১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

ছাত্রলীগের অপকর্ম ঢাকতেই ছাত্রদলের কাউন্সিল বন্ধ করা হয়েছে : রিজভী

প্রকাশিত : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৭:৫৩ পি. এম.
ছাত্রলীগের অপকর্ম ঢাকতেই ছাত্রদলের কাউন্সিল বন্ধ করা হয়েছে  :  রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ছাত্রলীগের চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অপকর্ম ঢাকতেই আদালতের মাধ্যমে ছাত্রদলের কাউন্সিল বন্ধ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী। রবিবার দুপুরে বিশ্ব গণতন্ত্র দিবস উপলক্ষে রাজধানীর নয়াপল্টন এলাকায় বিএনপি ও এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের নিয়ে মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে তিনি এ অভিযোগ করেন।

রিজভী বলেন, চাঁদাবাজির কারণে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে অব্যাহতি নিতে হয়েছে। শুধু সংগঠন থেকে অব্যাহতি দিলেই হবে না তাদের চাদাবাজির বিচার করতে হবে। তিনি বলেন, আজকে বিশ্ব গণতন্ত্র দিবস। বিশ্বের দেশে দেশে মানুষ কথা বলার জন্য, মতপ্রকাশের জন্য যুদ্ধ করছে, সংগ্রাম করছে।

রিজভী বলেন, গোটা দেশে এখন ছাত্র লীগের চাঁদাবাজি নিয়ে ছি. ছি. ছি. রব উঠেছে। আর এই ছি. ছি. রব আড়াল করার জন্য জনগনের দৃষ্টিকে অন্যদিকে নিয়ে যাওয়ার জন্যই ছাত্রদল গণতন্ত্রের প্রথা-পদ্ধতি অবলম্বন করে কাউন্সিল করতে চাইলেও তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। আমিও ছাত্র দলের সভাপতি ছিলাম, অনেক দিন মধুর ক্যান্টিন থেকে বাসায় হেটে এসছি- লজ্জায় কাউকে বলতে পারিনি। আজকে ছাত্র লীগ সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক ঈদের খরচের জন্য ৮৬ লাখ টাকা চাদা চান। এটাই হচ্ছে এখন টক অব দ্যা কান্ট্রি।

সরকারকে উদ্দেশ করে রিজভী বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া কি দুর্নীতি করেছে? আপনারা তাঁর দুর্নীতির কোনও প্রমাণ দিতে পারেননি। তারপরও তাকে কারান্তরীণ করে রাখা হয়েছে। কারণ, তিনি গণতন্ত্রের প্রতীক। খালেদা জিয়া দেশে বার বার গণতন্ত্র ফিরিয়ে এনেছেন। তিনি থাকলে মধ্যরাতের নির্বাচন করতে পারতেন না।

সরকারকে উদ্দেশ করে রিজভী আরও বলেন, আপনারা শেয়ার বাজার খেয়েছেন, ব্যাসিক ব্যাংক এবং সোনালী ব্যাংক খেয়েছেন। আমরা হলমার্কের লুটপাটের কথাও জানি। এগুলো কোন কিছু দিয়ে ঢাকা যাবে না। ক্ষমতায় হাতে থাকার কারনে ভেবেছেন যা ইচ্ছা তাই করবেন। ছাত্র দলের কাউন্সিল সম্পর্কে রিজভী বলেন, আমরা শেষ দেখে ছাড়বো। আদালতে আমাদের কথাগুলো বলার পরে আমরা যদি দেখি এটা ন্যায়ের পক্ষে নয়, গণতন্ত্রের পক্ষে নয় তখন আমরা নতুন করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবো।

বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে রিজভীর নেতৃত্বে মিছিল শুরু হয়ে নাইটেঙ্গেল মোড় হয়ে ঢাকা ইন্সুরেন্স ভবনের সামনে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করা হয়।এতে আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বাবুল, ছাত্রদলের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সহ-সভাপতি মো. নাজমুল হাসান, ছাত্রদলের সভাপতি প্রার্থী হাফিজুর রহমান, ফজলুল রহমান খোকন প্রমুখ।

প্রকাশিত : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৭:৫৩ পি. এম.

১৫/০৯/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

জাতীয়



শীর্ষ সংবাদ: