ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০

দূষিত শহরের তালিকায় ঢাকা দ্বিতীয়

প্রকাশিত: ১২:২৯, ৫ ডিসেম্বর ২০২৩; আপডেট: ১২:৩৬, ৫ ডিসেম্বর ২০২৩

দূষিত শহরের তালিকায় ঢাকা দ্বিতীয়

ছবি: সংগৃহীত।

বিশ্বের দূষিত শহরের তালিকায় আজ ঢাকা দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) বেলা ১১টা ৪৫ মিনিটে এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স (একিউআই) স্কোর ১৮৯ নিয়ে ঢাকার বাতাসের মান ‘অস্বাস্থ্যকর’ অবস্থায় রয়েছে। আর এদিন সকাল ৯টা ১০ মিনিটে ঢাকার অবস্থান ছিল শীর্ষে।

এছাড়া, একিউআই স্কোর ২৩৯ নিয়ে শীর্ষে রয়েছে পাকিস্তানের লাহোর। সেখানে বাতাসের মান খুবই অস্বাস্থ্যকর। আর ১৮৭ স্কোর নিয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে করাচি। ১৮১ স্কোর নিয়ে ভারতের দিল্লী চতুর্থ এবং ১৭২ স্কোর নিয়ে পঞ্চম স্থানে রয়েছে কাতারের দোহা।

১৫১ থেকে ২০০ এর মধ্যে একিউআই স্কোরকে অস্বাস্থ্যকর বলে মনে করা হয়। এছাড়া, ২০১ থেকে ৩০০ একিউআই স্কোরকে ‘খুব অস্বাস্থ্যকর’ এবং ৩০১ থেকে ৪০০ এ কিউআই স্কোরকে ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ হিসেবে বিবেচনা করা হয়, যা বাসিন্দাদের জন্য গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে।বাংলাদেশে একিউআই নির্ধারণ করা হয় দূষণের পাঁচটি বৈশিষ্ট্যের ওপর ভিত্তি করে। সেগুলো হলো— বস্তুকণা (পিএম১০ ও পিএম২.৫), এনও২, সিও, এসও২ ও ওজোন (ও৩)।

দীর্ঘদিন ধরে বায়ু দূষণে ধুঁকছে ঢাকা। রাজধানী ঢাকার বাতাসের গুণমান সাধারণত শীতকালে অস্বাস্থ্যকর হয়ে যায় এবং বর্ষাকালে কিছুটা উন্নত হয়।

২০১৯ সালের মার্চ মাসে পরিবেশ অধিদপ্তর ও বিশ্বব্যাংকের একটি প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয় যে, ঢাকার বায়ু দূষণের তিনটি প্রধান উৎস হলো— ইটভাটা, যানবাহনের ধোঁয়া ও নির্মাণ প্রকল্পের ধুলাবালি।

ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের (ডব্লিউএইচও) তথ্য অনুসারে, বায়ু দূষণের ফলে স্ট্রোক, হৃদরোগ, ক্রনিক অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ, ফুসফুসের ক্যান্সার এবং তীব্র শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণের কারণে মৃত্যুহার বৃদ্ধি পেয়েছে। এর ফলে, বিশ্বব্যাপী প্রতি বছর আনুমানিক ৭০ লাখ মানুষ মারা যায়।

টিএস

×