ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯

পাকা বাড়ি করে দেয়া হচ্ছে রুপনা চাকমাকে

প্রকাশিত: ১৩:০১, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২; আপডেট: ১৬:০৯, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২

পাকা বাড়ি করে দেয়া হচ্ছে রুপনা চাকমাকে

রুপনা চাকমা

সাফ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে শিরোপা জয়ের পর ভাইরাল হয় গোলকিপার রুপনা চাকমার ভাঙা বাড়ির ছবি। এবার তার বাড়ি পাকা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। সেই সঙ্গে তার গ্রামের বাঁশের সেতুটিও পাকা করার কথা জানানো হয়েছে। 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে বিষয়টি পোস্ট করে নিজেই জানিয়েছেন রুপনা চাকমা। তার পোস্টটি হুবুহু তুলে ধরা হলো- “ধন্যবাদ রাঙ্গামাটি ডিসি স্যারকে আজকে আমাদের বাড়িতে গিয়ে আমার পরিবারের অবস্থা দেখে আসার জন্য। এছাড়া বিভিন্ন মিডিয়াও সাংবাদিক বৃন্দকে আমাকে সাপোর্ট দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এই আনন্দটা  হয়তো  বলে শেষ করতে পারবো না- এখানে আর একটা কথা না বললে নয়, আমি আজ এই পয়ার্যে আসার জন্য যে সমস্ত স্যাররা আমাকে সহযোগিতা  করেছেন তাদের প্রতিও আমি চির কৃতজ্ঞ।

আজকে যারা আমাকে অনুপ্রেরণা দিচ্ছে এবং সাপোর্ট দিচ্ছেন তাদেরকেও আমি অনেক অনেক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আজকের দিনটা আমার জন্য বিশেষ দিন। ডিসি স্যার নিজেই আমার বাড়িতে গিয়ে ১.৫ (দেড় লক্ষ) টাকা চেক মায়ের হাতে প্রদান করলেন এবং আমার ছোট্ট বেড়া ঘরটি ভেঙ্গে একটি নতুন পাকা ঘর করে দেওয়ার জন্য প্রতিসূতি দিয়েছন আরও আমাদের গ্রামে বাঁশের ভাঙ্গা ব্রিজটা নতুন করে পাকা ব্রিজ করে দেওয়ার জন্য কথা দিয়েছেন। জানিনা এইসব আমার পাওয়ার যোগ্য কিনা তবে আমি জীবন বাজি রেখে দেশের জন্য সুনাম বয়ে আনতে চাই। সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের বাংলাদেশকে আমরা রিপ্রেজেন্ট করতে পেরেছি এবং শ্রেষ্ট গোল রক্ষক হিসেবে আমি নির্বাচিত হয়েছি। শুধু এখানে নয় আমি আরও অনেক দূর এগিয়ে যেতে চাই এবং বাংলাদেশের নারী ফুটবলকে আরো বড় আকারে রিপ্রেজেন্ট করতে চাই। আশা করি আপনাদের এই রকম সাপোর্ট, অনুপ্রেরণা এবং আর্শিবাদ আমার মূল চালিকা শক্তি হিসেবে কাজ করবে- আরও দূরে এগিয়ে যাওয়ার জন্য সাহজ যোগাবে। ডিসি স্যারের সুস্থও সুন্দর জীবন কামনা করি।”

এবারের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে পাঁচ ম্যাচে প্রতিপক্ষের জালে বাংলাদেশ দিয়েছে ২৩ গোল। কিন্তু হজম করে মাত্র এক গোল। এতেই বোঝা যায় রূপনার দক্ষতা। সেই সঙ্গে ফাইনালে অসাধারণ নৈপুণ্যের কারণে টুর্নামেন্টের সেরা গোলরক্ষকের পুরস্কার পান তিনি।

এমএইচ