মঙ্গলবার ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

কক্সবাজার থেকে হাতিয়ার ঠেঙ্গারচরে সরিয়ে নেয়া হচ্ছে রোহিঙ্গা ক্যাম্প

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ রোহিঙ্গা শরণার্থীদের কক্সবাজার থেকে হাতিয়া উপজেলার ঠেঙ্গারচরে সরিয়ে নেয়া হবে। সেখানের শরণার্থী ক্যাম্পে স্থান সংকুলান না হওয়ার কারণে রোহিঙ্গা ক্যাম্প সরিয়ে নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে সরকার। তবে রোহিঙ্গা ক্যাম্প সরিয়ে নেয়ার মাধ্যমে তাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়ায় কোন নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না। বুধবার পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এসব তথ্য জানান। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে বেশ কয়েকজন গণমাধ্যম কর্মীর মুখোমুখি হয়ে শাহরিয়ার আলম বলেন, কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ৩০ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা নাগরিক অবস্থান করছেন। তবে অক্টোবরের পর থেকে বাংলাদেশে নতুন করে প্রায় ৬৭ হাজার রোহিঙ্গা নাগরিক প্রবেশ করেছেন। এসব নাগরিকরাও ক্যাম্পে অবস্থান করছেন। সে কারণে সেখানে আর স্থান সঙ্কুলান হচ্ছে না। তাই রোহিঙ্গাদের সরিয়ে নিয়ে হাতিয়ার ঠেঙ্গারচরে নতুন আশ্রয় কেন্দ্রে নেবার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এখন আর কোনভাবেই স্থান সঙ্কুলান হচ্ছে না। ছোট জায়গার মধ্যে অনেক বেশি শরণার্থী অত্যন্ত অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের মধ্যে বসবাস করছেন। তাই মানবিক বিষয় বিবেচনা করেই তাদের হাতিয়ার ঠেঙ্গারচরের আশ্রয় কেন্দ্রে নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, কক্সবাজার থেকে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের হাতিয়ার চরে আশ্রয় কেন্দ্রে নিলে মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না। ফেরত পাঠানোর বিষয়ে যে আলোচনা চলছে, সেটা অব্যাহত থাকবে।

হাতিয়ার চরে রোহিঙ্গাদের শরণার্থী শিবিরের ব্যয় কিভাবে সংগ্রহ করা হবে এমন প্রশ্নের উত্তরে শাহরিয়ার আলম জানান, প্রাথমিকভাবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে অর্থ ব্যয় করা হবে। তবে আমাদের বিভিন্ন বন্ধু রাষ্ট্র রয়েছে। দাতা সংস্থা রয়েছে। তাদের সঙ্গে এ নিয়ে আলোচনা চলছে। আশা করি তারাও আমাদের সহায়তা করবে।

শাহরিয়ার আলম জানান, দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে বাস করছেন। তাই আমরা তাদের বিষয়টিকে অত্যন্ত মানবিক দিক থেকে দেখার চেষ্টা করছি। হাতিয়ার ঠেঙ্গারচরের আশ্রয় কেন্দ্রের বিষয়টিকেও মানবিক বিবেচনার দেখার জন্য সকলের প্রতি তিনি আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে প্রায় তিন লাখ রোহিঙ্গা বাস করছেন। এর বাইরেও কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ৩০ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা অবস্থান করছেন। আর গত ৯ অক্টোব সীমান্তে সহিংসতার ঘটনায় নতুন করে প্রায় ৬৭ হাজার রোহিঙ্গা নাগরিক বাংলাদেশে প্রবেশ করেছেন। কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এত রোহিঙ্গাদের স্থান সঙ্কুলান না হওয়ায় তাদের ঠেঙ্গারচরে সরিয়ে নেয়ার বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে সরকার।

শীর্ষ সংবাদ:
মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় তিন জনের রায় বৃহস্পতিবার         পদ্মা সেতুর টোল বাইক ১০০, কার ৭৫০ টাকা         জনগণের অর্থ ব্যয়ে সাশ্রয়ী হতে হবে ॥ প্রধানমন্ত্রী         জাতি চায় পদ্মা সেতু শেখ হাসিনার নামে হোক ॥ কাদের         ফের ১০ দিনের রিমান্ডে পি কে হালদার         বিআরটিএ অভিযান চালিয়ে গাড়ি থেকে খুলে নেওয়া হচ্ছে শব্দদূষণকারী হর্ন         বাধ্যতামূলক ছুটিতে ডিএসইর জিএম আসাদ         গম রপ্তানি নিষেধাজ্ঞা শিথিল করলো ভারত         ক্ষমতা কমানো হলো পরিকল্পনামন্ত্রীর         ‘বিদ্যুৎ-জ্বালানি খাতে বিনিয়োগকে সরকার উৎসাহিত করছে’ : বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী         ২ লাখ ৪৬ হাজার ৬৬ কোটির উন্নয়ন বাজেট অনুমোদন         দুই শিশুকে নিয়ে বিদেশে যেতে চেয়ে মায়ের আবেদন         শ্রীলঙ্কায় মাত্র একদিনের পেট্রোল মজুত আছে         এবারও ম্যাঙ্গো স্পেশাল ট্রেন চালু হচ্ছে ২২ মে         আশুলিয়ায় গণপিটুনিতে ছিনতাইকারী নিহত         অব্যাহত থাকবে ভ্যাপসা গরম         হালদায় আবারও ডিম ছেড়েছে মা মাছ