৭ এপ্রিল ২০২০, ২৪ চৈত্র ১৪২৬, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

এফএটিএফ’র অন্তর্ভুক্তির তীব্র নিন্দা জানাল তেহরান

প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০১:২২ পি. এম.
এফএটিএফ’র অন্তর্ভুক্তির তীব্র নিন্দা জানাল তেহরান

অনলাইন ডেস্ক ॥ বৈশ্বিক অর্থ পাচার পর্যবেক্ষণ সংস্থা- ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্সের (এফএটিএফ) কালো তালিকায় ইরানের অন্তর্ভুক্তির তীব্র নিন্দা জানিয়েছে তেহরান। ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইয়্যেদ আব্বাস মুসাভি এ ঘটনাকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত আখ্যায়িত করে বলেছেন, মানি লন্ডারিং ও সন্ত্রাসবাদের অর্থায়নের মতো কলঙ্ক ইরানের গায়ে লাগানোর চেষ্টা কোনোদিন সফল হবে না।

সম্প্রতি বার্তা সংস্থা রয়টার্স প্রথম খবর দেয়, সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন প্রতিহত করার আন্তর্জাতিক মানদণ্ড রক্ষা করতে ব্যর্থ হওয়ার কারণে ইরানকে এফএটিএফ’র কালো তালিকার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

এর প্রতিক্রিয়ায় সাইয়্যেদ মুসাভি আরো বলেন, ইরান গত দু’বছরে মানি লন্ডারিং ও সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন বন্ধ করার সবগুলো আন্তর্জাতিক আইন বাস্তবায়ন করেছে।

তিনি আন্তর্জাতিক অর্থ নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থাগুলোতে আমেরিকা, সৌদি আরব ও ইহুদিবাদী ইসরাইলের হস্তক্ষেপে দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, তাদের হস্তক্ষেপের কারণে ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স (এফএটিএফ) ইরানের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, তার দেশ বিগত বছরগুলোতে এফএটিএফ’কে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করেছে এবং এক্ষেত্রে ইরানের কার্যক্রম ছিল অত্যন্ত স্বচ্ছ ও স্পষ্ট। তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, সৌদি আরব ‘সন্ত্রাসবাদের বিশ্বব্যাংক’ হিসেবে কাজ করা সত্ত্বেও দেশটির বিরুদ্ধে এফএটিএফ কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। সেইসঙ্গে বিশ্বের বেশিরভাগ সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর প্রতি সর্বোচ্চ সমর্থনদাতা ইসরাইলকেও কালো তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেনি এফএটিএফ।

ইরানের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর আব্দুননাসের হেম্মাতি তার প্রতিক্রিয়ায় এফএটিএফের সিদ্ধান্তকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও অপেশাদার আখ্যায়িত করেছেন। তবে তিনি এও বলেছেন যে, এফএটিএফের এই সিদ্ধান্তে ইরানের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ক্ষতিগ্রস্ত হবে না।

প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০১:২২ পি. এম.

২২/০২/২০২০ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

বিদেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: