রবিবার ৫ আশ্বিন ১৪২৭, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

ঘরের দেয়ালে ঈদের আমেজ

  • শাকিল আহমেদ

আসছে ঈদ। চারদিকে চলছে প্রস্তুতি। গৃহিণীদের অন্দর সজ্জার প্রস্তুতি এর মধ্যে অন্যতম। বছরের অন্যতম সেরা উৎসব এই ঈদ উৎসব, আর ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে আসবেন আত্মীয়স্বজন এবং অতিথিগণ। কিভাবে সাজাবেন আপনার ঘর? আজ আমরা ঈদে অন্দর সজ্জা নিয়েই কথা বলব।

দেয়াল সাজুক রঙে

কত কল্পনা বুনি আমরা এই ঘরের দেয়ালে। কল্পনার রঙে দেয়াল সাজাতে আমাদের কার না ভাল লাগে। অল্প খরচে কিভাবে সাজাবেন আপনার অন্দরের দেয়াল? ওয়াল পেপার দিয়ে মুড়ে দিতে পারেন আপনার পুরনো দেয়াল। তবে পুরো ঘর ওয়াল পেপার দিয়ে ঢেকে দেয়াটা নিঃসন্দেহে ভাল কিছু হবে না।

ঈদের আগে বসার ঘর, সামনের রুমের দেয়াল টেক্সচার কিংবা এম্বোস জাতীয় ওয়াল পেপার দিয়ে মুড়ে দিতে পারেন। অন্য রুমের দেয়ালে জ্যামিতিক নক্সা, ছোট ছোট নান্দনিক ফুল, হালকা রং কিংবা প্রাকৃতিক দৃশ্যের ওয়াল পেপার ব্যবহার করতে পারেন। তবে ছোট ঘরের জন্য হিজিবিজি ওয়াল পেপার এড়িয়ে যান। রান্না ঘর এবং খাবার ঘরে ওয়াল পেপার ব্যবহার না করাই ভাল।

ঘরে ঢুকতেই যদি করিডর থাকে তবে করিডরের দেয়ালে মুখোশ বা ঝুলন্ত গাছ লাগাতে পারেন। আর দেয়ালে যদি ছবি থাকে তবে তার ওপরে “ট্র্যাক লাইট” দিয়ে আলো ফেললে অন্যরকম আবেদনের সৃষ্টি করে।

কোথায় পাবেন এবং দরদাম

রাজধানীর গুলশানে বাড়ির ফিটিংস পাওয়া যায় এমন দোকানে, হাতিরপুল, মহাখালীর উড়াল সেতুর নিচে কয়কটি দোকানে। ওয়াল পেপার বর্গফুট ও রোল হিসেবে বিক্রি করা হয়। প্রতি রোলের দাম ২০০০ থেকে ১০,০০০ টাকার মধ্যে আর বর্গফুট হিসেবে দাম পরবে ১২ থেকে ৫৫ টাকা পর্যন্ত।

অন্দরে আলোকসজ্জা

অন্দরের আলোকসজ্জা মনে প্রশান্তির অন্যতম কারণ। অল্প খরচে একটু বুদ্ধি খাটিয়ে আপনার বাসা করে তুলতে পারেন শান্তিময় নীড়। প্রথমেই আসা যাক প্রবেশ পথে। প্রবেশ পথের রুচিশীল পরিবেশ অতিথির মনে জন্ম দেবে আপনার সম্পর্কে একটি ইতিবাচক ধারণা। প্রবেশ পথে কম উজ্জ্বলতার এবং হালকা রঙের বাতি ব্যবহার করতে পারেন। এর দুই পাশের দেয়ালে চাইলে পেইন্টিং ঝুলাতে পারেন। পেইন্টিংয়ের ওপরে স্পটলাইট দিয়ে পেইন্টিংকে করতে পারেন আরও আবেদনময়।

বসার ঘরে উজ্জ্বল আলো ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়া ঘরের এক কোণে ল্যাম্পশেড, কর্নার কেবিনেট এবং শোকেসগুলোতে ব্যবহার করতে পারেন কম উজ্জ্বলতার আলোক বাতি।

অন্দর সাজুক জলে

একটু ঠা-া জল শরীরে শীতল পরশ এনে দেয়। এই গরমে শহুরে নাগরিকরা চান একটু শীতল পরশ। তাই ঘরে রাখতে পারেন জলের ফোয়ারা কিংবা ছোট বড় মাটির কিংবা কাচের পাত্রে কিছুটা পানি। অন্দর সজ্জায় পানির এই আয়োজন ঘরকে রাখে শীতল।

ঘরের এই জল সজ্জার রীতি বহু প্রাচীন, তবে এই জল সজ্জায় এখন যোগ হয়েছে কিছুটা শৈল্পিক প্রয়াস। মাটির বা কাচের পাত্রে পানি রেখে এতে ছিটিয়ে দিতে পারেন ফুলের পাপড়ি। কিংবা মাঝে দিতে পারেন একটা মোমের বাতিদান যা আপনার গৃহকে করে তুলবে আরও স্নিগ্ধ এবং মনোরম।

তবে যে ঘরেই পানির পাত্র রাখুন না কেন খেয়াল রাখবেন সে ঘরটিতে যেন পর্যাপ্ত আলো বাতাস প্রবেশ করতে পারে। নয় তো ঘরের দেয়াল স্যাঁতসেঁতে হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

আসবাবপত্রে ঈদের আমেজ

ঈদে আমাদের নিম্ন মধ্যবিত্ত, মধ্যবিত্ত এবং বিত্তবান গৃহিণীদের আসবাবপত্রের দিকে নজরটা থাকে একটু বেশি। অনেকেই আসবাবপত্রে পরিবরতন আনতে চান। পরিবর্তনটা যে খুব বড় হতে হবে এমন নয়, আপনি চাইলে খুব হালকা কিছু পরিবর্তনেও আসবাবপত্রে আনতে পারেন ঈদের আমেজ।

যেহেতু ঈদ গরমে সেহেতু আসবাবপত্রে রাখতে পারেন স্নিগ্ধতার আমেজ। সোফার কাভার, বিছানা চাদর, বালিশের কুশন, পর্দা ইত্যাদির কাপড় হতে পারে হালকা রঙের সুতি কাপড়। কুশন, বিছানা চাদর, পর্দা দেশী ঢঙের ব্লক প্রিন্ট, হাতের কাজ, বাটিক কিংবা কাটওয়ার্ক ইত্যাদির কিনতে পারেন। এতে ঘর বৈচিত্র্যময় যেমন হবে তেমনই সতেজ ভাবটাও থাকবে।

কোথায় পাবেন এবং দরদাম

নগরীর প্রায় সব শপিং কমপ্লেক্সেই কুশন, বিছানা চাদর, পর্দা ইত্যাদি পেতে পারেন। পর্দার দাম পড়বে ৬৫০ থেকে ২০০০ টাকা, কুশন কাভার ২০০ থেকে ৮০০ টাকা এবং বিছানা চাদর পরবে ৬৫০ থেকে ২০,০০০ টাকার মতো।

শীর্ষ সংবাদ:
সীতাকুণ্ডে ট্রাকের চাপায় এসআই নিহত         বুয়েটের আবরারের বাবা অসুস্থ, সাক্ষ্য গ্রহণ ৫ অক্টোবর         সংক্রমণ ছাড়াল ৫৪ লাখ ॥ জরুরি বৈঠক ডেকেছেন মোদি         করোনা ভ্যাকসিনের তথ্য চুরি করেছে চীনা হ্যাকাররা ॥ স্পেন         বাংলাদেশ ছাড়লেন ড. বিজন কুমার শীল         থাইল্যান্ডে রাজতন্ত্রের ক্ষমতা খর্ব করার দাবিতে বিশাল মিছিল         খালেদা জিয়ার আরও চার মামলার স্থগিতাদেশ আপিলে বহাল         স্বাস্থ্য অধিদফতরের গাড়ি চালক মালেককে আটক করেছে র‌্যাব         লকডাউনের পর উহানে দেখা দিয়েছে ভরসার নতুন সূর্য         সিরিয়ায় বাড়তি সেনা মোতায়েন ॥ ফের উত্তেজনা রাশিয়া-যুক্তরাষ্ট্রের         তালেবান ঘাঁটিতে বিমান হামলা ॥ নিহত ১২         করোনায় প্রতিটি মৃত্যুর দায় ট্রাম্পের ॥ জো বাইডেন         বিশ্বে করোনায় মৃত্যু সাড়ে ৯ লাখ ৫৫ হাজার         ট্রাম্পকে পাঠানো চিঠিতে রাইসিন বিষ         পৃথক পতাকা ও সংবিধানের দাবি এনএসসিএন’র ॥ নয়া বিড়ম্বনা মোদি         অস্ত্র কেনার সীমাবদ্ধতা অক্টোবরের শেষ নাগাদ উঠে যাবে ॥ ইরান         যুক্তরাষ্ট্রে পার্টিতে বন্দুকধারীর হামলা ॥ নিহত ২, আহত ১৪         নতুন চ্যানেল দিয়ে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে ফেরি চলাচল শুরু         ভারত মহাসাগরে চীনের জাহাজ, বাড়ছে উত্তেজনা         নির্দিষ্ট এলাকার বাইরে কল কারখানা নয়