেশ কয়েকটি সুযোগ পায় এভারটন। সবমিলিয়ে চারটি সহজ গোলের সুযোগ মিস করে ওয়েন রুনির দল। যে কারণেই শেষ পর্যন্ত গোলশূন্য ড্রয়ে শেষ হয় এই মার্সিসাইড ডার্বি। এই ম্যাচে ড্র করায় ৩৩ ম্যাচ থেকে লিভারপুলের সংগ্রহ ৬৭ পয়েন্ট। অন্যদিকে এভারটন আছে লীগ টেবিলের নবম স্থানে। অলরেডদের সমানসংখ্যক ম্যাচ খেলে তাদের সংগ্রহে ৪১ পয়েন্ট। জার্গেন ক্লপের অধীনে চলতি মৌসুমের শুরু থেকেই দুর্দান্ত গতিতে ছুটছে লিভারপুল। এর পেছনে বড় ভূমিকা মোহাম্মদ সালাহর। আগুনে ফর্মে আছেন মিসরীয় ফরোয়ার্ডের। এরই মধ্যে ৩৮ গোল করে ফেলেছেন তিনি। তার এ ফর্ম হুমকিতে ফেলেছে লিওনেল মেসি আর ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোকেও। নানা পুরস্কারের দৌড়ে ফুটবলের সেরা দুই তারকার প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে দাঁড়িয়েছেন তিনি। সাবেক ওয়েলস ফরোয়ার্ড ইয়ান রাশ মনে করেন, এ ফর্ম ধরে রাখতে পারলে অচিরেই মেসি-রোনাল্ডোর সমপর্যায়ে চলে যাবে সালাহ। উল্কার গতিতে ছুটছিল ম্যানচেস্টার সিটি। হারতেই ভুলে যাচ্ছিল দলটি। অথচ চ্যাম্পিয়ন্স লীগের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে তাদের থামিয়ে দিল অলরেডরা। এর নেপথ্যে কারিগর ছিলেন সালাহ। নিজে করার পাশাপাশি সতীর্থদের দিয়ে গোল করাতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন তিনি। ইয়ান রাশ বলেন, তার পারফর্মেন্সে আমি অভিভূত। আগে যদি কেউ বলতো সে এক মৌসুমে ৩০ গোল করবে; তবু হাসতাম। অথচ এরই মধ্যে তা করে ফেলেছে সে। বিষয়টি সত্যিই বিস্ময়কর। ওয়াটফোর্ডের বিপক্ষে লিভারপুলের ম্যাচটিও দেখেছি আমি। ওই ম্যাচে বাঁ পায়ের ফুটবলার করল কিনা ৪ গোল। সত্যিই অসাধারণ। পেশাদারী ফুটবলে দেড় দশকেরও (১৯৮০-’৯৬) বেশি সময় ধরে লিভারপুলের হয়ে মাঠ মাতিয়েছিলেন রাশ। অলরেডদের অনেক ইতিহাসের সাক্ষী তিনি। ফুটবলের কালেরও প্রত্যক্ষদর্শী। কিংবদন্তি এ ফুটবলার বলেন, কোন সন্দেহ নেই, মেসি-রোনাল্ডো বিশ্বের সেরা দুই ফুটবলার। বছরের পর বছর অক্লান্ত পরিশ্রম করে ঘষেমেজে এ চূড়ায় নিজেদের বসিয়েছেন তারা। যদি সালাহর কথা বলেন, তাহলে বলবো; সে তাদের সমপর্যায়ে পৌঁছে যাচ্ছে। ও বার্সা-রিয়াল সুপারস্টারদের মতো পারফেক্ট ফুটবলার।
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২