ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা প্রথম টি২০ আজ

মো. মামুন রশীদ

প্রকাশিত: ২৩:৪০, ৩ মার্চ ২০২৪

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা প্রথম টি২০ আজ

ট্রফির সঙ্গে দুই অধিনায়ক হাসারাঙ্গা ও শান্ত

পাঁচ মাস পর আবার দুই দলের সাক্ষাৎ। ওয়ানডে বিশ^কাপে সর্বশেষ মোকাবিলায় বিশ^ব্যাপী আলোড়ন তোলা ঘটনা ঘটেছে। বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার মধ্যে ক্রিকেটের ময়দানে সাম্প্রতিক বছরগুলোয় বেশ হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে। সেই লড়াইয়ে বহুমাত্রিক বিষয়াদি যোগ হয়ে চমকপ্রদ করে তুলেছে। আজ সেই দুই দলের মধ্যে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি২০। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৬টায় বহুবিধ চমক নিয়েই স্বাগতিক বাংলাদেশ ও সফরকারী শ্রীলঙ্কা মুখোমুখি হচ্ছে।

দুই দলের পক্ষ থেকেই অবশ্য বার্তাটা এক; অতীতের ঘটনা ভুলে তারা বর্তমানে মনোনিবেশ করে জেতার জন্যই নামবে। কিন্তু মুখে যতই বলা হোক, ক্রিকেট মঞ্চে যখন দুটি দলের মধ্যে উত্তেজনাকর লড়াইয়ে অনেক ধরনের হিসাব-নিকাশ থাকে, তখন ¯œায়ুচাপ এড়ানো কঠিন। তাই আরেকটি জমজমাট সিরিজ হতে চলেছে, সেটাও স্থায়ী অধিনায়ক হিসেবে যাত্রা শুরু করতে যাওয়া নাজমুল হোসেন শান্ত এবং শ্রীলঙ্কার কোচ ক্রিস সিলভারউড জানিয়ে দিয়েছেন। 
লড়াই আবারও কঠিন হবে। দুই দলের পক্ষ থেকে হওয়া সংবাদ সম্মেলনে দেওয়া বার্তাতেই সেটি পরিষ্কার। নিয়মিত অধিনায়ক ভানিন্দু হাসারাঙ্গা আইসিসির নিষেধাজ্ঞায় প্রথম দুই ম্যাচেই খেলতে পারবেন না। ফর্মের তুঙ্গে থাকা ওপেনার পাথুম নিশঙ্কা নেই হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির কারণে। তাই কিছুটা খর্বশক্তি নিয়েই নামতে হবে লঙ্কানদের। কিন্তু সিলভারউড বলেছেন, ‘খুবই প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ সিরিজ হবে।

প্রত্যেক দলই এখন চূড়ান্ত প্রস্তুতি নিচ্ছে। আমরাও বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিচ্ছি। যেটা বললাম, খুবই রোমাঞ্চকর একটা সিরিজের আশা করছি। দুই দলেই আছে কয়েকজন ভয়ংকর ক্রিকেটার।’ গত ৪-৫ বছরে দুই দলের মধ্যে যে কোনো ফরম্যাটের লড়াইয়ে আলোচিত অনেক ঘটনাই ঘটেছে। সর্বশেষ ওয়ানডে বিশ^কাপে হওয়া মোকাবিলাতেও ইতিহাসের বিরল ‘টাইমড আউট’ ঘটনা দেখা গেছে। সেটিও ব্যাপক আলোড়ন তুলেছে।

আর লঙ্কান ক্রিকেটাররা সেটি নিয়ে বেশ নাখোশও হয়েছে। তবে পাঁচ মাস পর ভিন্ন ফরম্যাটে স্বাগতিক বাংলাদেশের বিপক্ষে নামার আগে সিলভারউড বলছেন, ‘দুটি দলই ভালো। অতীতে যা হয়েছে, আমার কাছে তা ইতিহাস। সেটা পেছনেই চলে গেছে। সামনে বিশ্বকাপ আছে, তাই নিজেদের প্রস্তুত হতে হবে।’ হাসারাঙ্গা নেই, নিশঙ্কা নেই। কিন্তু সম্প্রতি এই ফরম্যাটে দুর্দান্ত ফর্মে আছেন অভিজ্ঞ অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। তার আবার বাংলাদেশের কোচ চান্দিকা হাতুরুসিংহের সঙ্গে সম্পর্কটা একটুও ভালো ছিল না। সেই ম্যাথুসের ভেতর বিষয়টি বাড়তি আগুন জ্বালিয়ে দেবে। 
বাংলাদেশের মাটিতে লঙ্কানরা পাঁচবার টি২০ খেলেছে স্বাগতিকদের বিপক্ষে। এর মধ্যে চারবারই জিতেছে। একটিমাত্র হার ২০১৬ সালে টি২০ এশিয়া কাপে, মিরপুরে। ২০১৮ সালে সিলেটে একটাই মাত্র টি২০ হয়েছে দুই দলের মধ্যে। সেই ম্যাচে লঙ্কানরা ৭৫ রানের বিশাল জয় পায়। পাঁচ বছর পর সেই মঞ্চে এবার লঙ্কানদের বিপক্ষে শোধ তোলার চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশের। সার্বিকভাবে ১৩ লড়াইয়ে নয়বার শ্রীলঙ্কা ও চারবার বাংলাদেশ জিতেছে।

এবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে লড়াইয়ে অন্যতম হাতিয়ার সাকিব আল হাসান নেই। নতুন অধিনায়ক শান্ত স্থায়ীভাবে নেতৃত্বের শুরু করতে চলেছেন এই সিরিজে। তিনি আবার সদ্য সমাপ্ত বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) একেবারেই বাজে সময় কাটিয়েছেন ব্যাট হাতে। তবে ১৯ মাস পর অভিজ্ঞ মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আবার ফিরেছেন। তাকে নিয়ে মিডলঅর্ডারের শক্তি বেড়েছে। বোলিংয়ে তাসকিন আহমেদ, শরিফুল ইসলামরা বেশ ফর্মে আছেন। সঙ্গে মুস্তাফিজুর রহমানও আছেন।

কিন্তু পরিসংখ্যান, র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা- সবকিছু মিলিয়ে নিজেদেরই এই সিরিজে ফেভারিট দাবি করছে লঙ্কানরা। সিলভারউড বলেছেন, ‘আমি তো বলব শ্রীলঙ্কাই ফেভারিট। তবে যা বললাম, দুই দলই খুব ভালো। সিরিজ জেতা তাই অনেক কঠিন হবে। আমরা সেরা ক্রিকেট খেলতে চাই।’ কিন্তু শান্ত বলেই দিয়েছেন, ঘরের মাটিতে বেশি ম্যাচ জিততে চান। অতীতটাও মাথায় আনতে চান না। তিনি বলেছেন, ‘আমার মনে হয় খুব ভালো একটা সিরিজ হবে।

জেতার জন্য যা যা করার দরকার, অবশ্যই সেটা করা উচিত। আর শ্রীলঙ্কার সঙ্গে বাইরের বিষয় নিয়ে চিন্তা করছি না, যেটা অতীতে হয়েছে। তিন ফরম্যাটে আমরা যারা খেলব, যে ৩০-৩৫ খেলোয়াড় আছে জাতীয় দলের আশপাশে, প্রত্যেকের দায়িত্ব যার যার জায়গা থেকে দলের জন্য অবদান রাখা।’ টি২০-তে দলের উন্নতি হয়েছে আগের চেয়ে। সর্বশেষ পাঁচটি দ্বিপক্ষীয় সিরিজ হারেনি বাংলাদেশ। এর মধ্যে চারটি জিতেছে, একটি ড্র করেছে। ঘরের মাটিতে সর্বশেষ তিন সিরিজই জিতেছে।

তাই এবার লঙ্কানদের বিপক্ষে টি২০ ফরম্যাটের পরিসংখ্যানটাকে ভালো করতে চায় বাংলাদেশ দল। সবেমাত্র বিপিএল টি২০ শেষ করে ক্রিকেটাররাও সেই মেজাজের মধ্যেই আছেন। এবার শুধু আন্তর্জাতিক ম্যাচে নিজেদের মেলে ধরার চ্যালেঞ্জ দুর্দান্ত ফর্মে থাকা তাওহিদ হৃদয়, নাইম শেখ, এনামুল হক বিজয়, শরিফুল, তাসকিনদের।

×