ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯

পরিস্থিতি ভাল হলে পাকিস্তানে খেলতে চান সাকিব

প্রকাশিত: ০৪:৩১, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭

পরিস্থিতি ভাল হলে পাকিস্তানে খেলতে চান সাকিব

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ পাকিস্তানের হোমগ্রাউন্ড হয়ে গেছে আরব আমিরাত। এমনকি ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক টি২০ আসর পাকিস্তান সুপার লীগও (পিএসএল) সেই মরুর দেশেই অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এবার বিশ্বের অন্যতম অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান খেলেছেন পেশোয়ার জালমির হয়ে। এবার এ আসরের ফাইনাল হবে লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে। অবশ্য দলের হয়ে ফাইনাল খেলতে পারবেন না সাকিব। কারণ জাতীয় দলের হয়ে এখন তিনি শ্রীলঙ্কায়। কিন্তু ভবিষ্যতে পাকিস্তানের মাটিতে খেলার আশা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশী এ অলরাউন্ডার। তিনি প্রত্যাশা জানিয়েছেন অচিরেই পাকিস্তানের রাজনৈতিক অবস্থা স্বাভাবিক হয়ে যাবে এবং সব দেশের ক্রিকেটাররা সেখানে খেলতে যাবেন। দীর্ঘ ৮ বছর ধরে পাকিস্তানের মাটিতে বড় কোন জাতীয় ক্রিকেট দল সফর করেনি। ২০০৯ সালে পাকিস্তান সফররত শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের ওপর লাহোরে বন্দুকধারীদের হামলায় অন্যতম ব্যাটসম্যান থিলন সামারাবিরাসহ বেশ কয়েকজন গুলিবিদ্ধ হন। তারপর থেকে আর কোন টেস্ট খেলুড়ে দলই শুধু নয় কোন বিদেশী ক্রিকেট দলকেই নিজেদের দেশে নিতে পারেনি পাকিস্তান। অবশ্য, অনেক চেষ্টার পর ২০১৫ সালের মাঝামাঝি জিম্বাবুইয়ে ক্রিকেট দলকে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলার জন্য দেশে নিতে পেরেছিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। এরপরও কোন বড় টেস্ট খেলুড়ে দল পাক সফরে যেতে রাজি হয়নি। এ কারণে পিএসএল টি২০ অনুষ্ঠিত হচ্ছে আরব আমিরাতে। এ বিষয়ে সাকিব বলেন, ‘আশা করি আবার পাকিস্তানের পরিবেশ ভাল হবে, আবারও পাকিস্তানে খেলতে চাই।’ সর্বশেষ ২০০৮ সালে পাকিস্তানে খেলেছিলেন সাকিব। পিএসএলের প্রথম আসরের মতো, চলতি দ্বিতীয় আসরও হচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। গত আসরেও পিএসএল খেলেছিলেন সাকিব। সেবার পুরো আসর আরব আমিরাতে হলেও এবার পিসিবি জানিয়ে দিয়েছে, যা কিছুই ঘটুক, আগামী ৫ মার্চ লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে পিএসএলের ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। অবশ্য, সাকিবের দল পেশোয়ার জালমি ফাইনালে উঠলেও দলের সঙ্গে থাকবেন না সাকিব। কারণ এরই মধ্যে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল শ্রীলঙ্কার উদ্দেশে দেশ ছেড়েছে। ৭ মার্চ শ্রীলঙ্কার সঙ্গে টেস্ট খেলবে দল। তাই পিএসএল থেকে ফিরে ইতোমধ্যেই দলের সঙ্গে ঢাকা ছেড়েছেন সাকিব। পাকিস্তানে খেলার ইচ্ছা প্রকাশ করে সাকিব পাক সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি সর্বশেষ ২০০৮ সালে পাকিস্তানের মাটিতে খেলেছি। সেটা আমার জন্য দারুণ এক অভিজ্ঞতা ছিল। ওদের মাঠ, দর্শক, পরিবেশ, সমর্থক আর আবহাওয়া সবকিছুই দারুণ। যদি সবকিছু ঠিক হয়ে যায়, আমি সত্যিই আবার পাকিস্তানের মাটিতে খেলতে যেতে চাই।’ যদিও সেবার ওয়ানডে সিরিজে পাকিস্তানের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল বাংলাদেশ দল। কিন্তু একটি সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন সাকিব এবং ম্যাচসেরার পুরস্কারও জেতেন একটি ম্যাচে। বর্তমানে ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থাকা ২৯ বছর বয়সী এ অলরাউন্ডার মনে করেন পাকিস্তানের মাটিতেই পিএসএল হওয়া উচিত। তিনি বলেন, ‘যদি পাকিস্তানে পিএসএল হতো, তাহলে আমিরাতের থেকেও বেশি জমজমাট হতো। বর্তমানে পাকিস্তানের অবস্থা কিছুটা নাজুক কিন্তু আমি আশা করি এমনটা বেশিদিন থাকবে না। পাকিস্তানের পরিবেশ ভাল হবে আর সেখানে আরও আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট এবং সিরিজ আয়োজিত হবে। পিএসএলই পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরাতে সাহায্য করবে।’