ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯

হোসেনি দালানে বোমা হামলা

দণ্ডপ্রাপ্তরা আপিল করলেও চুপচাপ রাষ্ট্রপক্ষ

প্রকাশিত: ১৪:২৩, ৯ আগস্ট ২০২২; আপডেট: ১৭:২৪, ৯ আগস্ট ২০২২

দণ্ডপ্রাপ্তরা আপিল করলেও চুপচাপ রাষ্ট্রপক্ষ

বোমা হামলা

পুরান ঢাকার হোসেনি দালানে বোমা হামলার মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি উচ্চ আদালতে জেল আপিল করেছেন। তবে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে এখনও কোনো ধরনের আপিল আবেদন করা হয়নি।

আপিল শুনানির জন্য মামলার রেকর্ড উচ্চ আদালতে এসেছে। তবে খালাস পাওয়া ছয় জনের দণ্ড দিতে এবং দণ্ডপ্রাপ্তদের সাজা বাড়াতে আপিল করেনি রাষ্ট্রপক্ষ।

এ বিষয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আব্দুল্লাহ আবু বলেন, বোমা হামলার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলাটিতে আমরা অভিযোগ প্রমাণ করতে পারায় দুই আসামির সাজা হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় ৬ জনকে খালাস দেয় আদালত। আপিল করার কথা বলা হলেও এখনও রাষ্ট্রপক্ষ থেকে আপিল করা হয়নি।

আসামি পক্ষের আইনজীবী ফারুক আহাম্মদ বলেন, আসামিদের পক্ষ থেকে আইনজীবী নিয়োগ করে কোনো প্রকার আপিল আবেদন করা হয়নি। তবে আসামিদের জেল আপিল করা হয়েছে।

২০১৫ সালের ২৩ অক্টোবর রাতে পবিত্র আশুরা উপলক্ষে হোসেনি দালান এলাকায় তাজিয়া মিছিলের প্রস্তুতিকালে বোমা হামলা চালায় নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ (জেএমবি)। ওই ঘটনার প্রায় সাত বছর পর দুই  চলতি বছরের ১৫ মার্চ বোমা হামলার ঘটনায় করা মামলার রায় ঘোষণা করা হয়। আরমান ওরফে মনিরকে ১০ বছরের কারাদণ্ড এবং কবির হোসাইন ওরফে রাশেদ ওরফে আশিফকে সাত বছরের দেওয়া হয়। এছাড়া অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় বাকি ছয়জনকে খালাস দেন আদালত।

২০১৫ সালের ওই বোমা হামলার ঘটনায় রাজধানীর চকবাজার থানায় এসআই জালাল উদ্দিন বাদী হয়ে মামলা করেন। প্রথমে মামলাটি তদন্ত করে চকবাজার থানা পুলিশ। পরে এর তদন্তভার ডিবিতে স্থানান্তর করা হয়।

২০১৭ সালের ৩১ মে ১০ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর পর ওই আদালতে মামলার বাদী মো. জালাল উদ্দিন সাক্ষ্য দেন। এরপর ২০১৮ সালের ১৪ মে মামলাটি সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালে বদলি হয়। বদলি হওয়ার পর থেকে পায় বিচারে গতি। ট্রাইব্যুনালে আসার পর ১০ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়।