১৭ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

ফেসবুক বাংলাদেশে একজন কর্মী নিয়োগ দেবে

প্রকাশিত : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:২০ পি. এম.
ফেসবুক বাংলাদেশে একজন কর্মী নিয়োগ দেবে

অনলাইন রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশে কোনো অফিস করবে না ফেসবুক। আপাতত একজন পলিসি ম্যানেজার (বাংলাদেশে ফেসবুকের নিয়মনীতি ব্যবস্থাপক) নিয়োগ করবে তারা। শিগগির এই নিয়োগ হবে বলে জানিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

আজ মঙ্গলবার বাংলাদেশে ফেসবুকের কনটেন্ট নীতিমালা নিয়ে গণমাধ্যমকে তথ্য জানায় ফেসবুকের তিন সদস্যর একটি প্রতিনিধিদল। রাজধানীর একটি হোটেলে গণমাধ্যমের কর্মীদের সামনে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে বাংলা কনটেন্ট ফিল্টার ও পর্যালোচনা নীতিমালা ও প্রয়োগের বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়।

প্রেজেন্টেশনে ফেসবুক কনটেন্টের পাবলিক পলিসি ম্যানেজার বরুন রেড্ডি বর্তমান বিশ্ব প্রেক্ষাপটে ফেসবুকের কনটেন্ট পলিসি তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ফেসবুক জঙ্গিবাদ, সহিংসতা, ভুয়া খবর, নিপীড়ন, মৌলবাদী কনটেন্ট নিয়ে কঠোর অবস্থান নিয়েছে। বাংলা ভাষার কনটেন্ট পর্যালোচনার জন্যও ভারতীয় ও বাংলাভাষী বিশেষ টিম কাজ করে। তিনি বলেন, গত জানুয়ারি থেকে মার্চ—এ তিন মাসে ৩ কোটি ৩৬ লাখ গ্রাফিকস সহিংস কনটেন্ট সরানো হয়েছে। এর মধ্যে কিছু বাংলা কনটেন্ট আছে। এ ছাড়া অশ্লীল ছবি ও ভিডি, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, ঘৃণা সৃষ্টিকারী মন্তব্য, ভুয়া অ্যাকাউন্টের বিরুদ্ধে ব্যাপক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে ফেসবুকের পাবলিক পলিসি পরিচালক শিবনাথ ঠাকরাল বলেন, বাংলাদেশে পলিসি বিষয়ক একজন ব্যবস্থাপক নিয়োগ দেওয়া হবে শিগগিরই। তিনি নীতিমালা ও সরকারি বিভিন্ন যোগাযোগের বিষয়টি দেখবেন। কিন্তু বাংলাদেশে ফেসবুকের কোনো অফিস এখনই করার পরিকল্পনা নেই। সরকারি ভ্যাট নিয়ে কাজ করবে এমন কাউকে নিয়োগ দেওয়া হবে না।

বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রকদের সঙ্গে গতকাল এক রুদ্ধদ্বার বৈঠক হয়েছে। সেখানে টেলিকম অপারেটের সঙ্গে নীতিগত অনেক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আইনি ও নীতিমালা প্রক্রিয়া নিয়ে সরকারের সঙ্গে সহযোগিতার বিষয় নিয়ে কথা হয়েছে।

ফেসবুকের এমারজিং মার্কেটের পলিসি কমিউনিকেশন ম্যানেজার অ্যামি সাওয়িতা লেফেব্রি বলেন, তাঁরা মূলত প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে কনটেন্ট পলিসি নিয়ে বিভিন্ন দেশে কার্যক্রম চালাচ্ছেন। ভিয়েতনামসহ কয়েকটি দেশের পর ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশে পলিসি নিয়ে গণমাধ্যমের সামনে নীতিমালা তুলে ধরা হলো। নিয়মিত কার্যক্রম হিসেবে এ ধরনের আয়োজন আরও ঘটবে।

বাংলাদেশে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সহযোগিতা ও প্রাইভেসি নিয়ে প্রশ্নের জবাবে ফেসবুকের কর্মকর্তারা বলেন, তাঁরা আগে থেকেই বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সাহায্য করছেন। এখন আরও বেশি সহায়তা করবেন।

এর আগে গতকাল ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, ফেসবুককে বাংলাদেশের নিয়ম-নীতি মেনে নিরাপদ ফেসবুক ব্যবহারের ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে। সোমবার ফেসবুকের উচ্চপর্যায়ের ৮ সদস্যের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠকে এ আহ্বান জানান ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ফেসবুক বাংলাদেশের সংস্কৃতি, মূল্যবোধ, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনসহ বাংলাদেশের প্রচলিত আইন মেনে চলতে এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চাহিদা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় তথ্য দিতে সম্মত হয়েছে।

প্রকাশিত : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:২০ পি. এম.

২৪/০৯/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: