রবিবার ২ কার্তিক ১৪২৮, ১৭ অক্টোবর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

নীলফামারীতে তিস্তার ভাঙ্গনে দিশেহারা শতশত পরিবার

নীলফামারীতে তিস্তার ভাঙ্গনে দিশেহারা শতশত পরিবার

স্টাফরির্পোটার,নীলফামারী॥ তিস্তার গর্ভে বিলিন হয়েছে শতাধিক একর আবাদি জমি। কেড়ে নিয়েছে শতশত পরিবারের বসতভিটা। তিস্তা নদীর এই ভাঙ্গন চলছে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার টেপাখড়িবাড়ি ইউনিয়নের চরখরিবাড়ি,ঝুনাগাছচাঁপানী ইউনিয়নের ছাতুনামা ভেন্ডাবাড়ি ও লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার গড্ডিমারী এলাকায়। একদিকে তিস্তার দফা দফায় বন্যার ধকল সইতে না সইতেই আবারো ভাঙনের কবলে পড়েছে ওই সব এলাকার বাসিন্দারা।

সরেজমিনে দেখা যায় তিস্তাপাড়ের চরখড়িবাড়ি গ্রামের এক নম্বর ওয়াডে হাক্কি মিয়া (৫৫) তিনদফায় বসতভিটা সরিয়ে নদী থেকে বেশ দুরে সুন্দর করে টিনের বাড়ি ঘর নির্মান করেছিলেন। সেটি এখন ভাঙ্গনের মুখে তাকে পুনরায় অন্যত্র সরিয়ে নিতে হচ্ছে। গত দুইদিনে এই এলাকার ৭০টি পরিবারের বসতভিটা নদীগর্ভে বিলিন হয়েছে। যেভাবে তিস্তা ভাঙ্গছে তাতে পুরো এলাকা শেষ করে দিবে। চরখড়িবাড়ি বিজিবি ক্যাম্পটিও হুমকীর মুখে।

টেপাখড়িবাড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম শাহিন বলেন ৭০ পরিবারের বসতভিটা তিস্তা চলে গেছে চোখের সামনে। পরিবারগুলো এখন অসহায়।

অপর দিকে ঝুনাগাছ চাঁপানী ইউনিয়নের ছাতুনামা ও ভেন্ডাবাড়িতে ব্যাপক ভাঙ্গন শুরু হয়েছে। ফলে তিস্তা নদীর ভাঙ্গনের শিকার অসহায় মানুষজনের আহাজারিতে আকাশ বাতাস ভারি করে তুলছে। গত দুই দিনে ৫৫টি পরিবারের বাড়ির ভিটা ও ফসলী তিনশত বিঘা জমি নদী গর্ভে বিলিন হয়েছে ও দুইশত পরিবার ঘরবাড়ি সরিয়ে নিয়েছে বলে ইউপি চেয়ারম্যান একরামুল হক চৌধুরী জানান।

এদিকে লালমনিরহাটের গড্ডিমারী ইউনিয়নের নিজ গড্ডিমারী এলাকায়, শফিকুল ইসলাম (৩৫), কাশেম আলী (৪০), আবেদীন মিয়া (৫০), আয়নাল হক (৩০), মোহর মিয়া (৩৪), ইউনুস মিয়া (৩২), মোজাম্মেল হক তিস্তা ভাঙনে ঘরবাড়ি হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে পড়েছে।তিস্তার তীব্র ভাঙনে শুধু তাই নয়, বসতভিটাসহ কয়েকশ একর আবাদি জমিও ইতোমধ্যে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ভাঙন অব্যাহত থাকায় একের পর এক জনপদ বিলীন হচ্ছে। বন্যা ও নদী ভাঙনের শিকার এসব ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলো এখনো খোলা আকাশের নিচে দিন কাটাচ্ছেন।গড্ডিমারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিন বুলু জানান, প্রায় ৫০ পরিবারে ঘরবাড়ি নদীর গর্ভে বিলিন হয়েছে।

শীর্ষ সংবাদ:
চট্রগ্রামের বায়েজিদ বোস্তামী এলাকায় বিস্ফোরণ, নিহত ১, আহত ২         প্রতীক্ষা শেষ, শ্রেণিকক্ষে ফিরলেন ঢাবি শিক্ষার্থীরা         বিশ্বব্যাপী পুরুষরা বেশি আত্মহত্যাপ্রবণ         গুচ্ছভুক্ত ২০ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়েছে আজ         ‘করোনা মহামারী প্রেক্ষাপটে উন্নত স্যানিটেশনের গুরুত্ব বেড়েছে’         ‘বাঙালীর মুক্তিযুদ্ধের গৌরবময় ইতিহাস বিশ্ববাসীকে জানাতে হবে’         পর্যটক প্রিয় হয়ে উঠেছে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান         ‘দেশের ৯৯ শতাংশ মানুষ স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশনের আওতায়’         মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডে জড়িত আত্মগোপনে থাকা রোহিঙ্গা ক্যাডার গ্রেফতার         নাসার মাহকাশযান সৌরজগৎ তৈরির রহস্য উম্মোচনে পরীক্ষা চালাচ্ছে         রাঙ্গামাটিতে আওয়ামী লীগ নেতা ও চেয়ারম্যান প্রার্থীকে গুলি করে হত্যা         গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় মারা গেছেন ৫ হাজার ৩২৩ জন         দেশ বিক্রি করে ক্ষমতায় আসব না ॥ বিশ্ব খাদ্য দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী         নিরাপদে দেশে ঢুকছে ভয়ঙ্কর আইস         দিগঙ্গনার অঙ্গন আজ পূর্ণ তোমার দানে ॥ এসেছে হেমন্তলক্ষ্মী         করোনাপরবর্তী স্বাভাবিক জীবনে ছন্দপতন         ‘আগের রাতেই মণ্ডপে কেউ কোরান শরীফ রেখে যায়’         ২৩ অক্টোবর সারাদেশে ছয় ঘণ্টার গণঅনশন         উন্নয়নে পিছিয়ে নেই শেরপুর         পাকিস্তানী যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের উদ্যোগ নিতে হবে