ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯

মাদারীপুরে ১০ বছরের প্রেম   

বিয়ের দাবীতে  প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন 

নিজস্ব সংবাদদাতা, মাদারীপুর  

প্রকাশিত: ২০:০২, ১০ আগস্ট ২০২২

বিয়ের দাবীতে  প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন 

প্রেমিকার অনশন  

মাদারীপুরে বিয়েতে দাবীতে দিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন করছেন প্রেমিকা। বিয়ে না করলে আত্মহত্যার হুমকিও দিচ্ছেন তিনি। এ নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এরই মধ্যে প্রেমিকের অন্যত্র বিয়ে ঠিক হয়েছে। 

এতে নিজের অবস্থান থেকে কিছুতেই সরে আসবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে প্রেমিকা। পুলিশ বলছে, এ ব্যাপারে থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। ঘটনাটি ঘটেছে প্রেমিকের বাড়ি সদর উপজেলার শিরখাড়া ইউনিয়নের চরঘুনসী গ্রামে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার শোলপুর গ্রামের মোবারক হাওলাদারের মেয়ে হ্যাপী আক্তার বর্তমানে ডিগ্রি প্রথম বর্ষে লেখাপড়া করছেন একই উপজেলার কবিরাজপুর ডিগ্রি কলেজে। 

বিয়ের দাবীতে গত ৩দিন ধরে অবস্থান করছেন প্রেমিকের বাড়ি মাদারীপুর সদর উপজেলার শিরখাড়া ইউনিয়নের চরঘুনসী গ্রামের মৃত: তারেক হাওলাদারের ছেলে আমিনুল হাওলাদারের বাড়িতে। গল্পের শুরুটা ২০১৩ সালে। তখন অষ্টম শ্রেণিতে পড়–য়া হ্যাপীর সাথে পরিচয় হয় কলেজ পড়ুয়া আমিনুল হাওলাদারের। এরপর প্রেম। 

২০১৬ সালে হ্যাপীর পরিবার অন্য জায়গায় জোড় করে বিয়ে দিলেও এক মাসের মাথায় প্রেমিক আমিনুলের কারণে ডিভোর্স হয়ে যায় হ্যাপির। এরপর প্রেমের সম্পর্ক আরো গভীর হতে থাকে। পরে আমিনুল ওই বছরই ইতালাী চলে গেলেও হ্যাপীর প্রয়োজনীয় খরচ বহনের দায়িত্ব নেয় আমিনুল। 

ব্যাংকের মাধ্যমে টাকাও পাঠায়। এ সময় দুটি পরিবারের মাঝে গড়ে ওঠে সখ্যতা। গত ২ আগস্ট আমিনুল দেশে আসলে অন্যত্র বিয়ে ঠিক করে তার পরিবার। এই খবরে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে যান হ্যাপী আক্তার। এর সুষ্ঠু সমাধান চান এলাকাবাসী। এদিকে কোন অবস্থাতেই হ্যাপীকে মেনে নিতে নারাজ আমিনুলের পরিবার।
আমিনুলের ভাবী লতা আক্তার বলেন, ‘কারো সাথে প্রেম করলে তার অনেক প্রমাণ থাকে। কিন্তু হ্যাপী-আমিনুলের প্রেমের গল্পে কোন প্রমাণ নেই। আমরা হ্যাপীকে মেনে নিতে পারবো না। আমিনুলের অন্য জায়গায় বিয়ে ঠিক হয়েছে।’ 

অন্যদিকে হ্যাপী আক্তার বলেন, ‘আমি বাড়িতে অবস্থান করার পর গাঁ ঢাকা দিয়েছে আমিনুল। আগামী শুক্রবার আমিনুলের অন্যত্র বিয়ে হবার কথা। আমার সাথে ১০ বছর প্রেম করেছে, আমি ওর সাথেই সংসার করতে চাই।’

মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ওয়াসিম ফিরোজ সাংবাদিকদের জানান, ‘মেয়েটি টানা ১০ বছর প্রেম করলেও আমিনুলের পরিবার অস্বীকার করছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। আর অভিযোগ পেলে দ্রুততম সময়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এমএস