ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

টুটুল মাহফুজ

এ্যন্টিক লুকের রুপার গহনা

প্রকাশিত: ০৩:৩৬, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬

এ্যন্টিক লুকের রুপার গহনা

একহাতে দু’খানা মোটা-সোটা বালা আর অন্য হাত খালি। এমনটাই চলমান ফ্যাশন। তবে সব রকমের গহনার মধ্যে এ্যন্টিক লুকের রুপার গহনার কদরই সবচেয়ে বেশি। বাঙালী মেয়ের পায়ে পায়ে ঘুরতে থাকা রুপাই এখন এ্যান্টিক লুকে গলায় কিংবা হাতে উঠে এসেছে। নারীর সাজসজ্জার অন্যতম উপকরণ গহনা। এটি প্রয়োজনীয় ফ্যাশন উপকরণ। নারীর ব্যক্তিত্ব এবং রুচির সঙ্গে তাল মিলিয়ে বিকশিত হয়েছে গহনার নকশা আর আকার আকৃতি। বাজারে সোনা আর হীরার কদর বেশি থাকলেও কালের বিবর্তনে সোনার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রুপার গহনার কদর বেড়েছে। বিশেষ করে গোল্ড প্লেটেড রুপার গহনা বর্তমানে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। এই তো কিছুদিন আগের কথা। তখনও রুপার গহনা মানেই সেকেলে ব্যাপার। বড়জোড় পায়ের তোড়া। এর বেশি রুপাকে গহনা হিসেবে গায়ে লাগানো হতো না। সময় গড়িয়েছে, পরিবর্তন এসেছে হাল ফ্যাশনে। একেবারে পেছন সারি থেকে সামনে চলে এসেছে রুপা গহনাগাটি। তাই কখনও অন্য কোন ধাতুর সঙ্গে মিলিয়ে মিশিয়ে, আবার কখনও স্টারলিং সিলভারেই গড়ে উঠছে রকমারী রুপার গহনা। আজকাল রুপার গহনা এমনভাবে তৈরি করা হচ্ছে যা অফিস হোক বা পার্টি, দেশীয় বা পাশ্চাত্য পোশাকে অনায়াসে মানিয়ে যাবে। এসব গহনা শাড়ির সঙ্গেও যেমন পরা যায় আবার জিনসের সঙ্গেও মানায় ভাল। মনে করুন, লং একটা শর্ট হাতা বা সিøভলেস ফতুয়া পরছেন তার সঙ্গে এক হাতে একটা বাজু পরতে পারেন। অবশ্যই সেটা বেইজ মেটাল কপার, এন্টিক কালার কিংবা সিলভারের হতে হবে। গোল্ড টাইপ না। আপনার স্টাইল অনুযায়ী আপনি এগুলো পরতে পারেন। রুপার মধ্যে দুটো কালার, একটা সাদা আরেকটা কোরাপস করে অক্সিডাইড করা। ধাতব বা মেটাল দুই ধরনের হয়। একটা বেইজড মেটাল আরেকটা কেশব মেটাল। কপার বা তামা এগুলো বেইজ মেটাল। সিলভারটাকে অক্সিডাইড করলে সেটা এন্টিক হয়। এটা ব্ল্যাকিস তাই সবকিছুতেই মানিয়ে যায়। ওয়েস্টার্ন আউটফিটে বেশিরভাগই ডার্ক কপার, এন্টিক ব্রাজড বা এন্টিক পলিস, সিলভার এগুলো ভাল মানায়। বর্তমানে অনেক ফ্যাশন হাউসেও এসব গহনা পাওয়া যায়। আড়ংসহ বেশকিছু হাউস অত্যন্ত যতœ সহকারে তৈরি করছে রুপার গহনা। দেশী দশ ফ্যাশন হাউস, দোয়েল চত্বর, কর্ণফুলী মার্কেট, শাহবাগ, আজিজ সুপার মার্কেটে এসব গহনা পাবেন। ইমিটেশন, গোল্ড প্লেট, ক্রিস্টাল পাথর ও কাঠের গহনা কিনতে পারেন চকবাজারে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হলের (দোয়েল চত্বর) সামনে অবস্থিত দোকানগুলো কাঠের ও মাটির গহনার জন্য সবার পছন্দের জায়গা। এছাড়াও অন্যান্য গহনার প্রায় সবই পাবেন নিউ মার্কেট, গাউছিয়া ও চাঁদনী চক মার্কেটে। কে জেড, জেমস কালেকশন, এ্যারাবিয়ান, পিরান, বসুন্ধরা সিটি শপিং মল, উত্তরার মাস্কট প্লাজা, নর্থ টাওয়ার, রাজধানীর চাঁদনী চক, নিউমার্কেট, বসুন্ধরা সিটি, যমুনা ফিউচার পার্ক, মৌচাক মার্কেট, কর্ণফুলী গার্ডেন সিটি ও বাইতুল মোকাররম মার্কেট শপিংমলগুলোতে গহনার দাম নির্ধারিত থাকলেও ছোট দোকানগুলোতে তা থাকে না এবং তাই এসব দোকানে ক্রেতাদের ভিড়টা একটু বেশি থাকে। মডেল : আইরিন সুলতানা
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২

শীর্ষ সংবাদ:

অরক্ষিত মহাসড়ক
রাজধানী থেকে বিভিন্ন রুটের ভাড়ার তালিকা প্রকাশ
৫০ শতাংশ পর্যন্ত লঞ্চভাড়া বাড়ানোর প্রস্তাব
খোলাবাজারে আজ ডলারের দাম ১১৫ টাকা
টর্চার সেলের সন্ধান, উদ্ধার ৪, আটক ১১
স্বর্ণ ফেরত দিয়ে ৮৫ শতাংশ টাকা পাবেন ক্রেতারা
নতুন দল নিবন্ধনে সময় আর ২১ দিন
মন্ত্রী পদমর্যাদা পাচ্ছেন ঢাকার দুই মেয়র
প্রতিমন্ত্রীর মর্যাদা পেলেন মেয়র আইভী
জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট
গণপরিবহনে সাড়ে ৫ বছরে ৩৫৭ জন ধর্ষণের শিকার
জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে
দেশে করোনায় মৃত্যু আরও ৩, শনাক্ত ২৯৬
অবৈধ মজুদ রাখা ১২ হাজার বস্তা সার ও ২টি ট্রাক আটক
বড়পুকুরিয়া খনি থেকে কয়লা উত্তোলন শুরু
আরও ৭৯ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি
সেপ্টেম্বরের মধ্যেই জ্বালানী সংকট কেটে যাবে: তোফায়েল আহমেদ
গম-ভুট্টা চাষিরা কম সুদে পাবেন ১ হাজার কোটি টাকার ঋণ
কালো টাকা বৈধভাবে দেশে আনার উপায়
রতনের দিনে হেলপারি, রাতে গাড়িতে ডাকাতি