ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

নাসিক নির্বাচনে ৬৫ শতাংশ ভোট পড়েছে ॥ ব্রতী

প্রকাশিত: ০৫:৫৮, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৬

নাসিক নির্বাচনে ৬৫ শতাংশ ভোট পড়েছে ॥ ব্রতী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ইসির সুব্যবস্থাপনায় নারায়ণগঞ্জবাসী সরকারী হস্তক্ষেপমুক্ত একটি সফল নির্বাচন পেয়েছে উল্লেখ করে বেসরকারী নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংস্থা ব্রতীর প্রতিবেদনে বলা হয়েছ, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে এবার ভোট পড়েছে ৬৫ শতাংশ, যা অন্যান্য স্থানীয় নির্বাচনে প্রদত্ত ভোটের তুলনায় কিছুটা কম। কেন্দ্রে নারী ও সংখ্যালঘু ভোটারের উপস্থিতি ছিল যথেষ্ট। প্রতিটি কেন্দ্রে সর্বস্তরের ভোটারকে সুশৃঙ্খল ও শন্তিপূর্ণভাবে ভোট দিতে দেখা গেছে। নির্বাচনে কোন ধরনের বল প্রয়োগ, প্রভাব বিস্তার, অনিয়ম, সংঘাত বা সহিংসতার ঘটনা ঘটেনি। অধিকাংশ কেন্দ্রের ভেতর ও বাইরের পরিস্থিতি ছিল অত্যন্ত সুশৃঙ্খল। প্রায় সকল বুথে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর প্রতিনিধির উপস্থিতি দেখা গেছে। ভোটার ও এজেন্টদের কাছ থেকে ভোট গ্রহণ প্রক্রিয়ায় কোন ধরনের অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া যায়নি। শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর সাত মসজিদ রোডে ব্রতী কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির প্রাথমিক প্রতিবেদন উপস্থাপনকালে এসব তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ব্রতীর প্রধান নির্বাহী শারমিন মুর্শিদ। এ সময় ব্রতীর পরিচালক রঘুনাথ সাহা ও নির্বাচন পর্যবেক্ষণ সেলের শশাঙ্ক বরণ রায় উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, নাসিক নির্বাচনে ব্রতীর পর্যবেক্ষকদের সমন্বয়ে গঠিত ৩টি দলের মাধ্যমে মোট ২৯টি ওয়ার্ডের ১৭৪টি কেন্দ্রের মধ্যে ২১টি (৭২%) ওয়ার্ডের ৬০টি (৩৪%) কেন্দ্রে ভ্রাম্যমাণ পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে। এছাড়াও একটি দল নির্বাচনপূর্ব নির্বাচন চলাকালীন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ পর্যবেক্ষণ করে। পর্যবেক্ষণকৃত কেন্দ্রসমূহে ৬২০ পোলিং এজেন্ট ও নির্বাচনী কর্মকর্তার সঙ্গে এবং ২৪০ সাধারণ ভোটারের সঙ্গে কথা বলে নির্বাচন সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করা হয়। পর্যবেক্ষণে মূলত নির্বাচনী ব্যবস্থাপনা, ভোট গ্রহণ প্রক্রিয়া, নির্বাচন কেন্দ্র, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি, ভোটারদের অংশগ্রহণ, নারী ও সংখ্যালঘু ভোটারের উপস্থিতি, জালভোট ও নির্বাচনী পরিবেশকে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। লিখিত বক্তব্যে ব্রতীর প্রধান নির্বাহী শারমিন মুর্শিদ বলেন, এই নির্বাচনে যে জিতবে সেই নিঃসন্দেহে সব চাইতে কাক্সিক্ষত জনপ্রতিনিধি। জিতলেন সেলিনা হায়াত আইভী। তিনি জিতলেন এবং পরদিন মিষ্টি নিয়ে শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ জানাতে গেলেন প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর বাসায়। দু’জন মিলে অঙ্গীকার করলেন মিলেমিশে কাজ করার। নিঃসন্দেহে এটি একটি বড় প্রাপ্তি। তিনি বলেন, এই নির্বাচনের আগে ও পরে কোন সহিংসতা ছিল না। কোন ত্রাস বা ভয়ভীতির অভিযোগ আমরা পাইনি। সংখ্যালঘু ভোটাররা ভোট দিয়েছে নির্ভয়ে। প্রশাসন ও নিরাপত্তা বাহিনী নিরপেক্ষভাবে কাজ করছে। তাদের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগও আসেনি। জাল ভোটের অস্তিত্ব হারিয়েছে। ইসির সুব্যবস্থাপনা ও সরকারী হস্তক্ষেপমুক্ত একটি সফল নির্বাচন পেয়েছে নারায়ণগঞ্জবাসী।
monarchmart
monarchmart