ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২০ আগস্ট ২০২২, ৫ ভাদ্র ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

পাঁচ লাখ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভ্যাট নিবন্ধনের আওতায় আনতে হবে ॥ মুহিত

প্রকাশিত: ০৮:১০, ১২ ডিসেম্বর ২০১৬

পাঁচ লাখ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভ্যাট নিবন্ধনের আওতায় আনতে হবে ॥ মুহিত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ২০২১ সালের মধ্যে দেশের ৫ লাখ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ভ্যাটের আওতায় আনা হবে জানিয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ভ্যাটের পরিধি আরও বাড়াতে হবে। দেশে ৮০ লাখ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থাকলেও মাত্র ৫০ হাজার ভ্যাট নিবন্ধিত, যা অত্যন্ত লজ্জার। ২১’ সালের মধ্যে ৫ লাখ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ভ্যাট নিবন্ধনের আওতায় আনতে হবে। অর্থাৎ আগামী ৫ বছরে ৫ লাখ ভ্যাট নিবন্ধিত প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে। রবিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্মাণাধীন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের নতুন ভবনে জাতীয় ভ্যাট দিবস ও ভ্যাট সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত ‘রূপকল্প ২০২১ ও রূপকল্প ২০৪১’ বাস্তবায়নে ‘ভ্যাটের গুরুত্ব’ শীর্ষক সেমিনার এবং সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারীদের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে ভ্যাট অনলাইন প্রকল্পের মাধ্যমে এনবিআরের প্রথমবারের মতো চালু করা কল সেন্টারের অনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী। পরে সেমিনারের শেষ পর্যায়ে সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের হাতে ক্রেস্ট ও সনদ তুলে দেন তিনি। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমাদের সকলকেই রাজস্ব দিতে হবে, দেশের জনকল্যাণ করতে হলে রাজস্ব প্রয়োজন। আয়কর ও মূসক রাজস্ব আহরণের প্রধান দুটি খাত। জাতির জন্যে সবচেয়ে মঙ্গল হবে আয়কর যদি বেশি আদায় হয়। বর্তমানে মাত্র ৫০ হাজার প্রতিষ্ঠান ইসিআর ব্যবহার করে, এটা অত্যন্ত লজ্জার। আয়কর শনাক্তকরণের ক্ষেত্রে ২৫ লাখের যে লক্ষ্যমাত্রা ছিল তা আমরা পূরণ করতে সক্ষম হয়েছি। আশাকরি ২০২১ সালের মধ্যে ৫ লাখ ভ্যাট নিবন্ধিত প্রতষ্ঠানের প্রত্যাশাও পূরণ হবে। তিনি বলেন, কর দেয়া বাহাদুরির বিষয়। ২০২১ সালের মধ্যে ৫ লাখ প্রতিষ্ঠান ভ্যাটের আওতায় এসে আরেকটি বাহদুরির দৃষ্টান্ত স্থাপন করা হবে বলে আমার প্রত্যাশা। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, এনবিআরের উদ্দেশে আমার একটাই অনুরোধ, ভ্যাটকে সহনীয় পর্যায়ে আনুন। ভ্যাট পদ্ধতি এমন করতে হবে যাতে ব্যবসায়ীরা খুশি হয়। তাদের মাঝে কর দেয়ার উৎসাহবোধ বাড়াতে হবে। তাহলেই আমরা এগিয়ে যাব। তিনি বলেন, বর্তমানে আয়কর নিবন্ধনের সংখ্যা ২৫ লাখ ২০ হাজারে উন্নীত হয়েছে। যা আমাদের টার্গেটকেও ছাড়িয়ে গেছে।