ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

নকআউট রাউন্ডে খেলার স্বপ্ন বুনছে এশিয়ার সুপার পাওয়ার জাপানও

আজ জার্মানির ভাগ্যনির্ধারণী লড়াই

জাহিদুল আলম জয়

প্রকাশিত: ২১:৪০, ৩০ নভেম্বর ২০২২

আজ জার্মানির ভাগ্যনির্ধারণী লড়াই

কোস্টারিকার বিরুদ্ধে ম্যাচ সামনে রেখে অনুশীলনে জার্মানির গোলরক্ষক ম্যানুয়েল ন্যয়ার

রীতিমতো খাদের কিনারায় দাঁড়িয়ে আছে জার্মানি। যৌথভাবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা টানা দ্বিতীয়বার বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায়ের শঙ্কায় আছে। ‘ই’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে একটি জয়ও পায়নি ইউরোপের পাওয়ার হাউসরা। এক হার ও এক ড্রতে মাত্র ১ পয়েন্ট নিয়ে আছে সবার তলানীতে। যে কারণে শেষ গ্রুপ ম্যাচটি নিউয়ের, মুলার, সানেদের জন্য বাঁচা-মরার। এই মিশনে আজ রাতে কোস্টারিকার মুখোমুখি হচ্ছে অদম্য মানসিকতার জার্মানি। কাতারের রাজধানী দোহার আল খোরের আল বায়াত স্টেডিয়ামে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় আজ রাত ১টায়।
একই সময়ে গ্রুপের আরেক ম্যাচে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা স্পেনের মুখোমুখি হচ্ছে এশিয়ার সুপার পাওয়ার জাপান। আল রাইয়ানের খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে স্প্যানিশদের রুখে দিয়ে শেষ ষোলোতে খেলার স্বপ্ন বুনছে ব্লু সামুরাইরা। দারুণ ফর্মে থাকা স্পেন এই ম্যাচে ড্র করলেই নকআউট রাউন্ডের টিকিট পাবে। এমনকি হেরে গেলেও পরের পর্বে চলে যেতে পারে ২০১০ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়নরা। বর্তমানে ‘ই’ গ্রুপে দুটি করে ম্যাচ শেষে ৪ পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে স্পেন। ৩ পয়েন্ট করে নিয়ে গোলগড়ে পরের দুই অবস্থানে জাপান ও কোস্টারিকা। ১ পয়েন্ট নিয়ে সবার তলানীতে জার্মানি। এই মুহূর্তে যে অবস্থা তাতে নকআউট রাউন্ডে খেলতে হলে জার্মানির জয়ের বিকল্প নেই।

শুধু তাই নয়, নিজেদের ম্যাচ জেতার পর স্পেন ও জাপানের ম্যাচের ফলাফলের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে। এই ম্যাচ জাপান হারলে আর নিজেদের ম্যাচ জিতলেই কেবল জার্মানি চলে যাবে নকআউটে। কিন্তু জাপান যদি স্পেনকে হারিয়ে দেয় বা ড্র করে তাহলে বিদায় ঘণ্টা বেজে যাবে কোচ হ্যান্স ফ্লিকের দলের। যে কারণে ভাগ্য আর নিজেদের হাতে নেই জার্মানদের। শেষ গ্রুপ ম্যাচে নিজেদের তো জিততেই হবে, সেই সঙ্গে ম্যানুয়েল নিউয়েলের দলকে প্রার্থনা করতে হবে যেন স্পেনের কাছে জাপান হেরে যায়। আগের ম্যাচে স্পেনের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে কোনোমতে টুর্নামেন্টে টিকে আছে জার্মানি। আর প্রথম ম্যাচে জাপানের কাছে অপ্রত্যাশিতভাবে হেরেছে ২-১ গোলে।
অন্যদিকে স্পেনের কাছে সাত গোলে বিধ্বস্ত হয়ে বিশ্বকাপ শুরু করা কোস্টারিকা দ্বিতীয় ম্যাচে জাপানকে ১-০ গোলে হারিয়ে টুর্নামেন্টে ফিরে এসেছে। যে কারণে কোস্টারিকাও নকআউটে খেলার অভিন্ন লক্ষ্য নিয়ে জার্মান চ্যালেঞ্জে মাঠে নামছে। মোটকথা এই গ্রুপে স্পেনের পরের রাউন্ডে খেলা প্রায় নিশ্চিত। কিন্তু বাকি একটি স্থানের জন্য লড়াই করছে জাপান, কোস্টারিকা ও জার্মানি। জার্মানিকে হারাতে পারলে নিজেদের ইতিহাসে তৃতীয়বার নকআউট পর্ব নিশ্চিত করবে কনকাকাফ অঞ্চলের দেশ কোস্টারিকা। তবে স্পেন যদি জাপানকে হারাতে পারে তবে লুইস ফার্নান্দো সুয়ারেজের দলের ড্র করলেই চলবে। কিন্তু হেরে গেলে ২০১৪ বিশ^কাপের কোয়ার্টার ফাইনাল খেলা দলটি টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যাবে। ১৯৯০ সালে কোস্টারিকা শেষ ষোলো থেকে বিদায় নিয়েছিল।
আট বছর আগে লস টিকোসরা ইতালিকে ১-০ গোলে হারিয়ে বিশ^কাপের ঐতিহাসিক জয় পেয়েছিল। সেই দলটি এবার শেষ ম্যাচে আরেক পরাশক্তির সামনে দাঁড়িয়ে। জার্মানদের হারাতে পারলে আবারও নকআউট পর্বে খেলার রেকর্ড গড়বে কোস্টারিকানরা। নিজেদের প্রথম ম্যাচে এশিয়ান জায়ান্ট জাপানের কাছে বিস্ময়করভাবে হেরে দ্বিতীয় ম্যাচে বাঁচামরার লড়াইয়ে স্পেনের মোকাবিলা করেছে জার্মানি। ২০১৪ বিশ্বকাপ জয়ী দলটি কোনোরকমে ওই ম্যাচে ১-১ গোলে ড্র করে নিজেদের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রেখেছে।

নকআউট পর্বে যেতে হলে কোস্টারিকানদের বিরুদ্ধে জয় ভিন্ন অন্য কোনো পথ খোলা নেই জার্মানির। ড্র করলে এবারের আসর থেকে বিদায় নিতে হবে ফ্লিকের দলকে। অন্যদিকে স্পেন ও জাপান যদি ড্র করে তবে জার্মানিকে অন্তত দুই গোলের ব্যবধানে জিততে হবে। আর হাজিমে মোরিইয়াসুর দল যদি লা রোজাদের সঙ্গে জয় পায় তাহলে আরেকটি অঘটনের জন্ম হবে। তখন স্পেনকে বিদায় করতে হলে ফ্লিকের দলকে অন্তত পাঁচ গোলের ব্যবধানে কোস্টারিকাকে হারাতে হবে।

সবধরনের টুর্নামেন্টে নিজেদের সবশেষ দশ ম্যাচে মাত্র দুটি জয় পাওয়ায় গুরুত্বপূর্ণ লড়াইয়ের আগে জার্মানি আছে মানসিকভাবে পিছিয়ে। যেখানে ড্র কিংবা পরাজয়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেবে চারবারের চ্যাম্পিয়নরা। যা তাদের ফুটবল ইতিহাসে প্রথমবারের মতো হবে। পাশাপাশি বিশ^কাপের প্রথম তিন ম্যাচে জয়বিহীন জার্মান কোচ হিসেবে লজ্জার রেকর্ড গড়বেন ফ্লিক। এর আগে বিশ^কাপে একবারই কোস্টারিকার বিরুদ্ধে খেলেছে জার্মানি। ২০০৬ সালের ওই ম্যাচে ৪-২ গোলে জিতেছিল ইউরোপের পাওয়ার হাউসরা। অন্যদিকে জাপানের বিরুদ্ধে ম্যাচ নিয়ে স্পেনের তারকা মিডফিল্ডার কোকে বলেন, আমাদের একমাত্র পরিকল্পনা হচ্ছে অলআউট ফুটবল খেলা। জাপানের বিরুদ্ধে জয় নিশ্চিত করা। আমরা প্রতিপক্ষকে ছোট করে দেখছি না। আমরা জয়ের জন্যই খেলব এবং পরের রাউন্ড নিশ্চিত করব।
শেষ ষোলোতে জিততে পারলে কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলের বিরুদ্ধে খেলতে হবে স্পেনকে। কোকে অবশ্য এতটা দূরের চিন্তা এখনই করছেন না। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমার মনে হয় না কোনো দলকে আমরা ভয় পাই। সব দলের প্রতি সমান শ্রদ্ধা আছে। এই মুহূর্তে আমরা কোয়ার্টার ফাইনাল নিয়ে চিন্তা করছি না। কারণ আগে আমাদের জাপানের বিরুদ্ধে জিততে হবে। ম্যাচ বাই ম্যাচ এগিয়ে যাওয়াই আমাদের মূল লক্ষ্য। কোয়ার্টার ফাইনালে যদি ব্রাজিলকে প্রতিপক্ষ হিসেবে পাই তবে ওই ম্যাচ নিয়ে ভিন্ন পরিকল্পনা থাকবে।

সম্পর্কিত বিষয়:

monarchmart
monarchmart