ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০

স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মাণে পুরুষের পাশাপাশি নারীকে এগিয়ে আসতে হবে

প্রকাশিত: ১৮:২৩, ২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মাণে পুরুষের পাশাপাশি নারীকে এগিয়ে আসতে হবে

রাজশাহী ও ময়মনসিংহ শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা

মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা বলেছেন, আগামীর স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানে পুরুষের পাশাপাশি নারীকে এগিয়ে আসতে হবে। দেশের জনসংখ্যার অর্ধেকের বেশী নারীকে বাদ দিয়ে উন্নয়ন সম্ভব নয়। সরকার নারীর উন্নয়ন, ক্ষমতায়ন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে বিভিন্ন পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেতৃত্বে বাংলাদেশ নারীর ক্ষমতায়নে বিশ্বে রোল মডেল।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর ইস্কাটনে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের সভাকক্ষ থেকে অনলাইনে ময়মনসিংহ ও রাজশাহী শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: হাসানুজ্জামান কল্লোল ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ফরিদা পারভীন।

এসময় ইন্দিরা আরও বলেন, নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা, যৌতুক ও বাল্য বিয়ে রোধে মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থাগুলোকে সহিংসতা, ও বাল্য বিয়ে রোধে জোরালো ভুমিকা রাখতে হবে।

পৃথক দুটি পর্বে অনুষ্ঠিত শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের সম্মাননা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ময়মনসিংহ বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ শফিকুর রেজা বিশ্বাস ও রাজশাহী বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার জি এস এম জাফরউল্লাহ। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ডিআইজি রাজশাহী রেঞ্জ মোঃ আব্দুল বাতেন, রাজশাহী মেট্রোপলিটান পুলিশ কমিশনার মোঃ আনিসুর রহমান, ডিআইজি ময়মনসিংহ রেঞ্জ দেবদাস ভট্টাচার্য্যসহ বিভিন্ন জেলার জেলা প্রশাসক, জনপ্রতিনিধি ও নারী নেত্রীরা। 

এসময় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সচিব মো: হাসানুজ্জামান কল্লোল বলেন, নারীরা তথ্য প্রযুক্তিতে পিছিয়ে আছে। স্মার্ট সমাজ নির্মাণে নারীকে পুরুষের সমান জায়গায় নিয়ে আসতে হবে। এ লক্ষ্যে আইসিটিতে নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধি করতে হবে।

ঢাকায় মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে উপস্থিত থেকে প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরার কাছ থেকে সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রাখায় রাজশাহী জেলার মর্জিনা পারভীন এবং শিক্ষা ও চাকুরি ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী ময়মনসিংহ জেলার মোছা: আমেনা বেগম চম্পা সম্মাননা স্মারক, নগদ অর্থ ও সনদ গ্রহণ করেন। 
রাজশাহী বিভাগের সম্মাননা প্রাপ্ত নির্বাচিত শ্রেষ্ঠ পাঁচ জয়িতা হলেন-অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী নারী ক্যাটাগরীতে পাবনা জেলার কেয়া ইসলাম, শিক্ষা ও চাকুরি ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী রাজশাহী জেলার সাঈদা আঞ্জুম, সফল জননী ক্যাটাগরীতে পাবনা জেলার মোছা: মনোয়ারা বেগম, নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যোমে জীবন শুরু করে জয়পুরহাট জেলার মোছা: মৌসুমি আক্তার এবং সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রাখায় রাজশাহী জেলার মর্জিনা পারভীন।

ময়মনসিংহ বিভাগের সম্মাননা প্রাপ্ত নির্বাচিত শ্রেষ্ঠ পাঁচ জয়িতা হলেন অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী ক্যাটাগরীতে জামালপুর জেলার দেলুয়ারা বেগম, শিক্ষা ও চাকুরি ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী ময়মনসিংহ জেলার মোছা: আমেনা বেগম চম্পা, সফল জননী ক্যাটাগরীতে জামালপুর জেলার সুলতানা রাজিয়া, নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যোমে জীবন শুরু করা শেরপুর জেলার আবিদা সুলতানা আল্পনা এবং সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রাখায় ময়মনসিংহ জেলার তনু হিজড়া।
 

 

স্বপ্না

×