ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ১৪ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১

অরুণাচলে ১২ বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করছে ভারত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ২১:০৫, ১০ জুলাই ২০২৪

অরুণাচলে ১২ বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করছে ভারত

অরুণাচলে ১২টি জলবিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন

সীমানা নিয়ে চীনের সঙ্গে চলমান বিবাদের মধ্যেই উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য অরুণাচলে ১২টি জলবিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। সরকারের উচ্চ পর্যায়ের একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে এ তথ্য। সম্প্রতি অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ দেশের উত্তরপশ্চিমাঞ্চলে জলবিদ্যুৎ প্রকল্পের জন্য ৭ হাজার ৫০ কোটি রুপি বরাদ্দ করেছেন। এই অর্থের মধ্যে অরুণাচলের ১২টি বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের জন্য রাখা হয়েছে ৯০০ কোটি রুপি। খবর রয়টার্সের।
মূলত উত্তরপূর্বাঞ্চলের অবকাঠামোগত উন্নয়ন, বিভিন্ন রাজ্যের দুর্গম ও প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনগণকে বিদ্যুৎসুবিধা প্রদান এবং স্থানীয় জনগণকে পুনর্বাসন করতে এই অর্থ ব্যয় করা হবে। প্রসঙ্গত, হিমালয় পার্বত্য অঞ্চলের রাজ্য অরুণাচলের অপর সীমান্তে চীনের তিব্বত প্রদেশ। গত ৬ দশক ধরে অরুণাচল নিয়ে চীনের সঙ্গে দ্বন্দ্ব চলছে ভারতের। চীন এই রাজ্যকে নিজেদের বলে দাবি করে আসছে। গত বছর ২৮ আগস্ট নতুন একটি মানচিত্র প্রকাশ করে বেজিং। সেখানে গোটা অরুণাচলকে চীনের ভূখ-ে ঢোকানো হয়েছে। চীনের মানচিত্রে এই রাজ্যটির নাম দেওয়া হয়েছে দক্ষিণ তিব্বত।
বিশাল আকারের প্রকল্প নিয়ে আরও বিস্তারিত জানতে ভারতের অর্থ ও বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল রয়টার্স। এ ছাড়া বিতর্কিত রাজ্যে ভারতের অবকাঠামো নির্মাণ নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হয়েছিল চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছেও। 
কিন্তু কোনো পক্ষই মন্তব্য করতে রাজি হয়নি। অরুণাচল প্রদেশের পাশাপাশি লাদাখকেও নিজেদের ভূখ- বলে দাবি করে আসছে চীন।দুই দেশের মধ্যে সীমান্তের দৈর্ঘ ২ হাজার ৫০০ কিলোমিটার। এই সীমান্ত নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরেই ১৯৬২ সাল থেকে বিরোধ চলছে ভারত-চীনের মধ্যে।

×