সোমবার ২১ আষাঢ় ১৪২৭, ০৬ জুলাই ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

গত অর্থবছরে ডিএসইর রাজস্ব বেড়েছে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুঁজিবাজার থেকে সরকারের রাজস্ব আয় বেড়েছে। সদ্য সমাপ্ত (২০১৪-১৫) অর্থবছরে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সদস্য ব্রোকারেজ কোম্পানি ও প্লেসমেন্ট শেয়ার বিক্রির এই দুই খাত থেকে মোট রাজস্ব আদায় হয়েছে ১৭৩ কোটি ২৭ লাখ টাকা।

এর আগে ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ডিএসই থেকে সরকার মোট রাজস্ব পেয়েছে ১৫৩ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। এক অর্থবছরের ব্যবধানে রাজস্ব আয় ১৯ কোটি ৪১ লাখ টাকা বেড়েছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বেশির ভাগ কোম্পানির উদ্যোক্তা ও পরিচালকের শেয়ার বিক্রি বেড়ে যাওয়া এবং লেনদেনে স্থিতিশীলতার কারণে সরকারের রাজস্ব আয় বেড়েছে। পাশাপাশি প্রাতিষ্ঠানিক ও বিদেশী বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ বেড়েছে। এ ধারা অব্যাহত থাকলে বছর শেষে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ আরও বাড়বে বলে তারা মনে করেন।

ডিএসইর জমা দেয়া রাজস্ব দুটি খাত থেকে সংগ্রহ করা হয়, এর মধ্যে ডিএসইর সদস্য কোম্পানি বা ব্রোকারেজ হাউসগুলোর কাছ থেকে এবং উদ্যোক্তা পরিচালক ও প্লেসমেন্ট শেয়ারহোল্ডারদের শেয়ার বিক্রি বাবদ।

প্রাপ্ত তথ্যে দেখা গেছে, এক বছরে ডিএইর সদস্য কোম্পানি বা ব্রোকারেজ হাউসগুলোর কাছ থেকে ১১২ কোটি ৩৬ লাখ টাকা এবং উদ্যোক্তা-পরিচালক ও প্লেসমেন্ট শেয়ারহোল্ডারদের শেয়ার বিক্রি বাবদ ৬০ কোটি ৯২ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে।

পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইতে ডিএসইর সদস্য কোম্পানি বা ব্রোকারেজ হাউসগুলোর কাছ থেকে ৪ কোটি ১২ লাখ টাকা, আগস্ট মাসে ১২ কোটি ৬৬ লাখ টাকা, সেপ্টেম্বর মাসে ১৭ কোটি ৫৯ লাখ টাকা, অক্টোবর মাসে ১২ কোটি ৭৭ লাখ টাকা, নবেম্বর মাসে ১১ কোটি ৫৫ লাখ টাকা ও ডিসেম্বর মাসে ৬ কোটি ২ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে।

আর চলতি ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে ডিএসইর সদস্য কোম্পানি বা ব্রোকারেজ হাউসগুলোর কাছ থেকে ৫ কোটি ৫৭ লাখ টাকা, ফেব্রুয়ারি মাসে ৫ কোটি ৩৭ লাখ টাকা, মার্চ মাসে ৬ কোটি ১৪ লাখ টাকা, এপ্রিল মাসে ৭ কোটি ৭৬ লাখ টাকা, মে মাসে ১২ কোটি ৭৯ লাখ টাকা ও জুন মাসে ১০ কোটি ৭ লাখ টাকা আদায় করে ঢাকা কর অঞ্চল-৭ এ জমা দেয়।

অন্যদিকে উদ্যোক্তা-পরিচালক ও প্লেসমেন্ট শেয়ারহোল্ডারদের শেয়ার বিক্রয় বাবদ জুলাই মাসে মোট ২ কোটি ৪০ লাখ টাকা, আগস্ট মাসে ৭ কোটি ৪৮ লাখ টাকা, সেপ্টেম্বর মাসে ৭ কোটি ৩৭ লাখ টাকা, অক্টোবর মাসে ১০ কোটি ৫৮ লাখ টাকা, নবেম্বর মাসে ৬ কোটি ২৯ লাখ টাকা ও ডিসেম্বর মাসে ৫ কোটি ২৮ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে।

একই খাতে জানুয়ারি মাসে ৩ কোটি ৮৮ লাখ টাকা, ফেব্রুয়ারি মাসে ৩ কোটি ৩৩ লাখ টাকা, মার্চ মাসে ৫ কোটি ৬৪ লাখ টাকা, এপ্রিল মাসে ১ কোটি ৬৪ লাখ, মে মাসে ১ কোটি ৯২ লাখ টাকা ও জুন মাসে ৬ কোটি ৭৬ লাখ টাকা আদায় হয়েছে।

উল্লেখ্য, আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪ ধারার ৫৩ বিধির আওতায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) লেনদেনের ওপর এ কর সংগ্রহ করে সরকারের রাজস্ব খাতে জমা দেয়।

শীর্ষ সংবাদ:
অসম-মেঘালয়ে ভারি বৃষ্টি ও ঢলের তীব্রতা বৃদ্ধি, বন্যার অবনতি হতে পারে         লকডাউনে সাড়া নেই ওয়ারীবাসীর         চ্যালেঞ্জে কর্মসংস্থান ॥ করোনায় ব্যবসা বাণিজ্য স্থবির         খাদ্যের মাধ্যমে করোনা ছড়ায় না         মিটার না দেখে আর বিল করবে না বিদ্যুত বিতরণ কোম্পানি         বিশ্বে পর পর দুদিন দুই লাখ করে করোনা রোগী শনাক্ত         বিদেশী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম করের আওতায় আনা হবে         জঙ্গী নির্মূলে বিশ্বে রোল মডেল বাংলাদেশ         ফের আলোচনায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্ভাবিত কিট         বেনাপোল-পেট্রাপোল সচল ॥ অবশেষে ভারতে পণ্য রফতানি শুরু         কম শিল্পী, স্পর্শহীন অভিনয়- তবুও চ্যালেঞ্জ গ্রহণ         ভার্চুয়াল আদালত পরিচালনায় প্রশিক্ষণ দেয়া হবে ॥ আইনমন্ত্রী         করোনা আতঙ্কে রামেক হাসপাতালে দুই লাশ ফেলে লাপাত্তা স্বজনেরা         এন্ড্র্রু কিশোর ফের গুরুতর অসুস্থ         করোনায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালকের মৃত্যু         পাটকল শ্রমিকদের বকেয়া পরিশোধে ৫৮ কোটি টাকা বরাদ্দ         বয়স্ক, শিশু এবং অসুস্থ মানুষদের পশুর হাটে না যাওয়ার আহ্বান ডিএনসিসি মেয়রের         দুদকের মামলায় আত্মসমর্পণের সুযোগ তৈরি হয়নি : প্রধান বিচারপতি         করোনায় অবরুদ্ধ হলো ওয়ারীর 'রেড জোন'         শুধু বিশেষ পরিস্থিতিতে ভার্চুয়াল আদালত প্রথা অবলম্বন করা হবে : আইনমন্ত্রী        
//--BID Records