ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০

অনলাইনে আইটি প্রশিক্ষণ

আইটি প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০০:৫৮, ২৯ অক্টোবর ২০২২

অনলাইনে আইটি প্রশিক্ষণ

কাজ তো অনেকেই করেন, কিন্তু মানুষের কাজে লাগে কজনা

কাজ তো অনেকেই করেন, কিন্তু মানুষের কাজে লাগে কজনা। আজ শোনাব এমনই এক প্রেক্ষাপটের অসম্ভব দুর্দান্ত একটা গল্প, নিজের বলার মতো একটা গল্প’ ফাউন্ডেশনের গল্প। ২০১৮ সালের ১ জানুয়ারিতে মাত্র ১৬৪ জন তরুণ-তরুণী নিয়ে বাংলাদেশের ৬৪ জেলা থেকে যাত্রা শুরু করে, শিক্ষার্থীর সংখ্যা গত ৫ বছরে এখন সাড়ে ৬ লাখ! বর্তমানে উদ্যোক্তাদের এটি একটি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠাতা, প্রেসিডেন্ট এবং মেন্টর ইকবাল বাহার জাহিদ।
ইকবাল বাহার জাহিদের নেতৃত্বে এই ফেসবুকভিত্তিক কমিউনিটি বর্তমানে রূপ নিয়েছে দেশের অন্যতম সেরা প্রশিক্ষণ প্লাটফর্ম হিসেবে। বলা হয়ে থাকে এটি উদ্যোক্তা তৈরির কারখানা। এখানে উদ্যোক্তা বিষয়ক প্রশিক্ষণ, ১৬টি বিষয়ে দক্ষতা শেখানো, মূল্যবোধ, লিডারশিপ ও ভলান্টিয়ারিং চর্চা সংক্রান্ত প্লাটফর্ম। বাংলাদেশের একমাত্র প্লাটফর্ম যেখানে বিনামূল্যে এই প্রশিক্ষণগুলো দেয়া হয়। প্রতিষ্ঠাতা নিজেও ১৯ বছরের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন একজন আইটি উদ্যোক্তা।
ইকবাল বাহার জাহিদ বললেন, প্রতিটি ব্যাচে টানা ৯০ দিন করে অনলাইনে ও অফলাইনে ৪০০টি কন্টেন্ট দিয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয় এখানে। এই প্রশিক্ষণ নিয়ে ইতোমধ্যে বদলে গেছে লাখো তরুণ-তরুণীর জীবন। হয় উদ্যোক্তা হয়েছেন, না হয় চাকরিতে ভালো করছেন, চাকরি করেও পার্টটাইম উদ্যোক্তা হয়েছেন, ছাত্রবস্থায় পার্ট টাইম উদ্যোক্তা হয়েছেন, হতাশা কাটিয়েছে, নতুন করে বাঁচার স্বপ্ন দেখছেন, প্রবাসে বসে বাংলাদেশে ব্যবসা করছেন তাঁরা। ব্যক্তিজীবনে ইকবাল বাহার, একজন উদ্যোক্তা, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, মেন্টর, পাবলিক স্পিকার, নিউজ প্রেজেন্টার ও বিজনেস প্রোগ্রাম অ্যাংকর।

মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানির লোভনীয় চাকরি থেকে ইস্তফা দিয়ে চাকরি করব না চাকরি দেব এই দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে কাজ শুরু করেন নিজের কোম্পানিতে। উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন দেখেন চাকরি জীবনের শুরুতেই। উদ্যোক্তা হয়ে উঠার গল্পটা এত সহজ ছিল না। ছিল ব্যাপক বাধা, অনিশ্চয়তা ও হেরে যাবার সম্ভাবনা। কিন্তু তিনি ছিলেন দৃঢ়চেতা ও ব্যাপক লেগে থাকা একজন স্বপ্নবাজ মানুষ। আজ তিনি বেশ কয়েকটি কোম্পানির উদ্যোক্তা ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর। সৃষ্টি করেছেন তার প্রতিষ্ঠানেই  ২২০ মেধাবী তরুণের কর্মসংস্থান।
আমরা শুধু স্বপ্ন দেখাইনি, কিভাবে স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে হয় তা শিখিয়ে যাচ্ছি টানা ৯০ দিন ধরে এক একটি ব্যাচে। ইতোমধ্যেই টানা ১৯টা ব্যাচ শেষ হয়েছে, চলছে ২০তম ব্যাচ। শুধু তাই নয়, বদলে গেছে এই সব তরুণদের জীবন- তারা এখন এক একজন দক্ষ মানুষ, পজিটিভ, সাহসী ও মানবিক মানুষ। প্রতিদিন সেশান চর্চা ও প্রতি মাসে ৬৪ জেলায় ও ৫০টি দেশে অনলাইন ও অফলাইন মিটআপের মধ্য দিয়ে গড়ে তোলা হয়েছে ব্যাপক সম্পর্ক, পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং, সেলস হাব ও নেটওয়ার্কিং।

ইতোমধ্যে সারা দেশে প্রায় ৪৪০০ অনলাইন ও অফলাইন মিটআপ, উদ্যোক্তা সম্মেলন, ভলান্টিয়ার সম্মেলন ও ৫০০০ উদ্যোক্তা নিয়ে বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ২টি উদ্যোক্তা মহাসম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। হয়েছে ৫টি বিভাগীয় উদ্যোক্তা সম্মেলন ও ১৮টি জেলায় বড় উদ্যোক্তা সম্মেলন ও উদ্যোক্তা মেলা।  
৪টি লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করে অনলাইন প্লাটফর্ম ‘নিজের বলার মতো একটা গল্প’।
১. উদ্যোক্তা বিষয়ক অনলাইনে টানা ৯০ দিন করে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ প্রদান অর্থাৎ একজন ইয়ুথকে উদ্যোক্তা হতে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদান এবং ৬৪ জেলায়, ৪৯২টি উপজেলায় ও ৫০ দেশে উদ্যোক্তা মিটআপ ও সম্মেলন।
২. মূল্যবোধ, লিডারশিপ, ১৬টি বিষয়ে স্কিলস ও একজন ভালো মানুষ হয়ে উঠার চর্চা কেন্দ্র।
৩. ‘বেকার থাকব না একদিনও’ এই স্লোগানকে ধারণ করে দেশের ১০০০টি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এই ফ্রি অনলাইন প্রশিক্ষণ দেয়া শুরু হয়েছে প্রতিটি ক্যাম্পাসে ‘উদ্যোক্তা ক্লাব’ গঠনের মধ্যদিয়ে।
৪. ভলান্টিয়ারিং শেখা ও চর্চা এবং সোশ্যাল ওয়ার্ক ও মানবিক কার্যক্রম।  
বাংলাদেশের ৬৪ জেলায়, ৪৯২টি উপজেলায় ও ৫০টি দেশে সাংগঠনিক কাঠামো তৈরি করে ৩০০০ জন দায়িত্বশীল ভলান্টিয়ার দিয়ে এই ফাউন্ডেশনের কাজ চলছে।
অনলাইনে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করার জন্য আমাদের
Facebook Group: https://ww w.facebook.com/groups/ youngentrepreneursbdiqbal
Facebook Page: https://ww w. facebook.com/ Iqbalbahar28/
Website: http:/ww/w.urownstory-iqbal.org/|
ইতোমধ্যে প্রায় ১ লাখ উদ্যোক্তা হয়েছেন এই প্লাটফর্ম থেকে। যে কোনো বয়সে যে উদ্যোক্তা হওয়া যায় ও ব্যবসা শুরু করা যায়- এটা প্রমাণ করেছে এই ফাউন্ডেশন। টানা ৯০ দিন ধরে শেখা, পার্টনার পাবার সুযোগ, ব্যবসা করা, কেনাবেচার সুযোগ, ভলান্টিয়ারিং, সামাজিক কাজ এবং ভালোমানুষি চর্চা সব একসঙ্গে একই প্লাটফর্মে, এ রকম সুযোগ আমাদের দেশে আর কোথাও নেই! লক্ষ্য আগামী ২ বছরের মধ্যে ১০ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান তৈরি করা অন্তত ৩ লাখ উদ্যোক্তা হওয়ার মধ্যদিয়ে।
আইটি প্রতিবেদক

×