ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ০৩ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০

রান্নাবান

প্রকাশিত: ০২:২৩, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

রান্নাবান

.

শুরু হলো শারদোৎসব। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। এই উৎসবের কয়েকটি জনপ্রিয় আর মজাদার খাবারের রেসিপি দিয়েছেন- মৃদুলা চৌধুরী


লুচি
যা যা লাগবে : ময়দা- ২ কাপ, লবণ- ১ চিমটি, তেল- ২ চা চামচ, উষ্ণ গরম পানি- ১/৪ কাপ।
যেভাবে করবেন : প্রথমে একটি বাটিতে ময়দার সঙ্গে লবণ মিশিয়ে নিতে হবে। এবার অল্প অল্প করে উষ্ণ গরম পানি ময়দার সঙ্গে মিশিয়ে, তেল দিয়ে ভাল করে ময়ান করতে হবে। ১০-১৫ মিনিট রেখে দিতে হবে। তারপর এই ডো থেকে ছোট ছোট লুচি কেটে নিতে হবে ও গোল গোল লুচির সাইজ করে বেলে নিতে হবে। কড়াইতে লুচি ভাজার জন্য পরিমাণমতো তেল নিয়ে নেবেন। তারপর তেল গরম হলে সেই ডুবো তেলে লুচি ভেজে নিবেন। খেয়াল রাখবেন যেন লুচির এপিঠ-ওপিঠ ভালমতো ভাজা হয় ও ফুলে ওঠে। এবার নামিয়ে নিয়ে পরিবেশন করুন গরম গরম লুচি। এটি আলুর দম বা মাংসের সঙ্গে খেতে মজা।

আলুর দম
যা যা লাগবে : আলু- মাঝারি আকার ৪টা, ঘি- ২ চা চামচ, সয়াবিন তেল- পরিমাণমতো, এলাচ-গোলমরিচ-লং- ৫/৬টা করে, দারুচিনি- ২টা, তেজপাতা- ২টা, শুকনা মরিচ- ২টা, লবণ- পরিমাণমতো, হলুদ গুঁড়া- হাফ চা চামচ, মরিচ গুঁড়া- ১ চা চামচ, টালা জিড়া গুঁড়া- ১ চা চামচ, পাঁচফোড়ন- হাফ চা চামচ, কাঁচা মরিচ- ৫/৬টা।
যেভাবে করবেন : প্রথমে আলু ধুয়ে টুকরো করে কেটে নিতে হবে। তারপর আলুগুলো ৮০% সিদ্ধ করে নিতে হবে। কড়াইতে পরিমাণমতো তেল দিয়ে তাতে তেজপাতা, শুকনা মরিচ, এলাচ, দারুচিনি, লং, গোলমরিচ ও পাঁচফোড়ন দিয়ে ভেজে নেবেন। যখন সুন্দর ঘ্রাণ পাবেন, সিদ্ধ আলু দিয়ে দেবেন। মসলা ও আলু ভাল করে মিশিয়ে হাতা দিয়ে আলুর টুকরোগুলো ভেঙে দেবেন। তারপর আলুর সঙ্গে বাকি গুঁড়া মসলা যোগ করে আরও কিছু সময় ভেজে নিতে হবে। হাফ কাপ জল যোগ করে চুলার আগুন কমিয়ে দমে দিয়ে তাতে কাঁচা মরিচ দিয়ে দেবেন। পানি শুকিয়ে এলে তাতে গরম মসলা গুঁড়া হাফ চা চামচ ও ১ চা চামচ ঘি দিয়ে ৫ মিনিট ঢেকে রাখবেন। চুলা থেকে নামিয়ে পরিবেশন করুন লুচির সঙ্গে আলুর দম।

সবজি লাবড়া
যা যা লাগবে : আলু- মাঝারি আকার ২টা, ফুলকপি- মাঝারি আকার- ১টা, বেগুন- মাঝারি আকার ১টা, মিষ্টিকুমড়া- ছোট ১ ফালি, বাঁধাকপি- শুধু পাতা কুচি ১ কাপ, পেঁপে- মাঝারি আকার ১টা, পটোল- ৪টা, বরবটি- ১০০ গ্রাম। সয়াবিন তেল- পরিমাণমতো, তেজপাতা- ২টা, শুকনা মরিচ- ৫টা (স্বাদমতো), মরিচ গুঁড়া- ১ চামচ, হলুদ গুঁড়া- ১ চামচ, লবণ- স্বাদমতো, টালা জিরা গুঁড়া- দেড় চা চামচ, ধনিয়া গুঁড়া- ১ চামচ, পাঁচফোড়ন- ১ চা চামচ, কাঁচা মরিচ- ৭/৮টা।
যেভাবে করবেন : আলু, ফুলকপি, পেঁপে অল্প লবণ দিয়ে আলাদাভাবে ভাপিয়ে নিতে হবে। বেগুন, মিষ্টিকুমড়া, পটোল, বরবটি একটু হলুদ-লবণ দিয়ে তেলে ভেজে নিতে হবে। কড়াইতে তেল গরম হলে তাতে তেজপাতা, শুকনা মরিচ, পাঁচফোড়ন দিয়ে দিতে হবে। তারপর ভাপানো ও হাল্কা ভাজা সবজি একসঙ্গে মিশিয়ে ভেজে নিতে হবে। গুঁড়া মসলা একেক করে দিয়ে দিতে হবে। মরিচ, হলুদ, টালা জিরা গুঁড়া, ধনিয়া গুঁড়া ও লবণ যোগ করব। ভাল করে মিশিয়ে করতে হবে এবং একটু সময় নিয়ে ভাজতে হবে। সুন্দর করে কষানো হলে অল্প জল দিয়ে দিতে। কারণ সবজি থেকেও জল ছাড়বে। অপেক্ষা করতে হবে জল শুকানো পর্যন্ত। গরম গরম খিচুড়ির সঙ্গে লাবড়া খুব মজা।

খিচুড়ি
যা যা লাগবে : পোলাওয়ের চাল- ১ কাপ, মুগডাল- ১ কাপ, ঘি- ২ চামচ, সয়াবিন তেল- পরিমাণমতো, এলাচ- ৬/৭টা, দারুচিনি- ৩টা, লং- ৫/৬টা, গোল মরিচ- ৫/৬টা, তেজপাতা- ২টা, শুকনা মরিচ- ৫টা (স্বাদমতো), মরিচ গুঁড়া- ১ চামচ, হলুদ গুঁড়া- ১ চামচ, লবণ- স্বাদমতো, টালা জিরা গুঁড়া- দেড় চা চামচ, ধনিয়া গুঁড়া- ১ চামচ, পাঁচফোড়ন- ১ চা চামচ, কাঁচা মরিচ- ৭/৮টা, আদা- পরিমাণমতো।
যেভাবে করবেন : প্রথমে মুগডাল ভাল করে ভেজে পোলাওয়ের চাল আর ডাল ভালভাবে ধুয়ে জল ঝরিয়ে নিতে হবে। কড়াইয়ে তেল গরম হলে তাতে এক চামচ ঘি দেবেন। তারপর তেজপাতা, শুকনা মরিচ, পাঁচফোড়ন গুঁড়া দিয়ে দিতে হবে। তারপর এলাচ, দারুচিনি, লং, গোল মরিচ, দিতে হবে। পোলাওয়ের চাল, মুগডাল দিয়ে ভাল করে মসলার সঙ্গে ভেজে নিতে হবে, যাতে মুগডালের কাঁচা গন্ধটা চলে যায়। গুঁড়া মসলা এক এক করে দিয়ে দিতে হবে। মরিচ, হলুদ, টালা জিরা গুঁড়া, ধনিয়া গুঁড়া ও লবণ যোগ করে ভাল করে মিশিয়ে এবং একটু সময় নিয়ে ভাজতে হবে। ভাজা হয়ে গেলে পরিমাণ মতো গরম জল (৪.৫ কাপ) দিয়ে কাঁচা মরিচ যোগ করে আদা থেঁতো করে সঙ্গে দিতে হবে। তারপর অপেক্ষা করতে হবে ফুটে উঠা পর্যন্ত। ঘি দিয়ে দমে দিতে হবে। মাঝে দেখে নিতে হবে। জল শুকিয়ে গেলেই হয়ে গেল মজাদার খিচুড়ি। গরম গরম পরিবেশন করুন আপন মানুষদের।

 

×