ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯

লাখ লাখ ছাত্র শিক্ষক জনতার একযোগে মানববন্ধন

প্রকাশিত: ০৫:৪৯, ২৮ জুলাই ২০১৬

লাখ লাখ ছাত্র শিক্ষক জনতার একযোগে মানববন্ধন

জনকণ্ঠ রিপোর্ট ॥ ঐক্যবদ্ধভাবে ধর্মের অপব্যাখ্যাকারী জঙ্গীবাদীদের প্রতিরোধ করে দেশ রক্ষার অঙ্গীকার করেছেন দেশের লাখ লাখ ছাত্র-শিক্ষক-জনতা। দেশের তিন শতাধিক সরকারী কলেজ ও সংশ্লিষ্ট দফতরে বুধবার একযোগে অনুষ্ঠিত শিক্ষক-শিক্ষার্থী জঙ্গীবাদবিরোধী মানববন্ধন সমাবেশে ছিল একটাই স্লোগান- ‘জঙ্গীবাদের আস্তানা, বাংলাদেশে হবে না। হতে দেয়া হবে না।’ বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির ডাকে বেলা এগারোটায় এ কর্মসূচী পালিত হয় দেশজুড়ে। যেখানে অংশ নেন লাখ লাখ শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবকসহ সর্বস্তরের মানুষ। তারা দেশবাসীকে সঙ্গে নিয়ে জঙ্গীবাদীদের কবর রচনা করার ঘোষণাও দিয়েছেন। কর্মসূচীতে অংশ নেয়ায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানিয়ে বিসিএস শিক্ষা সমিতির সভাপতি মোঃ আইকে সলিমুল্লাহ খোন্দকার ও মহাসচিব শাহেদুল খবীর চৌধুরী বলেছেন, সারাদেশের তিন শতাধিক সরকারী কলেজ, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর, দশটি শিক্ষা বোর্ড, নায়েম, এইচএসটিটিআই, টিটিসিসহ সংশ্লিষ্ট অফিসসমূহে স্বতঃস্ফূর্তভাবে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদবিরোধী মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। কলেজসমূহে শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রীরা সম্মিলিতভাবে এ কর্মসূচী পালন করেন। এ কর্মসূচীর মাধ্যমে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে জঙ্গীবাদ মোকাবেলায় সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধির আহ্বান জানানো হয়। এদিকে কর্মসূচীকে ঘিরে বুধবার সারাদেশের কলেজগুলোতে ছিল প্রতিবাদী মিছিল সেøাগান। সকাল থেকে রাজধানী থেকে শুরু করে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের কলেজগুলোতে জড়ো হতে থাকেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। তাদের সঙ্গে যোগ দেন অভিভাবকসহ সর্বস্তরের জনতা। রাজধানীতে সবচেয়ে বড় জমায়েত হয়েছে ঢাকা কলেজে। এখানে কয়েক হাজার শিক্ষক-শিক্ষার্থী ঐক্যবদ্ধ হয়ে জঙ্গী প্রতিরোধের শপথ নেন। এ সময় তারা বলেন, এ দেশে জঙ্গীবাদের স্থান নেই। স্থান হতে দেয়া যাবে না। ঢাকা কলেজের কর্মসূচীতে ছিলেন- অধ্যক্ষ মোয়াজ্জেম হোসেন মোল্লা, বিসিএস শিক্ষা সমিতির সভাপতি মোঃ আইকে সলিমুল্লাহ খোন্দকার, নেহাল আহমেদ, খান রফিকুল ইসলাম, সহিদুল ইসলাম, কুদ্দুস শিকদারসহ অধিকাংশ শিক্ষক। এদিকে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কর্মসূচীতে ছিলেন চেয়ারম্যান অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, সমিতির মহাসচিব শাহেদুল খবীর চৌধুরী, মণ¥থ রঞ্জন বাড়ৈ, মাসুদা বেগম, তপন কুমান সরকার, আশফাকুস সালেহীন, মইনুল ইসলাম, নাজমুল হক, অদৈত কুমার রায়সহ শিক্ষক-কর্মকর্তারা। সরকারী তিতুমীর কলেজেও জঙ্গী ও সন্ত্রাসবিরোধী মানববন্ধন হয়েছে। কলেজটির বিজ্ঞান ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে মূল ফটকের সামনের রাস্তায়ও দীর্ঘ সারিতে অংশ নিয়ে জঙ্গীদের বিরুদ্ধে ফুঁসে ওঠেন কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মচারীরা। এদিকে ঢাকার বাইরে ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ আনন্দমোহন বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মসূচীতে কলেজকে সন্ত্রাস ও জঙ্গীমুক্ত ঘোষণা করেছেন কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক মোঃ জাকির হোসেন। তিনি বলেন, এ কলেজে কোন সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের স্থান নেই। মাগুরা শহরে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির দুটি ইউনিটের উদ্যোগে মাগুরা সরকারী হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ ও মাগুরা সরকারী মহিলা কলেজের শিক্ষক-ছাত্রছাত্রীরা সন্ত্রাস ও জঙ্গীবিরোধী মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে। বুধবার বেলা এগারোটা থেকে দুপুর বারোটা পর্যন্ত শহরের এম আর রোড সরকারী হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের সামনে ও প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে মাগুরা সরকারী মহিলা কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা এ মানববন্ধনে অংশ নেয়। সন্ত্রাসী-জঙ্গীগোষ্ঠীকে প্রতিহত করার আহ্বান জানিয়ে মানববন্ধনে কয়েক শ’ শিক্ষক ও শিক্ষার্থী অংশ নেয়। এছাড়া জেলার শ্রীপুর উপজেলার কাজলী হাই স্কুল ও রাজাপুরে পৃথক পৃথক জঙ্গীবিরোধী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সাতক্ষীরা সরকারী কলেজের প্রধান ফটকে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি সাতক্ষীরা সরকারী কলেজ ইউনিট মানববন্ধন কর্মসূচীর আয়োজন করে। এ সময় বক্তারা বলেন, জঙ্গীদের কোন ধর্ম নেই। জঙ্গীরা দেশ ও জাতির শত্রু। জঙ্গীবাদ মোকাবেলায় নিজ নিজ অবস্থান থেকে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। মানববন্ধন কর্মসূচীতে জঙ্গীবাদবিরোধী বিভিন্ন ফেস্টুন ও ব্যানারসহ সাতক্ষীরা সরকারী কলেজের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। মাদারীপুরে সরকারী নাজিমউদ্দিন কলেজ ক্যাম্পাসে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির আয়োজনে মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়। এ সময় বক্তারা বলেন, আমরা জঙ্গী, মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত দেশ গঠনে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতা যেকোন মূল্যে রক্ষা করব। ভোলায় সরকারী ফজিলাতুন নেসা মহিলা কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা জঙ্গীবাদবিরোধী মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে। বিসিএস সাধারণ শিক্ষক সমিতির আয়োজনে কলেজের কয়েক শ’ ছাত্রী মানববন্ধনে অংশ নেয়। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, রাষ্ট্রবিরোধী সন্ত্রাসী কর্মকা- বন্ধ করে সবাইকে সচেতনতার পাশাপাশি প্রত্যেক পরিবারকে এগিয়ে আসতে হবে। ধর্মীয় মূল্যবোধসহ সামাজিক ও পারিবারিক শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে তরুণ প্রজন্মকে আলোকিত মানুষ হওয়ার আহ্বান জানান। বরগুনার বেতাগী সরকারী কলেজে বুধবার বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির আয়োজনে জঙ্গীবাদবিরোধী মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়। বরিশালে বিএম কলেজে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির আয়োজনে মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, জঙ্গী সন্ত্রাস দেশের উন্নয়নের পথে বাধা। এ বাধাকে সরাতে হবে সকলের প্রয়াসে। এসব ঘৃণিত কর্মকা-ে তরুণরা ঝুঁকে পড়ছে বেশি। তাই অভিভাবকরা যদি একটু সচেতন হন তাহলে জঙ্গী নির্মূল সহজ হবে প্রশাসনের পক্ষে। মানববন্ধন কর্মসূচীতে সরকারী ব্রজমোহন কলেজের সকল শিক্ষকরা উপস্থিত ছিলেন। খুলনার পাইকগাছা কলেজের বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির উদ্যোগে দেশব্যাপী সন্ত্রাস, গুপ্তহত্যা ও জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা পরিষদের সামনে প্রধান সড়কে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, বনানী সংঘ ও বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন অংশগ্রহণ করে একত্মতা পোষণ করে। ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মনোরঞ্জন ম-লের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচীতে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও বনানী সংঘের সভাপতি এ্যাডভোকেট স ম বাবর আলী। জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সরকারী কলেজের ছাত্র-শিক্ষকরা মানববন্ধন করেছেন। বুধবার দুপুরে কলেজ প্রাঙ্গণে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি কক্সবাজার সরকারী কলেজ কর্তৃক আয়োজিত এ বিশাল মানববন্ধনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর একেএম ফজলুল করিম চৌধুরী। তিনি বলেন, শিক্ষক, অভিভাবক, ছাত্রসমাজ ও সুশীল সমাজে সার্বিক সচেতনতাই পারে জঙ্গীবাদের অপতৎপরতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে এবং সুষ্ঠু সুশীল সমাজ গড়তে। জঙ্গী তৎপরতাসহ বিভিন্ন স্থানে জঙ্গী হামলার প্রতিবাদে বগুড়ায় বুধবার জঙ্গীবিরোধী মিছিল সমাবেশ ও মানববন্ধন হয়েছে। এসব কর্মসূচী থেকে বক্তারা সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ ও এর পৃষ্ঠপোষকদের ঐক্যবদ্ধ গণপ্রতিরোধ এবং সচেতনতা গড়ে তোলার আহ্বান জানান। বগুড়া সরকারী আযিযুল হক কলেজের শিক্ষক, প্রকৌশলী ও ছাত্রলীগ বগুড়া জেলা শাখা পৃথকভাবে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করে। জঙ্গী তৎপরতার প্রতিবাদে চুয়াডাঙ্গায় মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। বুধবার বেলা এগারোটায় চুয়াডাঙ্গা সরকারী কলেজ ও সরকারী আদর্শ মহিলা কলেজ ক্যাম্পাসে ‘জঙ্গীবাদ নিপাত যাক, জঙ্গীমুক্ত বাংলাদেশ গড়ব’ সেøাগানে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। চুয়াাডাঙ্গা সরকারী কলেজে আয়োজিত মানববন্ধনে অধ্যক্ষ প্রফেসর কামরুজ্জামান ও উপাধ্যক্ষ আজিজুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। অপরদিকে সরকারী আদর্শ মহিলা কলেজে আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেনÑ অধ্যক্ষ প্রফেসর নওরোজ মোহাম্মদ সাঈদ ও উপাধ্যক্ষ ড. জাহাঙ্গীর আলমসহ শিক্ষক প্রতিনিধিরা। জঙ্গী হামলার প্রতিবাদে নাটোরে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির ব্যানারে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে। নাটোরের নবাব সিরাজ উদ দৌলা সরকারী কলেজের সামনে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেনÑ সমিতির রাজশাহী বিভাগের নির্বাহী সদস্য একেএম আলমগীর হোসেন, কলেজের শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ওয়াজেদ আলী, শিক্ষক তরিকুল ইসলাম ও শামীম আল মাহমুদসহ অন্যরা। এ সময় বক্তারা জঙ্গী হামলা বন্ধ করতে এবং জঙ্গীদের শিকড় উপড়ে ফেলতে শিক্ষক-ছাত্রসমাজসহ সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান। অপরদিকে বাংলাদেশ ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন নাটোর উপকেন্দ্রের উদ্যোগে একই বিষয়ে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে নাটোর প্রেসক্লাবের সামনে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। এ সময় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেনÑ ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন নাটোর উপকেন্দ্রের সভাপতি প্রকৌশলী ওয়াজেদ আলী, সহ-সভাপতি প্রকৌশলী লে. কর্নেল (অব) জিএম আজিজুর রহমান, সেক্রেটারি প্রকৌশলী রঞ্জন কুমার সরকারসহ অন্যরা। সারাদেশে সরকারী কলেজে জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাস, নৈরাজ্য ও সাম্প্রদায়িকতাবিরোধী সচেতনতা-মূলক মানববন্ধন কর্মসূচীর অংশ হিসেবে জয়পুরহাট জেলার সরকারী কলেজ ও সরকারী প্রকৌশলীদের একই কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। বুধবার জয়পুহাট সরকারী কলেজ, জয়পুরহাট মহিলা সরকারী কলেজ ও ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট জয়পুরহাট জেলা শাখা পৃথকভাবে এ কর্মসূচী পালন করে। জয়পুরহাট সরকারী মহিলা কলেজ চত্বরে শিক্ষক ও শিক্ষর্থীদের এক বিরাট মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এদিকে জয়পুরহাট সরকারী কলেজের শিক্ষকরা কলেজ চত্বরে মানববন্ধন করেন। গুলশানসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় জঙ্গী হামলার প্রতিবাদে বুধবার সকালে সিরাজগঞ্জ সরকারী কলেজের উদ্যোগে জঙ্গীবিরোধী মানববন্ধন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়েছে। বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত কলেজ ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধনে কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। প্রায় ৫ হাজার শিক্ষার্থী কলেজ ক্যাম্পাসজুড়ে এক বিশাল মানববন্ধন গড়ে তোলেন। মানববন্ধন চলাকালে কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক মনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেনÑ উপধ্যক্ষ জেসমিন আকতার, দর্শন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহকারী অধ্যাপক মোতালেব হোসেন, সহযোগী অধ্যাপক সুলতান মাহমুদ, সহযোগী অধ্যাপক হাবিবুল্লাহ সিদ্দিকী প্রমুখ। জঙ্গীবাদবিরোধী মানববন্ধন ও সমাবেশ পৃথকভাবে করেছে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি নীলফামারী সরকারী কলেজ ও সরকারী মহিলা কলেজ শাখা। বুধবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ওই কর্মসূচী পালিত হয়। নীলফামারী সরকারী কলেজ চত্বরে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন চলাকালীন সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সমিতির কলেজ শাখার সভাপতি মোঃ জাহেদুল ইসলাম। বক্তব্য রাখেনÑ কলেজের অধ্যক্ষ শাহ মোঃ মোকছেদ আলী, সহকারী অধ্যাপক আনিছুর রহমান, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, ছাত্রনেতা মনিরুল হাসান প্রমুখ। বাগেরহাটে সরকারী পিসি কলেজ ও সরকারী মহিলা কলেজের উদ্যোগে বুধবার সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদবিরোধী পৃথক সমাবেশ ও মানববন্ধন হয়েছে। পিসি কলেজ ক্যাম্পাস ও শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এ সময় বক্তব্য দেনÑ অধ্যক্ষ প্রফেসর এএইচএমএ ছালেক, অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম, প্রফেসর শেখ মোস্তাহিদুল আলম রবি, নিতিশ বিশ্বাস, মোস্তফা ফরিদ আহম্মেদ, বিধান কুমার, সুবাস হীরা, কঙ্কন দেবনাথ, প্রকাশ মালাকার, সাইফুদ্দিন, শুকুর আলী, পিসি কলেজ ছাত্র সংসদের ভিপি ইয়াসির আরাফাত নোমান প্রমুখ। ফরিদপুরে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদবিরোধী মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছেন ফরিদপুরের সরকারী সারদা সুন্দরী সুন্দরী মহিলা কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির আহ্বানে বুধবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এক ঘণ্টা কলেজের সামনের অম্বিকা সড়কে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়। এতে কয়েক শ’ শিক্ষার্থী অংশ নেন। এ সময় কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর হাসিনা বানু, উপাধ্যক্ষ রাখাল চন্দ্র চক্রবর্তী, অধ্যাপক খালিদুজ্জামান প্রমুখ বক্তব্য দেন। একই সময়ে একই দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছেন সরকারী রাজেন্দ্র কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। কলেজের সামনে এ কর্মসূচী পালিত হয়। এ সময় বক্তব্য দেন কলেজের অধ্যক্ষ মোশাররফ হোসেন। একই সময়ে মধুখালীর সরকারী আইনউদ্দিন কলেজের বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির আয়োজনে উপজেলার ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের কলেজ এলাকায় জঙ্গীবাদ নিপাত যাক গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তরাঁয় ও বিভিন্ন সময়ের জঙ্গী হামলার প্রতিবাদে জঙ্গীবাদবিরোধী মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নাজমুল হক।