মঙ্গলবার ১৩ আশ্বিন ১৪২৭, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

কর্মীদের ক্ষোভের মুখে রওশন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সরকারে শরিকানা থাকার পরও জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মামলা প্রত্যাহার না হওয়ায় তৃণমূলের নেতাকর্মীদের ক্ষোভের মুখে পড়েছেন বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। তিনি বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, 'আমার স্বামীর বিরুদ্ধে এতগুলো মামলা। আমার স্বামীর কষ্ট আমার চেয়ে আর কে বেশি বুঝবে?’

সোমবার রাজধানীর কাকরাইলে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে এরশাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত দলের যৌথসভায় এ ঘটনা ঘটে।

আগামী ১ জানুয়ারি জাপার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে দলের মহসমাবেশ সফল করতে সোমবারের যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে দলের কেন্দ্রীয় কমিটি ও জেলার নেতারা যোগ দেন। বক্তৃতা করেন কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন বাবলুসহ কেন্দ্রীয় নেতা ও দলের এমপিরা।

জাপার সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশনের বক্তৃতা চলাকালে দর্শক সারি থেকে কয়েকজন নেতা জানতে চান এরশাদের বিরুদ্ধে থাকা মামলা কবে প্রত্যাহার হবে? এ বিষয়ে বক্তব্য দিতে তারা রওশনকে অনুরোধ করেন। তবে বিরোধীদলীয় নেতা মামলার প্রসঙ্গে কথা না বলে বক্তব্য চালিয়ে যান। ক্ষুব্ধ কর্মীরা তখন আসন ছেড়ে মঞ্চের সামনে জমায়েত হয়ে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে স্লোগান দিতে শুরু করেন।

তৃণমূলের নেতাদের কয়েকজন রওশনের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আপনারা এরশাদের জাতীয় পার্টির নাম ব্যবহার করে এমপি হবেন, সরকারের সুবিধা ভোগ করবেন অথচ এরশাদের মামলা প্রত্যাহারের বিষয়ে নিশ্চুপ থাকবেন তা হবে না। মামলা প্রত্যাহার না হলে সরকারে থেকে কী লাভ!’

পরিস্থিতি শান্ত করতে জাপা মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার আসন থেকে উঠে মাইক নেন। তিনি কর্মীদের শান্ত থাকার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, ‘ম্যাডামের কথা আপনারা শুনুন। উনি সংসদে স্যারের মামলা প্রত্যাহারের বিষয়টি তুলবেন।’ এরশাদ তখন নিজ আসনেই নিরবে বসে ছিলেন।

রওশন এরশাদ এরপর বলেন, ‘মামলা প্রত্যাহারের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীকে না হলেও একশবার বলেছি। প্রধানমন্ত্রী করবো করবো বলেন।’ রওশন একপর্যায়ে কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘তোমরা তোমাদের নেতার জন্য কষ্ট পাও, কিন্তু উনি তো আমার স্বামী। আমার স্বামীর বিরুদ্ধে এতগুলো মামলা। আমার স্বামীর কষ্ট আমার চেয়ে আর কে বেশি বুঝবে?’

রওশন দলের নেতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘অনেকে বলেন আমরা কারো ক্ষমতা যাওয়ার সিঁড়ি হিসেবে ব্যবহৃত হবো না। আমাদের শক্তি নেই তাই আমরা ব্যবহার হই।’ আগামী নির্বাচনে জাপাকে যেনো কারো স্বার্থে ব্যবহৃত হতে না হয়, সেজন্য জাপাকে শক্তিশালী করতে দলের নেতাকর্মীর প্রতি আহ্বান জানান রওশন এরশাদ।

সভাপতির বক্তব্যে এরশাদ তার জন্য স্ত্রী রওশনের ত্যাগের কথা তুলে ধরেন। কর্মীদের বলেন, ‘বিনা দোষে তাকে (রওশন) তিনবছর কারাগারে রেখেছিল। সাথে মাসুম শিশুটিও ছিলো। ডিভিশন চাওয়া হয়েছিল, কিন্তু দেয়নি। জেলে থাকার কারণে ছেলেকে স্কুলে ভর্তি করতে পারে নাই। ছেলের জীবনটা ধ্বংস করলাম শুধু অন্ধকার কারাগারে থাকার কারণে।’

শীর্ষ সংবাদ:
সাহেদের যাবজ্জীবন ॥ আড়াই মাসেই অস্ত্র মামলায় রায়         আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই শেখ হাসিনার জন্মদিন পালন         বেসরকারী মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কলেজ আইনের খসড়া অনুমোদন         এ পর্যন্ত ৭ জন গ্রেফতার ৩ জন রিমান্ডে বিক্ষোভ, সমাবেশ         বিদেশী ঋণে জর্জরিত ঢাকা ওয়াসা         সুপ্রীমকোর্ট প্রাঙ্গণে মাহবুবে আলমকে শেষ শ্রদ্ধা         দেশে করোনা রোগী শনাক্তের হার বেড়েছে         দুর্ভোগ পিছু ছাড়ছে না সৌদি প্রবাসীদের         মুজিববর্ষে গৃহহীনদের ৯ লাখ ঘর দেবে সরকার         তদারকির অভাব নৌ যোগাযোগ খাতে         আজন্ম উন্নয়ন যোদ্ধার অপর নাম শেখ হাসিনা ॥ কাদের         অসময়ের বন্যায় ব্যাপক ক্ষতির মুখে কৃষক         মৌজা ও প্লটভিত্তিক ডিজিটাল ভূমি জোনিং ম্যাপ হচ্ছে         শেখ হাসিনার জন্মদিনে স্মারক ডাকটিকিট অবমুক্ত         নবেম্বরে আসতে পারে করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন ॥ স্বাস্থ্যমন্ত্রী         শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী করুন ॥ স্পিকার         কর্মের মধ্য দিয়ে দলের চেয়ে অধিক জনপ্রিয় শেখ হাসিনা ॥ কাদের         এমসি কলেজে ধর্ষণ ॥ সাইফুর, অর্জুন ও রবিউল রিমান্ডে         ঢাকা-১৮ ও সিরাজগঞ্জ-১ উপনির্বাচন ১২ নবেম্বর         শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলতে চাইলে মত দেবে মন্ত্রিসভা