বুধবার ১৩ মাঘ ১৪২৭, ২৭ জানুয়ারী ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

হত্যা মামলা প্রত্যাহার না করায় দুই পরিবার তিন মাস ধরে ‘‘এক ঘরে’’

হত্যা মামলা প্রত্যাহার না করায় দুই পরিবার তিন মাস ধরে ‘‘এক ঘরে’’

নিজস্ব সংবাদদাতা, টাঙ্গাইল ॥ টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলার ডুবাইল গ্রামে হত্যা মামলা প্রত্যাহার না করায় দুটি পরিবারকে তিন মাস ধরে ‘‘এক ঘরে’’ করে রেখেছেন মাতাব্বররা। পরিবার দুটির সাথে গ্রামের কাউকে সম্পর্ক রাখতে দেয়া হচ্ছে না। মাতাব্বরদের চাপে এলাকার দোকান-পাট থেকেও তাদের কাছে কোন পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে না।

ডুবাইল গ্রামবাসী জানায়, গত (১৭ ফেব্রুয়ারি) এই গ্রামের ইয়াসিন মিয়া (৫৩) নামক এক ব্যক্তি পুর্ব শত্রুতার জের ধরে খুন হন। ঘটনার পর তার ছেলে শহিদুল ইসলাম বাদি হয়ে ওই গ্রামের ১২জনকে আসামী করে দেলদুয়ার থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার কিছুদিন পর থেকেই মামলার আসামীদের পরিবারের লোকেরা গ্রামের মাতাব্বরদের দিয়ে মামলা প্রত্যাহারের জন্য নিহত ইয়াসিন মিয়া ও তার বড় ভাই মৃত মোকসেদ আলীর পরিবারের সদস্যদের উপর চাপ দিতে শুরু করে। কিন্তু মামলা প্রত্যাহারে রাজি না হওয়ায় ইয়াসিন মিয়ার ছেলে শহিদুল ইসলাম, ভাতিজা আসাদুল ইসলাম ইমনকে হত্যার হুমকি দেয়। তারা আসাদুলদের একটি ঘরে আগুন দেয় এবং তাদের বাড়ির পাঁচটি কুকুর মেরে ফেলে।

এ অবস্থায় নিহত ইয়াসিন মিয়ার ভাতিজা আসাদুল ইসলাম বাদি হয়ে গত (৬ জুন) জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালতের সমন হাতে পেয়ে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে হত্যা মামলার আসামী ও তাদের আত্মীয়স্বজনরা। তারা একত্রিত হয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য কামরুল মিয়া, এলাকার প্রভাবশালী রজব ভ্ইূয়া, জালাল ভূইয়াসহ স্থানীয় মাতাব্বররা গত (২৮ জুলাই) গ্রামের মসজিদে সভা করে। তারা সিদ্ধান্ত দেন নিহত ইয়াসিন মিয়া ও তার বড়ভাই মৃত মোকছেদ আলীর পরিবারকে ‘‘এক ঘরে’’ করার। গ্রামের প্রত্যেক বাড়িতে বাড়িতে জানিয়ে দেয়া হয় এই দুই পরিবারে সাথে কেউ যেন সম্পর্ক না রাখেন। গ্রামের মসজিদে নামাজ পড়া নিষেধ করা হয়। এলাকার দোকানগুলোতেও বলে দেয়া হয়েছে যেন ওই দুই পরিবারের কাছে কিছু বিক্রি না করে। ফলে দুটি পরিবারের সদস্যদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যাহত হচ্ছে। মানসিক নির্যাতনের শিকার হচ্ছে তারা।

ডুবাইল গ্রামে গিয়ে কথা হয় ওই দুই ‘‘এক ঘরে’’পরিবারের সদস্যদের সাথে। নিহত ইয়াসিন মিয়ার ছেলে শহিদুল ইসলাম জানান, পিতা হত্যার বিচার চেয়ে আজ আমরা নির্যাতিত হচ্ছি। আসামীরা আমাদের এক ঘরে করেছে। শহিদুলের মা আসমা বেগম জানান, হত্যাকারিরা প্রভাবশালী। তাই তারা মামলা তুলে নেয়ার জন্য এক ঘরে করে চাপ সৃষ্টি করছে। গ্রামের কেউ তাদের বিরুদ্ধে কথা বলতে সাহস পায় না। তাই তাদের কথা সবাই মেনে নিয়েছে। নিহত ইয়াসিন মিয়ার ভাতিজা আসাদুল ইসলাম জানান, গত কোরবানীর ঈদে তাদের গ্রামের ঈদগাঁয় নামাজ পড়তে দেয়া হয়নি। দোকানপাটে কিছু কিনতে গেলে দোকানীরা মাতাব্বরদের ভয়ে কিছু বিক্রি করে না তাদের কাছে। আসাদুলের মা বেদেনা বেগম জানান, তার ছোট ছেলে গ্রামেই প্রাইভেট পড়ত। তাকে সেখানেও পড়তে দেয়া হচ্ছে না। এ অবস্থায় মানসিকভাবে নির্যাতিত হচ্ছেন তারা।

ডুবাইল গ্রামের বাবুল স্টোর নামক মনোহারি দোকানের বাবুল ভূইয়া জানান, ইয়াসিন মিয়া ও মোকসেদ আলীর পরিবারের কাছে কোন কিছু বিক্রি করতে নিষেধ করেছে সমাজের মাতাব্বররা।

এ প্রসঙ্গে ইউপি সদস্য কামরুল মিয়া জানান, নিহত মোকসেদ মিয়ার ভাতিজা আসাদুল তাদের পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে আদালতে যে মামলা করেছে তাতে গ্রামের মানুষদের হয়রানি করা হয়েছে। তাই সমাজের সবাই তাদের সাথে সম্পর্ক না রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

অপর মাতাব্বর জালাল ভূইয়া জানান, ওই দুই পরিবার তাদের মতো থাকবে, আমরা আমাদের মতো থাকব। তাদের সাথে আমাদের কোন সম্পর্ক থাকবে না। এটাই সমাজের সিদ্ধান্ত। দেলদুয়ার উপজেলার ডুবাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইলিয়াস মিয়া জানান, তিনি এক ঘরে করার ঘটনাটি শুনেছেন।

করোনাভাইরাস আপডেট
বিশ্বব্যাপী
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
১০০৩৩৭০৯০
আক্রান্ত
৫৩২৯১৬
সুস্থ
৭২৩৮৫৬৮৩
সুস্থ
৪৭৭৪২৬
শীর্ষ সংবাদ:
নৌকা ধানের শীষে যুদ্ধ ॥ আজ চসিক মেয়র পদে দলীয় প্রতীকে প্রথম ভোট         টিকা শুরু আজ ॥ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী         সম্মুখসারির করোনা যোদ্ধাদের কথা         দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পাচ্ছেন হাজার হাজার নিরপরাধ মানুষ         দেশে করোনায় আক্রান্ত, মৃত্যু ও শনাক্ত কমেছে         এইচএসসির ফল প্রকাশে গেজেট জারি         ভ্যাকসিন নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াবেন না ॥ কাদের         প্রধানমন্ত্রীর সাহসী নেতৃত্বে মানুষ আশাবাদী হয়ে উঠেছে         কর আদায় বাড়াতে ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ তৈরি করুন         ’৭১-এর গণহত্যার স্বীকৃতির উদ্যোগ ধামাচাপা         চাল পেঁয়াজ আলুর দাম বৃদ্ধির ২৯ কারণ         উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পর নজরদারির পরামর্শ         বাইডেনের প্রশাসনে আরেক বাংলাদেশী         ৩টি বিলে রাষ্ট্রপতির অনুমোদন         আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে দেশব্যাপী টিকাদান কার্যক্রম শুরু : স্বাস্থ্যমন্ত্রী         খুলনায় ভূমিমন্ত্রী উদ্বোধন করলেন দেশের প্রথম ডিজিটাল ভূমি ব্যাংক         বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক উন্নত করতে চাইলে খুনি রাশেদকে ফেরত দিন : পররাষ্ট্রমন্ত্রী         নির্বাচন কমিশনের নতুন সচিব হুমায়ুন কবীর         আবারও বাসা-ভাড়াটিয়ার তথ্য নেবে ডিএমপি         করোনা ভাইরাসে আরও ১৪ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৫১৫